ভুটানের জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মানচিত্রে ভুটানের জেলা

ভুটান ২০টি জেলায় (জংখা ভাষায়: dzongkhags, জংখাগ) বিভক্ত। ভুটান চীন এবং ভারতের তিব্বত স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের মাঝখানে দক্ষিণ এশিয়ায় হিমালয় পর্বতমালার পূর্বাংশে অবস্থিত।[১] জংখাগ বা জেলা ভুটানের প্রশাসনিক ব্যবস্থায় একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তর। জংখাগগুলো ভুটানের সংবিধানের অধীনে অনেকগুলো ক্ষমতা এবং অধিকারের অধিকারী, যেমন বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ, নির্বাচন পরিচালনা এবং স্থানীয় সরকার গঠন। স্থানীয় সরকার আইন, ২০০৯ অনুসারে ভুটানের স্বরাষ্ট্র ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ২০টি জংখাগের প্রত্যেকটিতে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠা করেছে। প্রতিটি জংখাগের নিজস্ব নির্বাচিত সরকার রয়েছে যা অ-আইনসভার কার্যনির্বাহী ক্ষমতা সম্পন্ন করে, তাকে বলা হয় জংখাগ তশোগদু (জেলা পরিষদ)। জংখাগ তুশোগদু একজন জংড্যাগের (রাজকীয় নিয়োগকারী যারা প্রতিটি জংখাগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা) নেতৃত্বে জংখাগ প্রশাসনকে সহায়তা করে। প্রত্যেক জংখাগে একটি জংখাগ আদালত রয়েছে যার সভাপতিত্ব করেন জংখাগ দ্রাংপন (বিচারক), যিনি রয়েল জুডিশিয়াল সার্ভিস কাউন্সিলের পরামর্শে ভুটানের প্রধান বিচারপতি কর্তৃক নিযুক্ত হন। জাতীয় কাউন্সিল এবং জাতীয় পরিষদের সমন্বয়ে গঠিত দ্বিকক্ষীয় আইনসভা ভুটানের সংসদে জংখাগগুলো এবং তাদের বাসিন্দারা প্রতিনিধিত্ব করে। প্রতিটি জংখাগে একজন করে জাতীয় কাউন্সিলের প্রতিনিধি রয়েছে। জাতীয় পরিষদের প্রতিনিধিদের সীমানা কমিশনের সুপারিশ অনুসারে তাদের নিবন্ধিত ভোটার সংখ্যার অনুপাতে জংখাগুলোর মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে, তবে শর্ত থাকে যে "কোনও জংখাগে জাতীয় সংসদের আসন দুইটির চেয়ে কম এবং সাতটির চেয়ে বেশি হবে না।"

২০১৭ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী, থিম্পু হল সর্বাধিক জনবহুল জংখাগ, যার বাসিন্দা হল ১৩৮,৭৩৬ জন; গাসা সবচেয়ে কম জনবহুল, যার বাসিন্দা হল ৩,৯৫২ জন। থিম্ফু সর্বাধিক ঘনবসতিপুর্ণ জংখাগ, এর প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৬৭.১ জন (প্রতি বর্গমাইলে ১৭৪ জন) মানুষ বসবাস করে। অপরদিকে খাসা হল সবচেয়ে কম ঘনবসতিপূর্ণ জংখাগ, এর প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১.৩ জন ( প্রতি বর্গমাইলে ৩.৪ জন) মানুষ বসবাস করে। আয়তনে বৃহত্তম জংখাগ হল ওয়াংডু ফোদ্রাং, যার আয়তন ৪,৩০৮ বর্গকিলোমিটার (১,৬৬৩ বর্গমাইল), এবং সবচেয়ে ছোট তিশিরং, আয়তন ৬৩৯ বর্গকিলোমিটার (২৪৭ বর্গমাইল)।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জেলা/জংখাগ[সম্পাদনা]

নাম জনসংখ্যা
(২০১৭)[ক][২]
জনসংখ্যা
(২০০৫)[৩][২]
পরিবর্তন আয়তন (কিঃমিঃ)[২] জনসংখ্যার ঘনত্ব[২] জাতীয় সংসদের
আসন সংখ্যা[খ][৪]
বুমথাং ১৭,৮২০ ১৬,১১৬ +১০.৬% ২,৭১৭ ৬.৬/কিমি
চুখা ৬৮,৯৬৬ ৭৪,৩৮৭ −৭.৩% ১,৮৮০ ৩৬.৭/কিমি
দাগানা ২৪,৯৬৫ ১৮,২২২ +৩৭.০% ১,৭২৩ ১৪.৫/কিমি
গাসা ৩,৯৫২ ৩,১১৬ +২৬.৮% ৩,১১৮ ১.৩/কিমি
হা ১৩,৬৫৫ ১১,৬৪৮ +১৭.২% ১,৯০৫ ৭.২/কিমি
হুয়েন্তসে ১৪,৪৩৭ ১৫,৩৯৫ −৬.২% ১,৯৪৪ ৭.৪/কিমি
মোঙ্গার ৩৭,১৫০ ৩৭,০৬৯ +০.২% ২,৮৫৯ ১৩.০/কিমি
পারো ৪৬,৩১৬ ৩৬,৪৩৩ +২৭.১% ১,২৯৩ ৩৫.৮/কিমি
পেমাগাতশেল ২৩,৬৩২ ১৩,৮৬৪ +৭০.৫% ১,০৩০ ২২.৯/কিমি
পুনাখা ২৮,৭৪০ ১৭,৭১৫ +৬২.২% ১,১১০ ২৫.৯/কিমি
সামদ্রুপ জোংখার ৩৫,০৭৯ ৩৯,৯৬১ −১২.২% ১,৮৭৮ ১৮.৭/কিমি
সামৎসে ৬২,৫৯০ ৬০,১০০ +৪.১% ১,৩০৫ ৪৮.০/কিমি
সার্পাং ৪৬,০০৪ ৪১,৫৪৯ +১০.৭% ১,৯৪৬ ২৩.৬/কিমি
থিম্ফু ১,৩৮,৭৩৬ ৯৮,৬৭৬ +৪০.৬% ২,০৬৭ ৬৭.১/কিমি
ট্রাশিগাং ৪৫,৫১৮ ৫১,১৩৪ −১১.০% ৩,০৬৬ ১৪.৮/কিমি
ট্রাশি ইয়াংতসে ১৭,৩০০ ১৭,৭৪০ −২.৫% ১,৪৩৮ ১২.০/কিমি
ত্রোংসা ১৯,৯৬০ ১৩,৪১৯ +৪৮.৭% ১,৮০৭ ১১.০/কিমি
তসিরাং ২২,৩৭৬ ১৮,৬৬৭ +১৯.৯% ৬৩৯ ৩৫.০/কিমি
ওয়াংদুয়ে ফোদ্রাং ৪২,১৮৬ ৩১,১৩৫ +৩৫.৫% ৪,৩০৮ ৯.৮/কিমি
ঝেমগাং ১৭,৭৬৩ ১৮,৬৩৬ −৪.৭% ২,৪২১ ৭.৩/কিমি
ভুটান ৭,২৭,১৪৫ ৬,৩৪,৯৮২ +১৪.৫% ৩৮,৩৯৪ ১৮.৯/কিমি ৪৭

টীকা[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. সমস্ত তথ্য ভুটানের ২০১৭ সালের জনসংখ্যা ও আবাসন আদমশুমারি থেকে নেওয়া হয়েছে।
  2. প্রতিটি জংখাগে কমপক্ষে দুটি, তবে সর্বোচ্চ সাতটি জাতীয় সংসদের আসন থাকতে পারবে। বর্তমানে জাতীয় সংসদ এলাকার সংখ্যা ৪৭টি। প্রতিটি জংখাগে একটি করে জাতীয় পরিষদ নির্বাচনী এলাকার অধিকারী।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Geography of Bhutan"। Government of Bhutan। ২০১২-০৪-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "Population and Housing Census of 2017 (National Report)" (PDF)। জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো। ২০১৮-০৬-২৬। পৃষ্ঠা 102। ২০১৯-০২-২৮ তারিখে মূল (pdf) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩১ 
  3. "Results of the 2005 Population and Housing Census of Bhutan" (PDF)। জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো। ২০১৯-০৬-০৫ তারিখে মূল (pdf) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৯ 
  4. "Constituency List"। National Assembly of Bhutan। ২০১৯-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]