মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ (১৭ মার্চ ১৯০৩ – ৩১ মার্চ ১৯৭৬) পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রথম বাঙালি ভাষী জেনারেল ছিলেন। [১]

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ ১৭ মার্চ ১৯০৩ ব্রিটিশ ভারতের আসামের জোড়াহাটে জন্মগ্রহণ করেন।[১] তিনি আসামের প্রথম মুসলিম আইসিএস অফিসার আবদুল মজিদের ছেলে। তিনি আসামের গুয়াহাটির কটন কলেজে স্নাতকোত্তর শেষ করেন। ২ ফেব্রুয়ারি ১৯২২ সালের তিনি রয়্যাল মিলিটারি কলেজ, সানহার্ডসে যোগ দেন। তিনিই প্রথম বাংলাভাষী মুসলিম ছিলেন যিনি সানহর্স্ট থেকে স্নাতক হন।

সামরিক জীবন (ভারতীয় সেনা)[সম্পাদনা]

মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯২২ সালে রয়্যাল মিলিটারি কলেজে সানহর্স্টে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি ২৭ আগস্ট ১৯২৪ সালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর আনট্যাচড তালিকায় কমিশন লাভ করেন। কমিশনের পরে তিনি এক বছরের জন্য ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর লিংকনশায়ার রেজিমেন্টের দ্বিতীয় ব্যাটালিয়নের সাথে যুক্ত ছিলেন। ৩১ অক্টোবর ১৯২৫ সালে তিনি ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মিতে স্বীকৃত হন এবং চতুর্থ ব্যাটালিয়ন ১৯ তম হায়দরাবাদ রেজিমেন্টে নিয়োগ পান। ২৭ নভেম্বর ১৯২৬ সালে তিনি লেফটেন্যান্ট পদে পদোন্নতি পেয়েছিলেন। ২৭ আগস্ট ১৯৩৩ সালে ক্যাপ্টেন, ১ ডিসেম্বর ১৯৪১ সালে মেজর। আসাম রেজিমেন্টের হয়ে তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় বার্মা ও ব্রিটিশ মালয়েয়ায় দায়িত্ব পালন করেন। [১]

সামরিক জীবন (পাকিস্তান সেনাবাহিনী)[সম্পাদনা]

১৯৪৭ সালে মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে তাকে মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়। [২] তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ৯ ডিভিশনের জিওসি হন। তিনি আইয়ুব খানের সিনিয়র ছিলেন কিন্তু আইয়ুব খান এইচএম বাইপাস করে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সর্বাধিনায়ক হয়েছিলেন। রাওয়ালপিন্ডি ষড়যন্ত্রে তার নাম উঠলেও পরে তিনি নির্দোষ প্রমাণিত হন। [১]

বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

১৯৬২ সালে তিনি পূর্ব পাকিস্তানে ফিরে আসেন। মেজর জেনারেল মুহাম্মদ ইশফাকুল মজিদ এবং কর্নেল এমএজি ওসমানী মার্চ ১৯৭১ সালে অবসরপ্রাপ্ত বাঙালি সৈন্যদের পক্ষে শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে সাক্ষাত করেছিলেন এবং একটি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতি তাদের আনুগত্য দেখিয়েছিলেন। পরে তাকে পাকিস্তান সেনাবাহিনী গ্রেপ্তার করে। তাকে হেফাজতে নির্যাতন করা হয়েছিল। [১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তিনি ৩১ মার্চ ১৯৭৬ সালের ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান। [১][৩]

সোর্স[সম্পাদনা]

  • লেঃ কর্নেল লুৎফুল হক (অবসরপ্রাপ্ত), বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা জার্নাল "ফার্স্ট বেঙ্গলি জেনারেল ইশফাকুল মজিদ", বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা জার্নাল, সংখ্যা ৩৫, ফেব্রুয়ারি ২০১১
  • লন্ডন গেজেট (বিভিন্ন তারিখ)
  • ভারতীয় সেনা তালিকা (বিভিন্ন তারিখ)
  • আসাম রেজিমেন্টের প্রথম খণ্ডের ইতিহাস (ক্যাপ্টেন পিটার স্টেইন)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Mazid, Mohammad Ishfaqul"Banglapedia। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-১৩ 
  2. Shah, Sabir। "Appointments of Pakistan Army commanders and historic facts"thenews.com.pk। The News International। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুন ২০১৫ 
  3. <http://www.amadershomoy2.com/content/2013/03/31/middle0272.htm ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে>