মানকচু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

Alocasia macrorrhizos
AlocasiaMacrorrhizaFlower.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Plantae
বিভাগ: Tracheophyta
শ্রেণী: Liliopsida
বর্গ: Alismatales
পরিবার: Araceae
গণ: Alocasia
প্রজাতি: A. macrorrhizos
দ্বিপদী নাম
Alocasia macrorrhizos
(L.) G.Don[১]
প্রতিশব্দ[১]


মানকচু বাঁটা

মানকচু (বৈজ্ঞানিক নাম: Alocasia macrorrhizos) অরাম পরিবারের (Araceae) একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ প্রজাতি। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, নিউ গিনি এবং কুইন্সল্যান্ডের বৃষ্টিবন মানকচুর আদি জন্মস্থান। এটি দীর্ঘকাল ধরে ফিলিপাইন, বিভিন্ন প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ এবং অন্যান্য গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলে চাষ করা হচ্ছে।

বাংলায় এটি মানকচু নামেই বহুল পরিচিত। তবে অঞ্চলভেদে অন্যান্য নামও পাওয়া যায়। যেমন উত্তরবঙ্গে এটি ফ্যানকচু নামে পরিচিত। ইংরেজিতে মানকচু দানব কচু (Giant Taro)[২] , দানব অ্যালোকাসিয়া (Giant Alocasia) নামে পরিচিত এবং অস্ট্রেলিয়ায় 'cunjevoi'[৩] নামে পরিচিত (একই শব্দ সামুদ্রিক প্রাণীকেও বোঝায়)।


উৎপত্তি[সম্পাদনা]

Giant taro in Jinguashi, Taiwan

মানকচু মূলত ফিলিপাইনে চাষোপযোগী করা হয়, তবে তাইওয়ানের বুনো জাত থেকেই আদি অস্ট্রোনেশীয়রা মানকচুর সাথে পরিচিত হয়। ফিলিপাইন থেকে এটি দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বাকী অংশ এবং পূর্ব দিকে ওশেনিয়া পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। এর ফলে এটি প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জের প্রধান ফসলে পরিণত হয়।[৪] [৫] অস্ট্রোনেশীয়রা শর্করা উত্স হিসাবে যে চারটি প্রধান কচুর প্রজাতি চাষ করে তার মধ্যে মানকচু একটি। অন্যগুলো হলো Amorphophallus paeoniifolius, Colocasia esculenta এবং Cyrtosperma merkusii। প্রতিটির একাধিক চাষের জাত রয়েছে। এগুলির পাতা এবং ডাঁটা ভালভাবে রান্না করা হলে খাওয়া যায়, যদিও পুরো মানকচুর কম অংশই খাওয়া হয় কেননা এতে প্রচুর পরিমাণে রাইফাইড (Raphide) রয়েছে যা গলা চুলকানির কারণ হয়ে থাকে।[৬][৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Alocasia macrorrhizos"World Checklist of Selected Plant FamiliesRoyal Botanic Gardens, Kew। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৯-৩০ 
  2. "Alocasia macrorrhizos" (ইংরেজি ভাষায়)। ন্যাচারাল রিসোর্সেস কনসারভেশন সার্ভিস প্ল্যান্টস ডেটাবেস। ইউএসডিএ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৯-৩০ 
  3. "Alocasia macrorrhizos"জার্মপ্লাজম রিসোর্স ইনফরমেশন নেটওয়ার্ক (জিআরআইএন)কৃষি গবেষণা পরিসেবা (এআরএস), মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ)। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-২৩ 
  4. Osmond, Meredith (১৯৯৮)। "Horticultural practices" (PDF)। Ross, Malcolm; Pawley, Andrew; Osmond, Meredith। The lexicon of Proto Oceanic : The culture and environment of ancestral Oceanic society। Vol. 1: Material Culture। Pacific Linguistics। পৃষ্ঠা 115–142। ডিওআই:10.15144/PL-C152.115 
  5. Nauheimer, Lars; Boyce, Peter C.; Renner, Susanne S. (এপ্রিল ২০১২)। "Giant taro and its relatives: A phylogeny of the large genus Alocasia (Araceae) sheds light on Miocene floristic exchange in the Malesian region"Molecular Phylogenetics and Evolution63 (1): 43–51। ডিওআই:10.1016/j.ympev.2011.12.011পিএমআইডি 22209857 
  6. Manner, Harley I. (২০০৬)। "Farm and Forestry Production Marketing Profile for Giant Tao (Alocasia macrorrhiza)" (PDF)। Elevitch, Craig R.। Specialty Crops for Pacific Island Agroforestry। Permanent Agricultural Resource (PAR)। 
  7. Matthews, Peter J. (১৯৯৫)। "Aroids and the Austronesians"Tropics4 (2/3): 105–126। ডিওআই:10.3759/tropics.4.105অবাধে প্রবেশযোগ্য 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে Alocasia macrorrhizos সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন