ব্রুস বোল্টন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ব্রুস বোল্টন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামব্রুস আলফ্রেড বোল্টন
জন্ম (1935-05-21) ২১ মে ১৯৩৫ (বয়স ৮৬)
ক্রাইস্টচার্চ, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৮৫)
২৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৯ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৪ মার্চ ১৯৫৯ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৬১
রানের সংখ্যা ৫৯ ২০৯২
ব্যাটিং গড় ১৯.৬৬ ২০.৩১
১০০/৫০ ০/০ ১/৬
সর্বোচ্চ রান ৩৩ ১৩৮
বল করেছে - ৫২৫৩
উইকেট - ৯৬
বোলিং গড় - ২২.৩৩
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং - ৭/২৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ২৪/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০

ব্রুস আলফ্রেড বোল্টন (ইংরেজি: Bruce Bolton; জন্ম: ৩১ মে, ১৯৩৫) ক্যান্টারবারির ক্রাইস্টচার্চ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৫০-এর দশকের শেষদিকে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে ক্যান্টারবারি ও ওয়েলিংটন দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন ব্রুস বোল্টন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৫৫-৫৬ মৌসুম থেকে ১৯৭০-৭১ মৌসুম পর্যন্ত ব্রুস বোল্টনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ব্রুস বোল্টন ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, কার্যকরী লেগ-স্পিন বোলার ছিলেন। প্রায় ১০ বছর নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেট আসরে ক্যান্টারবারির পক্ষে খেলেন। এক বছর বিরতি নেয়ার পর ওয়েলিংটনের পক্ষে আরও পাঁচ মৌসুম খেলেন তিনি।

১৯৫৮ সাল পর্যন্ত প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ব্রুস বোল্টনের আশানুরূপ ব্যাটিং রেকর্ড ছিল না। তবে, ১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে ক্যান্টারবারির পক্ষে প্লাঙ্কেট শীল্ডের প্রথম দুই খেলায় তিনি ৭৯, ২৮, ৭৪ ও ৪৯ রান সংগ্রহ করেন। তন্মধ্যে, তিনবার ক্যান্টারবারির সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হন।[১][২]

১৯৫৯-৬০ মৌসুমে নিজস্ব একমাত্র প্রথম-শ্রেণীর শতরানের সন্ধান পান। নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টসের বিপক্ষে ১৩৮ রান তুলেন তিনি। উদ্বোধনী জুটিতে ভবিষ্যতের নিউজিল্যান্ডীয় টেস্ট অধিনায়ক গ্রাহাম ডাউলিংয়ের সাথে ২১৪ রানের জুটি গড়েন।[৩] দুই মৌসুম বাদে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান। ১৯৬১-৬২ মৌসুমে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের বিপক্ষে ৭/২৩ লাভ করেন তিনি।[৪] তবে, সবগুলো খেলায় অংশ নিয়ে সবমিলিয়ে ঐ মৌসুমে তিনি কেবলমাত্র আট উইকেট পেয়েছিলেন।

ওয়েলিংটনের পক্ষে শেষের দিকের খেলোয়াড়ী জীবনে নিচেরসারিতে ব্যাটিংয়ে নামতেন। তন্মধ্যে, ১৯৬৯-৭০ মৌসুমে দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ব্রুস বোল্টন। সবগুলো টেস্টই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ২৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৯ তারিখে ক্রাইস্টচার্চে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ১৪ মার্চ, ১৯৫৯ তারিখে অকল্যান্ডে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৫৮-৫৯ মৌসুমের শেষদিকে সফররত ইংরেজ দলের বিপক্ষে দুই টেস্ট খেলার জন্যে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। প্রথম খেলায় নিউজিল্যান্ড দল ইনিংস ব্যবধানে পরাভূত হয়। তবে, বোল্টন ভালো খেলেছিলেন। প্রথম ইনিংসে ৩৩ রান তুলেন। এ পর্যায়ে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে বিদেয় নেয়ার পূর্বে তিন ঘণ্টার অধিক সময় ক্রিজে অবস্থান করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি ২৬ রান সংগ্রহ করেন। দ্বিতীয় টেস্টে তিনি শূন্য রানে রান আউটের শিকার হন। তবে, দুই দিন পর থেকে বৃষ্টির কারণে খেলাটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়। অংশগ্রহণকৃত দুই টেস্টের কোনটিতেই তাকে বোলিংয়ের আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Otago v Canterbury 1958-59"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৭ 
  2. "Canterbury v Wellington 1958-59"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৭ 
  3. "Canterbury v Northern Districts 1959-60"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৭ 
  4. "Central Districts v Canterbury 1961-62"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৭ 
  5. Wisden 1960, pp. 847–51.

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]