বরখান জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বরখান
Barkhan

بارکھان
تحصیل
জেলা / তেহসিল
বরখান Barkhan পাকিস্তান-এ অবস্থিত
বরখান Barkhan
বরখান
Barkhan
পাকিস্তানে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৯°৩২′ উত্তর ৬৯°১৯′ পূর্ব / ২৯.৫৪° উত্তর ৬৯.৩১° পূর্ব / 29.54; 69.31স্থানাঙ্ক: ২৯°৩২′ উত্তর ৬৯°১৯′ পূর্ব / ২৯.৫৪° উত্তর ৬৯.৩১° পূর্ব / 29.54; 69.31
দেশ পাকিস্তান
প্রদেশবেলুচিস্তান
জেলা অবস্থা৩১ ডিসেম্বর, ১৯৯১
সরকার
 • ধরনপ্রশাসনিক
 • MPA / Tribe Leaderসরদার আবদুর রেহমান খেতরান[১]
 • জেলা সমন্বয় অফিসারমেহবুব শাহওয়ানি
 • নগরপাল[২]ওয়াদিরা আমির মুহাম্মদ
আয়তন[৩]
 • মোট৩৫১৪ কিমি (১৩১৬ বর্গমাইল)
উচ্চতা১০৯৮ মিটার (৩৬০২ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১৭)[৪]
 • মোট১,৭১,৫৫৬
 • জনঘনত্ব৪৯/কিমি (১৩০/বর্গমাইল)
বিশেষণKhetran {
সময় অঞ্চলপিকেটি (ইউটিসি+5)
পোস্টাল কোড৮৪৪০০
ডায়াল কোড0829[৫]

বরখান (উর্দু: بارکھان‎‎, এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ  হচ্ছে পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের একটি জেলা। এটি পাঞ্জাব প্রদেশের পূর্ব সীমারেখা সাথে সংযুক্ত হয়েছে এবং দক্ষিণে ডেরা বুগতির বেলুচিস্তান জেলা, পশ্চিমে কোহলু জেলা, উত্তর-পশ্চিমে লররেঈ জেলা, এবং উত্তরে মুসাখেল জেলা অবস্থিত। জেলাটির প্রধান সদর দপ্তর বরখান শহর। ১৯৯১ সালের ৩১ ডিসেম্বর একটি পৃথক জেলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে, যা পূর্বে লররেঈ জেলার অন্তর্ভূক্ত একটি তহসিল ছিল।[৬]

এক নজরে বরখান[সম্পাদনা]

বিশেষ গুণাবলী ঘটনা এবং পরিসংখ্যান
জেলার অবস্থা ৩১ ডিসেম্বর ১৯৯১
ভৌগলিক অবস্থান ৩,৪১০ বর্গ কিলোমিটার (১৯৯৮ সালের আদমশুমারি অনুয়ায়ী)
ভৌগোলিক পয়েন্ট ৬৯°৩'-৭০° ৪' পূর্ব দ্রাঘিমাংশ এবং ২৯°৩৭'-৩০°২১' উত্তর অক্ষাংশ
প্রশাসনিক একক মোট একটি তহসিল এবং আটটি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে (এলজি বেলুচিস্তান)
প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন করম খান বিজরানী মেরি ময়দর দুর্গ, ডাইনোসর জীবাশ্ম
মঠ পীর শাহ মেহমুদ, বাবা আখন্দ, দাদা জোউন্দ
প্রধান উপজাতি খেত্রান, হাসনি, সৈয়দ, ম্যারি
ভাষা প্রধান ভাষা খেত্রানী বেলুচি

ইতিহাস[৭][সম্পাদনা]

বরখান জেলার প্রাথমিক ইতিহাস অস্পষ্ট বলে বিবেচনা করা হয় কিন্তু বলা হয় যে এই এলাকাটি মুসলিম শাসক এবং কান্দাহার ও ভারতের বিজয়ীগণের অধীনে ছিল। বারো খান বেলুচ ছিলেন একজন খেত্রান সম্প্রদায়ের যিনি একজন দক্ষ যোদ্ধা হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন কিন্তু যখন তিনি যুদ্ধে পরাজিত হন তখন তিনি তার উপজাতীয় লোকদের সাথে নিয়ে এই উপত্যকায় চলে আসেন এবং এই উপত্যকাটিকে বার খানের নামে নামকরণ করেন। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে বার খান থেকে বরখান নামে নামকরণ করা হয়।

খেত্রান বেলুচ মূলত সিস্তানের উপজেলা একটি এলাকা এবং তাত্তরের হিন্দ প্রদেশের একটি অংশ। আকবরের শাসনামলের সময়ে এটিকে জানজাহ বলে ডাকা হত।

যদিও খেতরান একটি বেলুচ গোষ্ঠী নয়। মীর গিরজো খান মাজারানী ছিলেন বেলুচদের প্রথম সর্দার। তিনি তার পুত্র বখতিয়ার খান এর হাত ধরে সফলতা পেয়েছিলেন যিনি মীর হাজী খান এর যোগ্য উত্তরাধিকারী ছিলেন। যার শাসনামলের সময়ে তিনি কাবুলের ঝোব কাকারদের উপর আক্রমণের সুবাদে খেত্রানদের মধ্যে জয়ের নায়ক হিসেবে স্মরণীয় হয়ে ছিলেন। মীর হাজী খান কিছু সংখ্যক প্রধান নেতারদের সমন্বয়ে সফলতা পান। মীর হাজি খান একজন শক্তিশালী ব্যক্তি ছিলেন এবং খেত্রানগণ তার অধীনে সফল ছিলেন। তিনি করম খান বিজরানি মরিয়রের মওয়াডের দুর্গ ধ্বংস করে মরিস থেকে খেত্রনদের পরাজয়ের প্রতিশোধ গ্রহণ করেন। হাজী খান মৃত্যুবরণ করেন এবং তিন পুত্র সন্তান রেখে যান। তাদের নাম হল যথাক্রমে: উমর খান, নওয়াব খান এবং বালু খান। যদিও তিনি তার ভাই সায়েদ খান কর্তৃক নির্বাচিত হন যিনি খেত্রানদের জন্য নির্বাচিত হন। এরপর তিনিও মারা যান ৩ সন্তান রেখে। যাদের নাম যথাক্রমে: দোস্ত মুহাম্মদ, সর্নি খান এবং কাদির বখশ।সৈয়দ খানও তার ভাই বালুল খানের নেতৃত্বে সফলতা পান। বাবুল খান যদিও নওয়াব খান ও কাদির বখশের বিরুদ্ধে বিরোধিতা করেছিলেন।

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • 1998 District Census report of Barkhan। Census publication। 60। Islamabad: Population Census Organization, Statistics Division, Government of Pakistan। ১৯৯৯। 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Member Profile OF District Barkhan" 
  2. "PPP secured the seat of district chairman Barkhan with Amir Mohammad Khetran as its candidate" 
  3. "District at a glance Barkhan"। Government of Pakistan "Pakistan Bureau of Statistics"। ৯ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  4. "DISTRICT WISE CENSUS RESULTS CENSUS 2017" (PDF)। www.pbscensus.gov.pk। ২৯ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  5. "National Dialing Codes"Pakistan Telecommunication Company Limited। ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ আগস্ট ২০১৪ 
  6. PCO 1998, পৃ. 1।
  7. Dames, Mansel Longworth (মার্চ ২, ২০১২)। The Baloch Race: A Historical And Ethnological Sketch। Nabu Press। আইএসবিএন 1276719884