"পাখি পরিযান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
→‎রোগের বিস্তার: তথ্য সংযোজন
(→‎রোগের বিস্তার: বানান ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
(→‎রোগের বিস্তার: তথ্য সংযোজন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
== রোগের বিস্তার ==
[[চিত্র:Aythya-fuligula Tufted-Duck.jpg|thumb|[[কালো হাঁস]]]]
পরিযায়ী পাখিরা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে বিপজ্জনক রোগের জীবাণু বহন করার জন্য অনেকাংশে দায়ী। এ পাখিরা বহু বছর ধরে নির্দিষ্ট কিছু জীবাণু বহন করে বলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঐ জীবাণুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা অর্জন করে। ফলে এরা অনেকটা ঐ জীবাণুর বাহক হিসেবে কাজ করে এবং অন্যত্র জীবাণু ছড়িয়ে দেয়। প্রতিরোধ ক্ষমতাহীন কোনো প্রজাতি পরিযায়ী প্রজাতির সংস্পর্শে আসলে সাথে সাথে আক্রান্ত হয়। [[পশ্চিম নীল ভাইরাস]] (West Nile Virus) এবং [[এভিয়ান ইন্ফ্লুয়েঞ্জাইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস]] (যার জন্য [[বার্ড ফ্লু]] রোগ হয়) এমনই দু’টি জীবাণু।<ref name="Migration and the spread of disease">[http://www.birds.cornell.edu/AllAboutBirds/studying/migration/disease], ''Migration and the spread of disease'', All about birds.</ref>
সিট্টাকোসিস (Psittacosis) পরিযায়ী পাখিবাহিত একটি রোগ।<ref name="Migration and the spread of disease">[http://www.birds.cornell.edu/AllAboutBirds/studying/migration/disease], ''Migration and the spread of disease'', All about birds.</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|শিরোনাম=সাক্ষাৎকার: প্রফেসর কাজী জাকের হোসেন|ইউআরএল=http://www.naturestudysociety.org/%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%9C%E0%A7%80-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%B0/|কর্ম=নেচার স্টাডি সোসাইটি অফ বাংলাদেশ}}
</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
১,৪১৮টি

সম্পাদনা

পরিভ্রমণ বাছাইতালিকা