ব্যর্থ রাষ্ট্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

ব্যর্থ রাষ্ট্র বলতে এমন একপর্যায়ের দেশ বোঝায় যেখানে সরকার ও সমাজ রাষ্ট্র গঠনের মৌলিক দাবী পূরণে ব্যর্থ হয়েছে। একবিংশ দশকের শুরুতে পাকিস্তান ইত্যাদি রাষ্ট্রের ক্ষেত্রে পশ্চিমের উন্নতদেশগুলো তকমা ব্যবহার করতে শুরু করে। এরূপ রাষ্ট্রের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে উত্তর-ঔপনিবেশিককালে বিভিন্ন দাতাগোষ্ঠী কর্তৃক অর্থনৈতিক সাহায্য, ত্রাণ ইত্যাদি পাওয়াসত্ত্বেয় নিজস্ব অর্থনৈতিক ভঙ্গুর অবস্থা, জি.ডি.পি., জীবনযাত্রার মান ও সামাজিক মর্যাদা পাল্টাতে পারেনি ও রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে যেখানে উল্লেখযোগ্য হারে উন্নয়ন সাধিত হয় না এবং গণতন্ত্র, মানবাধিকার ইত্যাদি বিলুপ্তপ্রায়। আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ইরাক, সোমালিয়া, নাইজেরিয়াসহ মূলত মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়া, আফ্রিকার এবং মধ্য এশিয়ার কতিপয় দেশসমূহ ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত। তাছাড়ও ১৯৭০-৮০'র দশকের লেবানন,কঙ্গো, কলম্বিয়া প্রভৃতি দেশগুলোও ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত।

ব্যর্থ রাষ্ট্রসমূহ কর্তৃক সৃষ্ট সমস্যাবলী:

  • সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমকে সমর্থন প্রদান
  • সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দান
  • গণতন্ত্র ধ্বংসের কারণ
  • মানবাধিকার লঙ্ঘন
  • মাদক ব্যবসাকে প্রশ্রয় দান

উল্লিখিত সমস্যাগুলো দমনের উদ্দেশ্যে কিংবা অজুহাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরাকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে। গবেষকদের ধারণা ভবিষ্যতেও এরকম যুদ্ধ সংঘটিত হতে পারে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]