বিনোদন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বিনোদন এমন এক ধরনের কাজ যা দর্শক বা শ্রোতার আকর্ষণ বা আগ্রহের বিষয় এবং যা তাদের আনন্দ প্রদান করে। বিনোদন কোন ধারণা বা কাজ হতে পারে কিন্তু হাজার বছর ধরে দর্শক বা শ্রোতা আগ্রহ ধরে রেখেছে এমন কাজ হতে হবে। যদিও মানুষের বিভিন্ন বিষয়ে আগ্রহ থাকে, কারণ বিনোদনে মানুষের ভিন্ন ভিন্ন পছন্দ থাকে, এবং বেশির ভাগই স্বীকৃত ও পরিচিত। সংস্কৃতিতে গল্পবলা, সঙ্গীত, নাটক, নৃত্য, ও বিভিন্ন ধরনের প্রদর্শন কলা বিদ্যমান। এসব বিনোদনের রূপ সময়ের সাথে সাথে আধুনিকীকরণ হয়েছে। বিনোদন শিল্প গড়ে ওঠার সাথে সাথে এই আধুনিকীকরণ পদ্ধতি তরান্বিত হয়েছে।

মনোবিজ্ঞান ও দর্শন[সম্পাদনা]

বিনোদন শিক্ষা ও বিপণন থেকে ভিন্ন যদিও বিনোদনের লক্ষ্য অর্জনের জন্য কিভাবে বিনোদনের আবেদন ব্যবহার করতে হয় তা শিখা প্রয়োজন। পণ্ডিতগণ বিনোদনের গুরুত্ব ও প্রভাব অনুধাবন করেছেন[১][২] এবং এর আধুনিকীকরণের প্রভাব কলাবিদ্যার অন্য ক্ষেত্রেও রয়েছে।[৩][৪]

কোন নির্দিষ্ট বিনোদনে তখনই দর্শক সন্তুষ্টি অর্জন করে এবং তাদের দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টায় যখন তা মানুষের মনে "জীবনের অর্থ কি?", "মানুষ হওয়ার অর্থ কি?", "কোনটা সঠিক কাজ?" বা "আমি কি জানি তা কিভাবে জানি" এ ধরনের সার্বজনীন দর্শনতাত্ত্বিক প্রশ্ন ঢুকিয়ে দেয়। এই প্রশ্নসমূহ গল্প, চলচ্চিত্র, নাটক, কবিতা, বই, নৃত্য, কমিক, বা গেম আকারে উপস্থাপিত হয়। নাটকের উদাহরণ হল উইলিয়াম শেকসপিয়র এর নাটক হ্যামলেট, যেখানে কেন্দ্রীয় চরিত্র কাব্যের মাধ্যমে এই বিষয়সমূহ উপলব্ধি করে; চলচ্চিত্র, যেমন দ্য ম্যাট্রিক্স-এ জ্ঞানের প্রকৃতি খুঁজে বের করা হয়[৫] এবং বিশ্বব্যাপী মুক্তি দেওয়া হয়।[৬] উপন্যাস এই বিষয় সম্পর্কে অনুসন্ধান করার সুযোগ প্রদানের পাশাপাশি পাঠকদের বিনোদন দান করে।[৭] দর্শনতাত্ত্বিক প্রশ্নসমূহ বিনোদনের মাধ্যমে বিভিন্ন রকম ভাবে উপস্থাপন করেছে এমন একটি সৃজনশীল কাজ হল দ্য হিচিকার্‌স গাইড টু দ্য গ্যালাক্সি। প্রকৃতপক্ষে এটি একটি রেডিও কমেডি, গল্পটি এত জনপ্রিয় হয়েছিল যে পরে এই গল্প উপন্যাস, চলচ্চিত্র, টেলিভিশন সিরিজ, মঞ্চ নাটক, কমিক, অডিও বই, এলপি রেকর্ড, রোমাঞ্চকর গেমঅনলাইন গেম এ গৃহীত হয়, কিছু ধারণা বাগধারা (দ্য হিচিকার্‌স গাইড টু দ্য গ্যালাক্সির বাগধারা) হিসেবে ব্যবহৃত হয় এবং বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হতে থাকে।[৮] এর মূল বিষয়বস্তু হল জীবনের অর্থ, এবং "বিনোদনে মূল্যবোধ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, একাধিক শব্দ, স্রষ্টা, ও দর্শনতাত্ত্বিক পদ্ধতি".[৯]

রূপ[সম্পাদনা]

কৌতুকাভিনয়[সম্পাদনা]

কৌতুকাভিনয় বিনোদনের ধরন ও উপাদান উভয়ই। এটি হাসি এবং পরিতৃপ্তি প্রদান করে। কৌতুকাভিনয় সাহিত্য, থিয়েটার, অপেরা, চলচ্চিত্র ও গেমসহ বিনোদনের বিভিন্ন রূপের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। রাজদরবারে, যেমন বাইজেন্টাইন কোর্টে এবং বিত্তশালী বাড়িতে, মুখাভিনয় হিউমারের কেন্দ্রবিন্দু ছিল এবং শুধুমাত্র সম্রাট বা রাজকীয় পরিবারের সদস্যই নয় বরং রাজদরবারের সকলেই এতে আনন্দ পেত। মধ্যযুগীয় সময়ে, সকল কৌতুকাভিনয়ের ধরন, যেমন ভাঁড়, বিদূষক, কুঁজো, বামন, কৌতুকাভিনেতাদের "বোকা" ধরনে ফেলা হত, যারা সবসময় হাস্যকর হত তা নয়, তবে তারা মানুষের ক্রটি-বিচ্যুতিসমূহ তুলে ধরত।[১০][১১]

ক্রীড়া[সম্পাদনা]

ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সবসময় জনগণকে বিনোদন প্রদান করেছে। খেলোয়াড়দের থেকে দর্শকদের পৃথক করতে স্টেডিয়াম ও অডিটরিয়াম তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া রেকর্ডিং ও সম্প্রচারের প্রযুক্তি খেলার স্থান থেকে দূরের দর্শকদেরও খেলা দেখার সুযোগ করে দিয়েছে। ফলে দর্শকের পরিমাণ পূর্বের থেকে বেড়েছে এবং এই ধরনের খেলাধুলা আরও জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বৈশ্বিক আবেদেওনের প্রেক্ষিতে ফুটবল ও ক্রিকেট বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় দুটি খেলা। এই দুই খেলার প্রধান আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা বিশ্বকাপ এবং টেস্ট ক্রিকেট পৃথিবীর বহু দেশে সম্প্রচারিত হয়। খেলার সাথে জড়িতরা বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের কাছে তাদের বিনোদনের প্রধান উৎস হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ।[১২] এই দুই খেলার সাথে তুলনীয় এবং ক্রীড়ার দীর্ঘ রূপ ট্যুর ডি ফ্রান্স বৈশ্বিক আবেদন লাভ করেছে। খেলাটি বিশেষ কোন স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত না হয়ে স্টেডিয়ামের বাইরে কোন গ্রামাঞ্চলে অনুষ্ঠিত হয়।[১৩]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

সঙ্গীত অনেক ধরনের বিনোদন, বিশেষ করে প্রদর্শন কলার সহকারী উপাদান হিসেবে কাজ করে। উদাহরণস্বরূপ, সঙ্গীত গল্পবলাকে ত্বরান্বিত করে, নাচ ও অপেরার অপরিহার্য অংশ, এবং নাট্যধর্মী চলচ্চিত্র বা থিয়েটারে ব্যবহৃত হয়।[১৪]

সঙ্গীত বিনোদনের সার্বজনীন ও জনপ্রিয় ধরন। তাল, যন্ত্র, উপস্থাপন এবং শৈলী অনুযায়ী গানকে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয়, যেমন ধ্রুপদী, জ্যাজ, লোক, রক, পপ, বা ঐতিহ্যবাহী। ২০শ শতাব্দী থেকে বিনোদন শিল্পের কল্যাণে একবার উপস্থাপিত বা প্রদর্শিত সঙ্গীত ধারণ করে বা সম্প্রচার করে সকলের কাছে স্বল্প ব্যয়ে পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bryant, Jennings; Vorderer, Peter (২০০৬)। Psychology of Entertainment। Mahwah, New Jersey: Lawrence Erlbaum Associates, Inc। পৃ: 367–434। আইএসবিএন 0-8058-5238-7 
  2. Sayre, Shay; King, Cynthia (২০১০)। Entertainment and Society: Influences, Impacts, and Innovations (Google eBook) (2nd সংস্করণ)। Oxon, New York: Routledge। আইএসবিএন 0-415-99806-9  p. 22.
  3. Frost, Warwick, সম্পাদক (২০১১)। Conservation, Education, Entertainment?। Channel View Publication। আইএসবিএন 978-1-84541-164-0 
  4. Macleod, Suzanne; Watson, Sheila (২০০৭)। Knell, Simon J., সম্পাদক। Museum Revolutions। Oxon, New York: Routledge। আইএসবিএন 0-203-93264-1 
  5. Irwin, William, সম্পাদক (২০০২)। The Matrix and Philosophy। Peru, Illinois: Carus Publishing Company। পৃ: ১৯৬। আইএসবিএন 0-8126-9502-X 
  6. IMDb The Matrix worldwide release dates
  7. Jones, Peter (১৯৭৫)। Philosophy and the Novel। Oxford, Clarendon। 
  8. Simpson, M. J. (২০০৫)। The Pocket Essential Hitchhiker's Guide (2nd সংস্করণ)। Pocket Essentials। পৃ: ১২০। আইএসবিএন 1-904048-46-3 
  9. Joll, Nicholas, সম্পাদক (২০১২)। Philosophy and The Hitchhiker's Guide to the Galaxy। Houndmills, Basingstoke, Hampshire; New York: Palgrave Macmillan। আইএসবিএন 978-0-230-29112-6 
  10. Hokenson, Jan Walsh (২০০৬)। The Idea of Comedy: History, Theory, Critique। Cranbury, New Jersey: Rosemont Publishing and Printing Corp। পৃ: 150–1। আইএসবিএন 0-8386-4096-6 
  11. Hornback, Robert (২০০৯)। The English clown tradition from the middle ages to Shakespeare। Woodbridge Suffolk, Rochester, New York: D.S. Brewer। আইএসবিএন 978-1-84384-200-2 
  12. Hardy, Stephen; Sutton, William Anthony (২০০৭)। Mullin, Bernard James, সম্পাদক। Sport Marketing। Human Kinetics। আইএসবিএন 978-0-7360-6052-3 
  13. Thompson, Christopher S. (২০০৮)। The Tour de France: A Cultural History। Berkeley, Los Angeles, London: University of California Press। আইএসবিএন 978-0-520-25630-9 
  14. Griffiths, Paul (২০০৬)। A concise history of western music। New York: Cambridge University Press। আইএসবিএন 978-0-521-84294-5