রেখা রাজু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রেখা রাজু
രേഖ രാജു
Rekha Raju DS 2.jpg
রেখা রাজু পারফর্মিং মোহিনীয়াত্তম
জন্ম
রেখা রাজু

১০ এপ্রিল
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্বভারতীয়
শিক্ষাচারুকলায় পিএইচডি
মাতৃশিক্ষায়তনবেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়
পেশানৃত্যশিল্পী, নৃত্য পরিচালক
কর্মজীবন২০০৩ - বর্তমান
পরিচিতির কারণমোহিনীয়াত্তম এবং ভরতনাট্যম
পিতা-মাতামিঃ এম আর রাজু এবং মিসেস জয়লক্ষ্মী রাঘবন
ওয়েবসাইটrekharaju.com

রেখা রাজু ( মালয়ালম: രേഖ രാജു ) কর্ণাটকের বেঙ্গালুরের একজন ভারতীয় ধ্রুপদী নৃত্য শিল্পী ও শিক্ষক। তিনি ভরতনাট্যম এবং মোহিনীয়াত্তম নৃত্যের রূপগুলিতে একজন বিশেষজ্ঞ। [১][২][৩][৪][৫][৬][৭][৮]

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

রেখার জন্ম কেরালার পালক্কড় জেলায়, থিয়েটার শিল্পী এম আর রাজু এবং জয়লক্ষ্মী রাঘবনের ঘরে। তিনি লালিত-পালিত হয়েছেন বেঙ্গালুরুতে। তিনি চার বছর বয়সে শাস্ত্রীয় নৃত্য শিখতে শুরু করেছিলেন। তিনি বিভিন্ন গুরুর অধীনে নিবিড় প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন, যার মধ্যে নামী গুরু শ্রীমতি কালামান্দালাম উষা দাতর, গুরু শ্রী রাজু দাতর, গুরু শ্রীমতি গোপিকা ভার্মা এবং গুরু অধ্যাপক জনার্ধনন। [৯] তিনি কলেজের পড়াশোনা বাণিজ্য বিভাগে শুরু করেছিলেন, কিন্তু পরে তিনি মানব সম্পদ ও অ্যাকাউন্ট প্রশাসনে স্নাতক ডিগ্রি নেন এবং তাঁর স্নাতকোত্তর করেন পারফর্মিং কলা বিষয়ে। [৬] তিনি জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চারুকলায় পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি ভরতনাট্যমে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনকারী এবং বিদ্বথের দক্ষতা পদকধারী। [১][৯]

পেশা[সম্পাদনা]

২০০৩ সালে তিনি বেঙ্গালুরুর রবীন্দ্র কলাক্ষেত্রে তাঁর মঞ্চ অভিষেক (আরঙ্গেত্রম) করেছিলেন। [১][৯][১০] তিনি চার বছর বয়স থেকে ভারত এবং বিদেশের বিভিন্ন মঞ্চে নৃত্য প্রদর্শন করে আসছিলেন। তন্মধ্যে আছে কান্নাড়া সংস্কৃতি বিভাগের উদ্যোগে যুব সৌরভ সহ ভারতের বহু সম্মানিত নৃত্যের প্রতিষ্ঠানের একক নৃত্য পরিবেশন। আরো আছে: ভারতীয় সংস্কৃতি বিষয়ক কাউন্সিলের অনুষ্ঠান, বিশ্ব সংস্কৃতি ইনস্টিটিউট, দিল্লি আন্তর্জাতিক উৎসব, পুুনা নৃত্য উৎসব, কাজুরাহো নাচের উৎসব, কোনার্ক নাচের উৎসব, পুরানা কিল্লা, চেন্নাই মৌসুমী নৃত্য উৎসব, চিদাম্বরম নৃত্য উৎসব, বেলগামের বিশ্ব কান্নাড়া সম্মেলন, অন্ধ্র সংগীত ও নৃত্য উৎসব ইত্যাদি। তিনি তাঁর একক এবং দলীয় নৃত্য পরিচালনা উভয়ের জন্য অনেক সমালোচনা ও প্রশংসা পেয়েছেন। [১][২][৯][১১] বর্তমানে রাজু বেঙ্গালুরু তামিল সঙ্গমে সহকারী নৃত্য শিক্ষক এবং আন্তর্জাতিক ব্যবস্থাপনা ও ভারতীয় অধ্যয়নের অতিথি নৃত্য প্রভাষক হিসাবে কর্মরত আছেন। সেখানে বিদেশী শিক্ষার্থীরা ভারতীয় উন্নত সংস্কৃতির প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। [১][৯] তিনি বেঙ্গালুরু দূরদর্শনের একজন শিল্পী এবং ভারতীয় সাংস্কৃতিক সম্পর্ক কাউন্সিলের একজন প্যানেলভুক্ত শিল্পী। তিনি নৃত্য ধাম নামে একটি নৃত্য সংস্থারও প্রধান, যেখানে তিনি সংখ্যালঘু বাচ্চাদের প্রশিক্ষণ দেন এবং এইচআইভি আক্রান্ত শিশুদের পুনর্বাসনে স্বেচ্ছাসেবক দল ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের সাথেও যুক্ত। [৬][১২] রাজু তাঞ্জোর নৃত্য উৎসবে অংশ নিয়েছেন যেখানে ১০০০ নৃত্যশিল্পী নৃত্য প্রদর্শন করে লিমকা বুক অফ রেকর্ডসে নিজেদের নাম লিখিয়েছেন। [১][৯][১০] তিনি বেঙ্গালুরু তামিল সঙ্গম থেকে ভারতীয় কলা প্রচারের জন্য সেরা তরুণ নৃত্যশিল্পী হিসাবে সম্মানিত হয়েছেন। কালাহল্লি মন্দির ট্রাস্ট তাঁকে স্বর্ণ মুখী উপাধিও দিয়েছে। [১][৯]

== পুরস্কার এবং শংসাপত্র ==স্কার - ২০১৬ [১৩]

  • বেঙ্গালুরু কথাকলি ও আর্টস ক্লাব কর্তৃক যুব কলা প্রতিভা - ২০১৪ [৬]
  • অভিনব ভারতী - ২০১৩
  • ভারত কালাচর কর্তৃক যুব কলা ভারতী - ২০১৩
  • নটরাজ নৃত্য একাডেমি কর্তৃক নাট্য বেদ পুরস্কার - ২০১৩
  • অন্ধ্র প্রদেশ সরকার কর্তৃক নৃত্য কৌমুদী উপাধি - ২০১২ [১০]
  • বগাদি মুর্তি কর্তৃক নৃত্য বিভূষণ - ২০১২ [১০]
  • কান্নুর আর্টস একাডেমি কর্তৃক নৃত্য রেজিনী খেতাব - ২০১১ [১০]
  • কালহল্লি মন্দির ট্রাস্ট কর্তৃক স্বর মুখী খেতাব - ২০১০ [১০]
  • বেঙ্গালুরু তামিল সঙ্গম কর্তৃক সেরা যুব নৃত্যশিল্পী - ২০০৯

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Official Website"। ২৭ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০২০ 
  2. The New Indian Express News on 27 May 2013
  3. The Hindu News on 18 June 2014
  4. Deccan Herald News on 1 September 2012
  5. News British Biologicals
  6. The Hindu 26 September 2014
  7. The Hindu News on 17 Nune 2014
  8. "Karnataka News"। ২০১৪-০৮-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-০১ 
  9. "Website of Alliance Farncaise"। ৯ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০২০ 
  10. Website of Meet Kalakar
  11. Website of Cyber Kerala
  12. Official Website of Nrithya Dhama
  13. "The Carnatic Darbar 26 December 2016"। ১৬ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]