রোহণ দালুওয়াত্তে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রোহণ দালুওয়াত্তে
জন্ম(১৯৪১-০৫-০৯)৯ মে ১৯৪১
আমবালানগোদা, শ্রীলঙ্কা
মৃত্যু২৭ আগস্ট ২০১৮(2018-08-27) (বয়স ৭৭)[১]
কলম্বো, শ্রীলঙ্কা
আনুগত্য শ্রীলঙ্কা
সার্ভিস/শাখা শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৬৩-১৯৯৮
পদমর্যাদাজেনারেল
ইউনিটশ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী সাঁজোয়া শাখা
নেতৃত্বসমূহসেনাবাহিনী প্রধান (শ্রীলঙ্কা)
যুদ্ধ/সংগ্রামশ্রীলঙ্কার গৃহযুদ্ধ

রোহণ দালুওয়াত্তে (১৯৪১-২০১৮) শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনীর একজন জেনারেল ছিলেন। শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী সাঁজোয়া শাখায় কমিশনপ্রাপ্ত রোহণ ১৯৯৬ সালে শ্রীলঙ্কার সেনাপ্রধান নিযুক্ত হন। জেনারেল রোহণ নব্বইয়ের দশকে জাফনা অঞ্চলের কোর কমান্ডার থাকাকালীন এলটিটিই তার অধীনস্ত সৈন্যদের উপর হামলা চালিয়েছিলো। জেনারেল রোহণ প্রজ্ঞা দ্বারা এলটিটিইর উপর পাল্টা হামলা চালানোর নির্দেশ দেন তার অধীনস্ত ডিভিশন এবং ব্রিগেডগুলোকে।[২]

সেনা জীবন[সম্পাদনা]

১৯৬১ সালে সেনা ক্যাডেট হিসেবে রোহণের সামরিক জীবন শুরু হয় ব্রিটেনের স্যান্ডহার্স্ট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে, '৬১ সালের ১৪ই আগস্ট তারিখে রোহণের প্রশিক্ষণ শুরু হয়। তিনি প্রশিক্ষণ একাডেমীতে ভালো সাঁতার কাটতেন।[৩]

১৯৬৩ সালের ১ আগস্ট রোহণকে কমিশন দেওয়া হয় শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী সাঁজোয়া শাখাতে, তিনি ১ম সাঁজোয়া রেজিমেন্টে যোগ দিয়েছিলেন ব্রিটেন থেকে ফিরে এসে। সাঁজোয়া বাহিনীর কর্মকর্তাদের উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য রোহণ পাকিস্তান যান। পাকিস্তান থেকে ফিরে এসে তিনি লেফটেন্যান্ট হন ১৯৬৪ সালে; ১৯৬৬ সালে ক্যাপ্টেন এবং ১৯৭০ সালে মেজর হন; তিনি বিভিন্ন সাঁজোয়া রেজিমেন্টে ট্রুপ এবং স্কোয়াড্রন অধিনায়ক হিসেবে নিয়োগ পাচ্ছিলেন। ১৯৭১ সালে তিনি একটি পদাতিক ব্রিগেডের ব্রিগেড মেজর হিসেবে নিয়োগ পান। ১৯৭২ সালে তিনি আবার একটি সাঁজোয়া রেজিমেন্টের স্কোয়াড্রন কমান্ডার হিসেবে বদলী হন; একই বছর তিনি পাকিস্তানে স্টাফ কোর্স (পিএসসি) করতে যান। ১৯৭৪ সালের শুরুর দিকে রোহণ সেনা সদরে সাঁজোয়া পরিদপ্তরে জিএসও-২ হিসেবে নিয়োগ পান। ১৯৭৫ সালে তিনি লেফটেন্যান্ট কর্নেল হন এবং ৩য় সাঁজোয়া রেজিমেন্টের কমান্ডিং অফিসার হিসেবে নিয়োগ পান। ১৯৭৬ সালে তিনি ৮৮ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনে ১১ সাঁজোয়া রেজিমেন্টের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পান; ১৯৭৮ সালে তিনি সেনা সদরের শিক্ষা পরিদপ্তরে জিএসও-১ হন; ১৯৮০ সালে তিনি কর্নেল হন এবং ২৪ পদাতিক ডিভিশনের কর্নেল স্টাফ করা হয় তাকে। ১৯৮২ সালে তিনি ব্রিগেডিয়ার পদে পদোন্নতি লাভ করেন এবং এর মধ্যেই তিনি পাকিস্তান থেকে এনডিসি কোর্স করে আসেন; ব্রিগেডিয়ার হিসেবে তিনি ৪১ পদাতিক ব্রিগেডের অধিনায়ক হন (তখনো শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনীতে সাঁজোয়া বাহিনীর ব্রিগেড ফরমেশন ছিলোনা)। ১৯৮৩ সালে তিনি সেনা সদরে সাঁজোয়া পরিদপ্তরের পরিচালক হন, ১৯৮৬ সালে আবার একটি পদাতিক ব্রিগেডের অধিনায়ক হন। '৮৭ সালে তিনি মেজর জেনারেল হন এবং ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের অধিনায়ক করা হয়, '৮৯ সালে তিনি ১১ পদাতিক ডিভিশনের অধিনায়ক হন। ১৯৯০ সালে তিনি সেনা সদরে কোয়ার্টার-মাস্টার জেনারেল হন এবং একই বছরের শেষের দিকে তিনি লেফটেন্যান্ট জেনারেল হন আর তাকে কলম্বো কোরের অধিনায়ক করা হয়। ১৯৯২ সালে তিনি সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে এমজিও (মাস্টার জেনারেল অব অর্ডন্যান্স) হিসেবে বদলী হন এবং পরের বছর জাফনা কোরের অধিনায়ক হন; ১৯৯৬ সালের ১ মে সেনাপ্রধান হবার আগ পর্যন্ত তিনি জাফনা কোরের কমান্ডার ছিলেন, তিনি ১৯৯৮ সালের ১৫ই ডিসেম্বর সেনাবাহিনী থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Death of former Army Commander Gen. Rohan Daluwatte"dailynews.lk। ২৮ আগস্ট ২০১৮। 
  2. "Sri Lanka Army – Past Army Commanders"। Army.lk। ৩০ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  3. Epasingha, P। "Rohan Daluwatta: A versatile sportsman"। Island। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০২০