পেতেন অববাহিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পেতেন অববাহিকা
অঞ্চল
পেতেন ডিপার্টমেন্টের মানচিত্র
পেতেন ডিপার্টমেন্টের মানচিত্র
দেশসমূহ গুয়াতেমালা, মেক্সিকো
অবস্থান এল পেতেন ডিপার্টমেন্টক্যাম্পেচে রাজ্য

পেতেন নদী অববাহিকা (স্পেনীয়: Cuenca del Petén) মেসোআমেরিকার ভৌগোলিক উপ-অঞ্চলবিশেষ। মূলতঃ গুয়াতেমালার উত্তরাংশের এল পেতেন ডিপার্টমেন্টমেক্সিকোর ক্যাম্পেচে রাজ্যর দক্ষিণ-পশ্চিম এলাকায় এর অবস্থান।

প্রাক-ধ্রুপদী ও প্রাক-কলম্বীয় মেসোআমেরিকান ধ্রুপদী যুগের ঘটনাপ্রবাহকালীন মায়া সভ্যতায় তিকালকালাকমুলের ন্যায় অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ বড় ধরনের কেন্দ্রের বিকাশ ঘটে। মায়া স্থাপত্যকলায় পৃথক পেতেন-ধাঁচ ও লিখনরীতির উদ্ভব হয়। এছাড়াও এ অঞ্চলে লা সাফিকায়াহলমুল প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মিরাদোর অববাহিকায় ৬০০ খ্রিস্টাব্দে প্রাক-ধ্রুপদী সময়কালের মাঝামাঝি সময়ে প্রতিষ্ঠিত ন্যাকবে প্রাসাদের অবশিষ্টাংশ।

খ্রিস্ট-পূর্ব প্রথম মিলেনিয়ামের মাঝামাঝি সময়কালের প্রথমদিকে পেতেন ও মিরাদোর নদী অববাহিকা এ অঞ্চলে গঠিত হয়। মায়া সভ্যতার ছোঁয়ায় একগুচ্ছ দৃষ্টিনন্দন স্থান ও শহর বেশ জনপ্রিয়তা পায়। প্রাক-কলম্বীয় যুগের মেসোআমেরিকান ঘটনাপ্রবাহকালীন উল্লেখযোগ্য মায়া স্থানগুলোর মধ্যে ন্যাকবে, এল মিরাদোর, নাচতুন, স্যান বার্তোলোসিভাল মিরাদোর নদী অববাহিকায় গড়ে উঠেছিল।

ধ্রুপদী সময়কাল[সম্পাদনা]

পরবর্তীতে আনুমানিক ২০০ থেকে ৯০০ সময়কালে মায়া ধ্রুপদী যুগে পেতেন প্রধান কেন্দ্রস্থলে পরিণত হয়। ৭৫০ সালের দিকে এটি স্বর্ণশিখরে পৌঁছে ও কয়েক লক্ষ লোক বসবাস করতো। এরফলে ঐ সময়ে পেতেন নদী অববাহিকাকে বিশ্বের অন্যতম সর্বাপেক্ষা ঘনবহুল এলাকায় পরিণত হয়। কিছু এলাকায় প্রতি বর্গকিলোমিটারে প্রায় ২,০০০ লোকের অবস্থানের কথা বলা হয়। মেসোআমেরিকান কৃষিব্যবস্থা বেশ ব্যাপকভাবে প্রচলন ঘটানো হয়। কিছু ক্ষেত্রে ধারণা করা হয় যে, জমিগুলোতে অতিরিক্ত চাষাবাদের ফলে ধীরে ধীরে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। ফলশ্রুতিতে, দূর্ভিক্ষের কবলে পড়ে ঐ এলাকায় ধ্রুপদী মায়া রাজ্যের ধ্বংস হবার অন্যতম কারণরূপে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে। নবম শতাব্দী থেকে দশম শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে এর জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ কমে যায়।

প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন[সম্পাদনা]

পেতেন নদী অববাহিকা অঞ্চলের ধ্রুপদী মায়া সভ্যতার গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানগুলো অদ্যাবধি নিম্নবর্ণিত কিছু নিদর্শন রক্ষিত আছে:

জঙ্গলের উপর থেকে তিকালের দৃশ্য।

তিকাল ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকার সর্বাগ্রে অন্তর্ভূক্ত হয়। পরবর্তীতে তিকাল জাতীয় উদ্যান প্রথম মিশ্র প্রত্নতাত্ত্বিকপ্রাকৃতিক বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী তালিকায় প্রথম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল।

স্পেনীয় ঔপনিবেশিক সময়কাল[সম্পাদনা]

ধ্রুপদী যুগের অধ্যায়ের পতন শুরু হলে এলাকাটি থেকে নাটকীয়ভাবে জনসংখ্যা কমতে শুরু করে। বিশেষ করে ইউরোপীয়দের মাধ্যমে গুটিবসন্তের সূত্রপাত ঘটার পরই এর সূচনা হয়। ১৫১৯ থেকে ১৫২০ সময়কালের মধ্যে গুটিবসন্ত মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ে। এ অঞ্চলে ইউরোপীয়দের প্রথম আগমনের পর থেকে বেশ কয়েকবছর এর স্থায়িত্ব ছিল। ১৫২৪ থেকে ১৫২৫ সময়কালে এর্নান কোর্তেস প্রথমবারের মতো পেতেন নদী অববাহিকা অঞ্চলে দলবদ্ধভাবে পদার্পণ করেন। তিনি প্রতিবেদনে জানান যে, অঞ্চলটির অধিকাংশই ছোট ছোট গ্রামগুলো ঘন জঙ্গলের মাধ্যমে বিভাজিত অবস্থায় আছে। কেবলমাত্র তেয়াসালকে বসতিপূর্ণ অবস্থায় তারা দেখেছেন।

কোর্তেসের অভিযানের পর উপনিবেশবাদী স্পেনীয়রা ব্যাপকভাবে পেতেন অববাহিকা দখলের জন্য কয়েক প্রজন্ম ধরে ব্যাপকভাবে চেষ্টা চালায়। তারা মূলতঃ বেলিজআল্তা ভেরাপেজে বেশ কয়েকবার চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয়। ইউকাতান,আল্তা ভেরাপেজে থেকে বেলিজ ও কোবান এলাকা অধিগ্রহণের পর ১৬৯৭ সালের দিকে সর্বশেষ স্বতন্ত্রপ্রকৃতির স্বাধীন মায়া সভ্যতার সমাপ্তি ঘটে। কোয়োজ মায়ার রাজধানী জাকপেতেন, ইতজা মায়াদের কেন্দ্রস্থল তেয়াসাল ও পেতেন ইতজা হ্রদ অঞ্চলের অন্যান্য শহর যেমন কুইজিল (আধুনিক স্পেনীয় নাম; মায়া: ‘একি’জিল’) ও ইয়ালিন দখল করা হয়।

তেয়াসাল স্থানের পার্শ্বেই স্পেনীয় শহর ফ্লোরেস প্রতিষ্ঠা করা হয়। তবে, ঔপনিবেশিক নতুন স্পেনের ভাইসরয়্যালিটি যুগ থেকে শুরু করে মেক্সিকোর স্বাধীনতা লাভের পরবর্তী সময় পর্যন্ত শহরটিকে নিষ্ক্রীয় অবস্থায় রাখা হয়। ১৮৪০-এর দশক থেকে এ অঞ্চলটি গুয়াতেমালার দাবী করে গুয়াতেমালীয় রাষ্ট্রপতি রাফায়েল কারেরা ছোট্ট সেনাদল প্রেরণ করে ফ্লোরেসকে নিজেদের করায়ত্ত্ব করে নেন। তবে, মেক্সিকো সরকার ও ইউকাতান রাজ্য পেতেন নদী অববাহিকা অঞ্চলটি তেমন মূল্যবান নয় ভেবে নিয়ে বিরোধ এড়িয়ে যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

Coe, Michael D. (১৯৮৭)। The Maya। Ancient peoples and places series (4th revised সংস্করণ)। London and New York: Thames & Hudsonআইএসবিএন 0-500-27455-Xওসিএলসি 15895415 
Culbert, T. Patrick (১৯৯৫)। "Ancient Maya Wetland Agriculture"The Foundation Granting Department: Reports Submitted to FAMSI। Foundation for the Advancement of Mesoamerican Studies, Inc. (FAMSI)। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০১-৩০ 
Sharer, Robert J.; Loa P. Traxler (২০০৬)। The Ancient Maya (6th, fully revised সংস্করণ)। Stanford, CA: Stanford University Pressআইএসবিএন 0-8047-4816-0ওসিএলসি 28067148 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]