ফার্মেসীতে স্নাতক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এটি চ্যানেলালংকর্ন বিশ্ববিদ্যালয়, ফার্মাসি অনুষদ দ্বারা স্নাতক ডিগ্রির জন্য অনুভূত

ফার্মেসীতে স্নাতক একটি একাডেমিক ডিগ্রি।এটি বি.ফার্ম নামে পরিচিত। অনেক দেশে ফার্মাসিস্ট হিসাবে নিবন্ধকরণ আর অনুশীলনের জন্য এই ডিগ্রি একটি পূর্বশর্ত। যেহেতু বি.ফার্ম এবং ফার্ম.ডি উভয়ই পশ্চিমা দেশগুলিতে লাইসেন্স দেওয়ার পূর্বশর্ত ,তাই এই দুইটিকে সমতুল্য বলে বিবেচিত করা হয়। অনেক পশ্চিমা দেশগুলিতে বি.ফার্মে স্নাতক ধারীরা বিদেশী স্নাতক ফার্ম.ডি ধারীদের মতো একইভাবে অনুশীলন করে। এইখানে মূলত ওষুধের বৈশিষ্ট্য আর প্রভাবগুলি বোঝার প্রশিক্ষণ এবং রোগীদের সাথে তাদের ব্যবহার ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা বিকাশের শিক্ষা দেওয়া হয়।

ফার্মেসীতে স্নাতক ধারকরা বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে যেমন ফার্মাসিস্ট হওয়া, রোগীর পরামর্শ দেওয়া, মাস্টার্স ডিগ্রি নিয়ে পড়াশোনা করা, প্রভাষক হিসাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করা বা ড্রাগের তথ্য বিশেষজ্ঞ হিসাবে কাজ করার মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করতে পারেন।

এশিয়া এবং ওশেনিয়া[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়ায়, চার বছরের ফার্মাসি প্রোগ্রামের স্নাতক শেষ করার পরে বি.ফার্ম ডিগ্রিটি দেওয়া হয়। অস্ট্রেলিয়ান ফার্মাসি কোর্সগুলি আগে তিন বছর ছিল তবে ১৯৯০ এর দশকে ফার্মাসি অনুশীলন শিক্ষার উপর জোর দিয়ে চার বছরে উন্নীত করা হয়েছিল।

অস্ট্রেলিয়ার সমস্ত বি.ফার্ম প্রোগ্রাম নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ান ফার্মাসি স্কুল অ্যাক্রিডিটেশন কমিটি (ন্যাপস্যাক) দ্বারা অনুমোদিত হয়।

অস্ট্রেলিয়ান যেসব বিশ্ববিদ্যালয়গুলি ব্যাচেলর বা মাস্টার অব ফার্মাসি প্রোগ্রাম দিচ্ছে (প্রায় জুন ২০১০):

ভারত[সম্পাদনা]

ফার্মেসীতে স্নাতক ডিগ্রিটি ভারতে বি.ফার্ম নামে জনপ্রিয়। এটি একটি চার বছরের প্রোগ্রাম যা বার্ষিক বা সেমিস্টার পদ্ধতিতে নেওয়া হয় ।ভারতে ফার্মেসী পড়তে হলে পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞানে ১০+২ পরীক্ষায় (বা সমমানের পরীক্ষায়) কমপক্ষে 50% নম্বর দিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

ঔষধ প্রস্তুতের বিদ্যা সংক্রান্ত শিক্ষা প্রদানকারী কলেজগুলি (ডি.ফার্ম, বি.ফার্ম, এম.ফার্ম, ফার্ম.ডি) অল ইন্ডিয়ান টেকনিক্যাল এডুকেশন কাউন্সিল (এআইসিটিই) এবং ফার্মাসি কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া (পিসিআই) দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে।

একজন শিক্ষার্থী ভারতে ফার্মাসিস্ট / ক্লিনিকাল ফার্মাসিস্ট হিসাবে নিবন্ধনের যোগ্য হওয়ার জন্য, তিনি যে কলেজ থেকে স্নাতক হয়েছেন সে কলেজটি অবশ্যই পিসিআই দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে।

বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশে ফার্মেসীতে স্নাতক একটি জনপ্রিয় ডিগ্রি । এটি একটি চার বছরের প্রোগ্রাম যা উভয় বার্ষিক বা সেমিস্টার পদ্ধতিতে নেওয়া হয়। বাংলাদেশে ফার্মেসি বিষয়ে শিক্ষার যাত্রা শুরু হয় ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসি বিভাগ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে। বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসি পড়ানো হয়। [২]

আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়,আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক, ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরো অনেক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসি বিষয়ে পড়ানো হয়।

ঔষধ প্রস্তুতের বিদ্যা সংক্রান্ত শিক্ষা প্রদানকারী কলেজগুলি (ডি.ফার্ম, বি.ফার্ম, এম.ফার্ম ) অবশ্যই ফার্মাসি কাউন্সিল অফ বাংলাদেশের (পিসিবি) দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে [১]

একজন শিক্ষার্থী বাংলাদেশের ফার্মাসিস্ট হিসাবে নিবন্ধনের যোগ্য হওয়ার জন্য, তিনি যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হয়েছেন সে বিশ্ববিদ্যালয়কে অবশ্যই পিসিবি দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে এবং পিসিবি-র বিধি-বিধান অনুসরণ করতে হবে।

পিসিবির দ্বারা অনুমোদিত বাংলাদেশে ফার্মেসীতে স্নাতক ডিগ্রি প্রদানকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলি হলঃ

  1. ফার্মাসি অনুষদ, Dhaka াকা বিশ্ববিদ্যালয় [২]
  2. ফার্মেসী বিভাগ, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় [৩]
  3. ফার্মাসি বিভাগ, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় [৪]
  4. ফার্মেসী বিভাগ, এএসএ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ
  5. ফার্মেসী বিভাগ ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে, গোনো বিশ্ববিদালয়, [৫]
  6. ফার্মাসি বিভাগ, বাংলাদেশ স্টেট ইউনিভার্সিটি [৬] ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১২ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে
  7. ফার্মেসী বিভাগ, বিজিসি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ [৭]
  8. ফার্মেসী বিভাগ, উন্নয়ন বিকল্প বিশ্ববিদ্যালয় (ইউওডিএ) [৮]
  9. ফার্মাসি বিভাগ, নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ।
  10. ফার্মেসী বিভাগ,আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম।[৯]

[৩] এবং অন্যান্য।

ইউরোপ[সম্পাদনা]

নরওয়ে[সম্পাদনা]

নরওয়েতে, ফার্মেসীতে স্নাতক ডিগ্রিটি প্রধান করা হয় অসলো মেট্রোপলিটন বিশ্ববিদ্যালয়, দ্য ইউনিভার্সিটি অফ ট্রমস এবং নর্ড বিশ্ববিদ্যালযয়ের দ্বারা। এই ডিগ্রিটি নরওয়েতে ফার্মাসিস্ট হিসাবে কাজ করতে একজনকে যোগ্য করে তোলে। নরওয়ে মাস্টার অব ফার্মাসি ডিগ্রিও প্রদান করে, যা প্রায়শই ফার্মেসীতে স্নাতক ডিগ্রির চেয়ে উচ্চতর অর্থ প্রদান এবং আরও বেশি কাজের সুযোগ দেয়। [৪]

আয়ারল্যান্ড[সম্পাদনা]

আয়ারল্যান্ডে যে কলেজগুলি এম.ফার্ম (অনার্স) ডিগ্রিগুলি প্রদান করে:

  • ট্রিনিটি কলেজ, ডাবলিন
  • বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ কর্ক
  • আয়ারল্যান্ড, ডাবলিনের রয়েল কলেজ অফ সার্জনস

ফিনল্যান্ড[সম্পাদনা]

ফিনল্যান্ডে, ফার্মাসী ডিগ্রিটি হেলসিঙ্কি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পূর্ব ফিনল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়টিতে পড়ানো হয়। ফার্মেসীতে স্নাতক ডিগ্রিটি সেখানে ফার্মাসিউটি নামে পরিচিত।ফিনল্যান্ডে একজনকে ফার্মাসিস্ট হতে হলে এম.ফার্মেসী ডিগ্রিটি অর্জন করতে হবে।

যুক্তরাজ্য[সম্পাদনা]

যুক্তরাজ্যে, বি.ফার্ম ডিগ্রিটি তিন বছরের স্নাতকোত্তর ফার্মাসি প্রোগ্রামের পরে প্রদান করা হতো। ১৯৯৭ সালে মাস্টার অফ ফার্মাসি (এম.ফার্ম) ডিগ্রি দ্বারা এটি বরখাস্ত করা হয়েছিল, যা ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমন্বয় হওয়ার ফলে চার বছরের কর্মসূচিতে পরে উন্নীত করা হয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]