প্লুস উলত্রা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্পেনের রাজকীয় মর্যাদাবাহী নকশা, যার দুই দিকে হারকিউলিসের স্তম্ভ আছে, আর ওপত্রে "প্লুস উলত্রা" নীতিবাক্যটি লেখা আছে।
আলহাম্বরাতে পঞ্চম চার্লসের প্রাসাদে কাঠের প্যানেল।

প্লুস উলত্রা[note ১] ("আরো এগিয়ে") হল অকটি লাতিন নীতিবাক্য আর স্পেনের নীতিবাক্য।এটাকে পঞ্চম চার্লস, পবিত্র রোমান সম্রাটের নিজস্ব নীতিবাক্য থেকে নেওয়া হয়েছে, আর একটি পুরাতন নীতিবাক্যের বিপরীত "নোন প্লুস উলত্রা" ("আরো এগিয়ে কিছু নেই")  [note ২] বলা হয় যে এটা জিব্রাল্টার প্রণালীতে হারকিউলিসের স্তম্ভে একটি সাবধানাবাণী হিসেবে লেখা হয়েছিল, যেটা প্রাচীন বিশ্বের সীমান্ত ছিল। ক্রিস্টোফার কলম্বাস দ্বারা নতুন বিশ্বের খোজ করার পর, চার্লস এই নীতিবাক্যকে অবলম্বন করলেন, আর তার অর্থে ঝুঁকি নেওয়া আর শ্রেষ্ঠত্ব পাওয়ার রুপক অন্তর্ভুক্ত আছে।

পঞ্চম চার্লস[সম্পাদনা]

নীতিবাক্যের প্রস্তাব দিয়েছিলেন ১৫১৬ খ্রিস্টাব্দে চার্লসের চিকিৎসক এবং উপদেষ্টা লুইজি মারলিয়ানো। [১] এটা মারলিয়ানোর কল্পনার প্রতীক ছিল যেখানে সারা প্রাচীন বিশ্বে একটি খ্রিস্ট ধর্মীয় সাম্রাজ্যের রাজ থাকবে। তার সাথে এটা রিকনকোয়েস্টা কে জিব্রাল্টার থেকে এগিয়ে নিয়ে উত্তর আফ্রিকাতে বাড়ানোর ইচ্ছা ছিল। যখন চার্লস ১৫২০ খ্রিস্টাব্দে বিজয়ের পর বুরগোসে প্রবেশ করেন, একটি বিজয়ী খিলান তৈরি হয় যার এক দিকে প্লুস উলত্রা আর উলটো দিকে "সারা আফ্রিকা কাঁদছে কারণ সে জানে আপনাএ হাতে চাবি (জিব্রাল্টার) আছে আর আপনি তাঁদের মালিক"।

নীতিবাক্যকে প্রথম বার রেকর্ড করা হয় ব্রাসেল্সের একটি গির্জায় চার্লসের চেয়ারে ওপরে। মূল ফরাসি নীতিবাক্য "Plus oultre" কে লাতিন ভাষায় আনুবাহ করা হল  ফরাসি উপদেষ্টা আর মন্ত্রিদের প্রতি স্পেনবাসীদের শত্রুতার জন্য়।

স্পেন[সম্পাদনা]

চার্লসের মৃত্যুর পরও নীতিবাক্যটা স্পেনে প্রচলিত থাকে।বাক্যটা হ্যাবসবার্গ সাম্রাজ্যের প্রচারণায় পাওয়া যায় আর স্পেনের আনুসন্ধানকারীদেরকে পুরোনো সাবধানবাণীকে উপেক্ষা কর পশ্চিমের সাগরে যেতে উৎসাহিত করার জন্য ব্যাবহার করা হয়। আজ নীতিবাক্যটা স্পেনের পতাকা আর মর্যাদাবাহী নকশার ওপর পাওয়া যায়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

সন্দর্ভ তালিকা[সম্পাদনা]

  1. /ˌplʊs ˈʊltrɑː/, লাতিন: [ˈpluːs ˈʊltraː], স্পেনীয়: [plus ˈultɾa]
  2. Also Ne or Nec plus ultra, "no further beyond".
  1. Ferer, Mary Tiffany (২০১২)। Music and Ceremony at the Court of Charles V। The Boydell Press। আইএসবিএন 9781843836995