ডারবুক–শ্যোক–বিডিও সড়ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডারবুক–শ্যোক-ডিবিও রোড
সাব-সেক্টর নর্থ রোড
পথের তথ্য
সীমান্ত সড়ক সংস্থা (বিআরও) দ্বারা রক্ষণাবেক্ষণকৃত
দৈর্ঘ্য:২৫৫ কিমি[১] (১৫৮ মাইল)
বিদ্যমান:এপ্রিল ২০১৯ – বর্তমান
প্রধান সংযোগস্থল
থেকে:লেহ
 ডারবুক
শ্যোক
পর্যন্ত:দৌলত বেগ ওল্ডি (ডিবিও)
অবস্থান
জেলাসমূহলেহ জেলা (নুব্রা)
মহাসড়ক ব্যবস্থা
ডারবুক–শ্যোক-ডিবিও রোড

ডারবুক–শ্যোক-ডিবিও রোড (ডিএস-ডিবিও রোড/ডিএসডিবিও রোড), যাকে সাব-সেক্টর নর্থ রোডও বলা হয়,[২] ভারতের পূর্ব লাদাখের একটি সকল আবহাওয়ায় চলাচলের উপযোগী সড়ক,[৩] যা চীনের সঙ্গে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার নিকটবর্তী। এটি চীনের সীমান্তের নিকটে দৌলত বেগ ওল্ডি (ডিবিও) পোস্টের সাথে দক্ষিণ শ্যোক উপত্যকায় ডারবুক ও শ্যোকের গ্রামগুলির মধ্য দিয়ে লাদাখের রাজধানী শহর লেহকে সংযুক্ত করে। শ্যোক ও ডিবিও'র মধ্যে ২২০ কিলোমিটার দীর্ঘ বিভাগটি ভারতের সীমান্ত সড়ক সংস্থা (বিআরও) দ্বারা ২০০০ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে নির্মিত হয়।[১][৪]

পথ[সম্পাদনা]

বিআরও সড়কটি শ্যোক গ্রামের কাছাকাছি শুরু হয়, যা ভি-আকৃতির বাঁকের পরে শ্যোক নদীর বাম তীরে অবস্থান করে। শ্যোকের থেকে পশ্চিমে ডারবুক হয়ে লেহ এবং দক্ষিণে প্যাঙ্গং হ্রদ পর্যন্ত যাওয়ার সড়ক রয়েছে। বিআরও সড়কটি শ্যোক নদীটি অতিক্রম করে তার ডান তীরে পৌঁছায় এবং কোণার চারদিকে প্রদক্ষিণ করে ডান তীর (নদীগর্ভের পশ্চিম দিকে) ধরে উত্তর দিকে চলতে থাকে।

ছুমেদ, মুন্দ্রা ও মন্ডলতাং গ্রাম পেরিয়ে সড়কটি সুলতান ছুশকুর কাছে নদীটি অতিক্রম করে নদীগর্ভের পুরো প্রস্থের উপর একটি ৪৩০ মিটার দীর্ঘ সেতু দ্বারা। এই সেতুটি নামকরণ করা হয় 'কর্নেল চেয়াং রিঞ্চেন সেতু' নামে।[ক]

সেতুর পরে, সড়কটি নদীর স্রোতের উপত্যকাগুলির মধ্য দিয়ে মুরগো গ্রামে পৌঁছায়, যা লেহকারাকোরাম গিরিপথের মধ্যবর্তী একটি প্রাচীন কাফেলা পথে। এই সড়কটি কাফেলা পথ অনুসরণ করে বুর্তাসা ও কিজিল ল্যাঙ্গারের শিবিরের মাঠগুলি পেরিয়ে চীনের সাথে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার নিকটবর্তী হয়ে চলে।[খ]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

২০১৪ সালের সংশোধিত সময়সীমা সহ ২০০০ সালে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। তবে, ২০১১ সালে, প্রধান প্রযুক্তিগত পরীক্ষকের তদন্তে দেখা যায় যে সড়কের তিন-চতুর্থাংশ নদীগর্ভে অবস্থিত, যা সামরিক কাজে ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত নয়। এরপরে জম্মু থেকে আগত একটি নতুন বর্ডার রোডস টাস্ক ফোর্সের দ্বারা নির্মিত সড়কটিকে উঁচু স্থলে পুননির্মাণ এবং সম্পূর্ণ করার জন্য কমিশন করা হয়। পুনর্নির্মাণ প্রকল্পটি ২০১৩ সালে শেষ হওয়ার জন্য নির্ধারিত হয়, তবে শেষ পর্যন্ত এপ্রিল ২০১৯ সালে শেষ হয়। পুরানো সড়কটি শীতের মাসগুলিতে ব্যবহৃত হয়।[৭]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. The bridge has been named after a hero of Ladakh, Chewang Rinchen, who organised the Ladakhi resistance to the Gilgit Scouts invasion during the Indo-Pakistani War of 1947. He received Maha Vir Chakra, India's second higest military honour, twice in his life time.[৫]
  2. The old caravan route is marked on the map provided by Maj. Gen. Vombatkere.[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ajay Banerjee, India completes vital Ladakh road, The Tribune (Chandigarh) 22 April 2019.
  2. "Amid Ladakh standoff with China, India puts border roads in fast lane" 
  3. "Explained: The strategic road to DBO" 
  4. Lt Gen Prakash Katoch, DSDBO Road completed – but what of the scam and the northeast?, Indian Defence Review, 27 April 2019.
  5. PTI, India's Highest Altitude All-weather Permanent Bridge Inaugurated by Rajnath Singh in Eastern Ladakh, News18, 21 October 2019.
  6. Maj Gen S. G. Vombatkere, A Ring-Side View Of The Chinese Incursion, Countercurrents.org, 7 May 2013.
  7. Sushant Singh, Constructed on riverbed, road to China border being rebuilt, The Indian Express, 4 June 2015.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]