রুমি বর্ষপঞ্জি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

রুমি বর্ষপঞ্জি (উসমানীয় তুর্কি: رومي تقویم, Rumi takvim, অর্থ "রোমান বর্ষপঞ্জি"), হল জুলীয় বর্ষপঞ্জির উপর ভিত্তি করে নির্মিত নির্দিষ্ট বর্ষপঞ্জি যা আনুষ্ঠানিকভাবে উসমানীয় সাম্রাজ্য দ্বারা তানজিমাত (১৮৩৯) ও এর উত্তরসূরি তুরস্ক প্রজাতন্ত্র দ্বারা ১৯২৬ সাল পর্যন্ত ব্যবহার করা হয়েছিল। এটি বেসরকারি ঘটনাবলীর জন্য গৃহীত হয়েছিল ও এটি একটি সৌর ভিত্তিক বর্ষপঞ্জি যা প্রতিটি সৌর দিনের জন্য একটি তারিখ নির্ধারণ করে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১১-এর বহুভাষিক উসমানীয় বর্ষপঞ্জির পাতা:
  • উপরের বামের তারিখটি উসমানীয় তুর্কি ভাষায় লেখা রুমি তারিখ: বর্ষ ১৩২৭, 7 Nisan (٧ نیسان ١٣٢٧ )
  • একই জুলীয় তারিখ (৭ এপ্রিল, ΑΠΡΙΛΙΟΣ 7) ও বার (বৃহস্পতিবার, Πέμπτη) নিচে গ্রিক ভাষায় খ্রিস্টাব্দ সহ দেখাচ্ছে
  • এর পাশেরটি হল গ্রেগরীয় তারিখ (২০ এপ্রিল, AVRIL 20) ও বার (Jeudi) ফরাসি ভাষায় লেখা রয়েছে
  • এগুলোর উপরে হল ৩০ (দুইবার), জুলীয় ও গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জিতে দিনের সংখ্যা; মাস (এপ্রিল, Априлий) ও বার (বৃহস্পতিবার, Четвъртъкъ) যা বুলগেরীয় ভাষায় লেখা রয়েছে
  • গ্রিক লেখার নিচে আর্মেনীয় ভাষায় লেখা এপ্রিল (ԱՊՐԻԼ) ও বৃহস্পতিবার (ՀԻՆԳՇԱԲԹԻ)
  • উপরের ডানদিকে ইসলামি তারিখ 21 Rebiülahir 1329 (١٣٢٩ ربيع الآخر أو ١٢) দেখা যাচ্ছে
  • হিব্রু তারিখ ২২ নিসান ৫৬৭১ (22 ניסן 5671) নিচে দেখা যাচ্ছে।

ইসলামি রাষ্ট্র উসমানীয় সাম্রাজ্যে ধর্মীয় ইসলামি বর্ষপঞ্জি ব্যবহার করা হত, যার মধ্যে প্রতিটি চন্দ্র পর্ব চক্রের মধ্যে দিনগুলি গণনা করা হয়। যেহেতু চন্দ্র মাসের দৈর্ঘ্য গ্রীষ্মমন্ডলীয় বছরের দৈর্ঘ্যের একটিও ভগ্নাংশ নয় তাই বিশুদ্ধভাবে চান্দ্র বর্ষপঞ্জি দ্রুত ঋতুর সাপেক্ষে প্রবাহিত হয়।

১৬৭৭ সালে প্রধান কোষাধ্যক্ষ (উসমানীয় তুর্কি: باش دفتردار, Baş Defterdar) সুলতান চতুর্থ মুহাম্মদের অধীনে হাসান পাশা চন্দ্র ইসলামি বর্ষপঞ্জি ও সৌর জুলীয় বর্ষপঞ্জির মধ্যে পার্থক্যের ফলে প্রতি ৩৩ বছরে এক বছর (একটি পলায়ন বছর) বাদ দিয়ে আর্থিক দলিল সংশোধনের প্রস্তাব করেছিলেন।[১]

১৭৪০ সালে (১১৫২ হিজরি সন) সুলতান প্রথম মাহমুদের শাসনামলে কোষাধ্যক্ষ আতিফ এফেন্দির প্রস্তাবে মুহররমের পরিবর্তে কর পরিশোধ এবং সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে লেনদেনের জন্য মার্চ মাসকে অর্থবছরের প্রথম মাস হিসেবে গৃহীত হয়।[১]

সুলতান প্রথম আব্দুল হামিদের শাসনামলে কোষাধ্যক্ষ মোরালি ওসমান এফেন্দি কর্তৃক প্রস্তাবিত ইসলামি এবং জুলীয় বর্ষপঞ্জির মধ্যে সময়ের পার্থক্য থেকে উদ্ভূত উদ্বৃত্ত খরচ প্রতিরোধ করার জন্য ১৭৯৪ সালে আর্থিক বর্ষপঞ্জির আবেদনের পরিসর রাষ্ট্রীয় ব্যয় এবং অর্থপ্রদানের জন্য বাড়ানো হয়েছিল।[১]

জুলীয় বর্ষপঞ্জি, ১৬৭৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে শুধুমাত্র আর্থিক বিষয়ের জন্য ব্যবহার শুরু হয়, ১৩ মার্চ, ১৮৪০ খ্রিস্টাব্দে (মার্চ ১, ১২৫৬ হিজরি) সুলতান প্রথম আবদুলমেসিদ সিংহাসনে আরোহণের পরপরই তানজিমত সংস্কার প্রকল্প গৃহীত হয়েছিল। সমস্ত বেসরকারি বিষয়ের জন্য সরকারি বর্ষপঞ্জিটি গঠন করা হয় যার নাম হয় "রুমি বর্ষপঞ্জি" (আক্ষরিক অর্থে রোমান বর্ষপঞ্জি)।[১] এর বছর গণনা শুরু হয়েছিল ৬২২ খ্রিস্টাব্দ থেকে , যখন মুহাম্মাদ এবং তার অনুসারীরা মক্কা থেকে মদিনায় হিজরত করেন, একই ঘটনাটি ইসলামি বর্ষপঞ্জির সূচনা করে। জুলীয় বর্ষপঞ্জির মাস ও দিনগুলো ব্যবহার করা হয়েছিল, মার্চ থেকে বছর শুরু হত।[২] যাইহোক, ১২৫৬ হিজরি সনে হিজরি ও গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জির মাঝে পার্থক্য ছিল ৫৮৪ বছর। চন্দ্র বর্ষপঞ্জি থেকে সৌর বর্ষপঞ্জিতে পরিবর্তনের সাথে সাথে রুমি বর্ষপঞ্জি ও জুলীয় বা গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জির মধ্যে পার্থক্য ৫৮৪ বছর স্থায়ী ছিল।

যেহেতু জুলীয় থেকে গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জিতে পরিবর্তনটি প্রতিবেশী দেশগুলিতে শেষ পর্যন্ত গৃহীত হয়েছিল, রুমি বর্ষপঞ্জিটি ১৯১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জিতে পুনরায় সংযোজিত হয়েছিল তবে ৫৮৪ বছরের পার্থক্য অপরিবর্তিত রাখা হয়েছিল। এভাবে ১৫ ফেব্রুয়ারি, ১৩৩৩ হিজরি (১৯১৭ খ্রিস্টাব্দের ফেব্রুয়ারি) পরের দিনটি ১৬ ফেব্রুয়ারি না হয়ে হঠাৎ করে ১ মার্চ, ১৩৩৩ হিজরি (১ মার্চ, ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দ) হয়ে যায়।[৩] ১৩৩৩ হিজরি (১৯১৭ খ্রিস্টাব্দ) ১ মার্চ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলমান মাত্র দশ মাস নিয়ে একটি বছরে পরিণত হয়েছিল। ১ জানুয়ারী, ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দ এইভাবে ১ জানুয়ারী, ১৩৩৪ হিজরি সনে পরিণত হয়।[৪] তুরস্কের উত্তরসূরি প্রজাতন্ত্রের প্রথম বছরগুলিতে উসমানীয় সাম্রাজ্যের বিলুপ্তির পরেও রুমি বর্ষপঞ্জি ব্যবহার করা হয়। ২৬শে ডিসেম্বর, ১৩৪১ হিজরি (১৯২৫ খ্রিস্টাব্দ)-এর একটি আইন দ্বারা আতাতুর্কের সংস্কারের অংশ হিসাবে হিজরি সনের ব্যবহার পরিত্যাগ করা হয়েছিল এবং ১৯২৬ সাল থেকে কমন এরা দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়েছিল।[৫] সেমেটীয়/আরবি নামকরণ পদ্ধতিতে জোড়ায় জোড়ায় চার মাসের নাম (Teşrin-i Evvel, Teşrin-i SânîKânûn-ı Evvel, Kânûn-ı Sânî) ১০ জানুয়ারী, ১৯৪৫-এ সরল করার জন্য পরিবর্তন করে তুর্কি ভাষার নাম, Ekim, Kasım, AralıkOcak করা হয়েছিল। ১৯১৮ সাল থেকে অর্থবছর শুরু হয় ১ জানুয়ারিতে।

রুমি বর্ষপঞ্জির মাস
মাস অর্থবছর তুর্কি উসমানীয় দিন মন্তব্য
১১তম মাস Kânûn-ı Sânî كانون ثانی ৩১ İkinci Kânûn (২য় কানুন)
১২তম মাস Şubat شباط ২৮
১ম মাস Mart مارت ৩১
২য় মাস Nisan نیسان ৩০
৩য় মাস Mayıs مایس ৩১
৪র্থ মাস Haziran حزیران ৩০
৫ম মাস Temmuz تموز ৩১
৬ষ্ঠ মাস Ağustos اغستوس ৩১
৭ম মাস Eylül ایلول ৩০
১০ ৮ম মাস Teşrin-i Evvel تشرین اول ৩১ Birinci Teşrin (১ম তেসারিন)
৯ম মাস Teşrin-i Sânî تشرین ثانی ৩০ İkinci Teşrin (২য় তেসারিন)
১২ ১০ম মাস Kânûn-ı Evvel كانون اول ৩১ Birinci Kânûn (১ম কানুন)

দ্বৈত তারিখ[সম্পাদনা]

উসমানীয় সাম্রাজ্যে চন্দ্র ভিত্তিক হিজরি বর্ষপঞ্জি রুমি বর্ষপঞ্জির পাশাপাশি ধর্মীয় বিষয়ে ব্যবহৃত হত। তারিখগুলোর মাঝে বিভ্রান্তি রোধ করার জন্য বেশিরভাগ নথিতে উভয় বর্ষপঞ্জি ব্যবহার করা হত।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Takvimler ve Birbirlerine Dönüşümleri – Rumi Takvim"Takvim.com (তুর্কী ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৬-১৪ 
  2. "History of the Ottoman Empire – The Ottoman Empire 1839–1861"World History at KMLA। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৬-১৪ 
  3. Revue du monde musulman 43 (1921) p. 47.
  4. A. Birken, Handbook of Turkish Philately Part I – Ottoman Empire: The Calendar (Nicosia, 1995) 11.
  5. Georgeon, François (Spring ২০১১)। "Changes of time: An aspect of Ottoman modernization"New Perspectives on Turkey 44। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০১-০৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]