লামিয়া হাজী বাশার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লামিয়া হাজী বাশার
Lamija Adschi Baschar.jpeg
২০১৭ সালে লামিয়া হাজী বাশার
জন্ম
লামিয়া হাজী বাশার

১৯৯৮ (বয়স ২০–২১)
পেশামানবাধিকার কর্মী
কার্যকাল২০১৪ – বর্তমান

লামিয়া হাজী বাশার (আরবি: لمياء حجي بشار) একজন ইয়াজিদি মানবাধিকার কর্মী। তিনি ২০১৬ সালে নাদিয়া মুরাদের সাথে যৌথভাবে শাখারভ পুরস্কার অর্জন করেন।[১]

পরিচয়[সম্পাদনা]

হাজী বাশার ইরাকের সিনজার প্রদেশের নিকট কোযোতে জন্মগ্রহণ করেন৷ ঐ গ্রাম থেকে ২০১৪ সালে নাদিয়া মুরাদের সাথে তিনি আইএস কর্তৃক অপহৃত হন এবং তাকে যৌন দাসত্বে বাধ্য করা হয়।[২][৩] তাকে আত্মঘাতি পোশাক তৈরীতেও বাধ্য করা হয়েছিল।[২]

চোরাচালনকারীদের অর্থ প্রদান করে তার পরিবার তাকে পালিয়ে আসতে সহায়তা করেছিল এবং ২০১৬ সালের এপ্রিলে তিনি পালাতে সক্ষম হয়েছিলেন। কিন্তু পালানোর সময় ল্যান্ডমাইন বিস্ফোরণের ফলে তিনি আহত হন। তাকে জার্মানিতে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।[৩] ২০১৬ সালে, তিনি এবং নাদিয়া মুরাদ যৌথভাবে শাখারভ পুরস্কার অর্জন করেন। অনুষ্ঠানটি ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে সংঘটিত হয়।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sakharov prize: Yazidi women win EU freedom prize"। BBC News। ২৭ অক্টোবর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. Kamali Dehghan, Saeed; Graham-Harrison, Emma (২৭ অক্টোবর ২০১৬)। "Yazidi women who escaped from Isis win EU human rights prize"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৬ 
  3. "Nadia Murad and Lamiya Aji Bashar winners of 2016 Sakharov Prize"। European Parliament। ২৭ অক্টোবর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৬