জর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জর্জ হার্ন
জর্জ হার্ন.jpeg
আনুমানিক ১৯২০-এর দশকের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে জর্জ হার্ন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্ন
জন্ম(১৮৮৮-০৩-২৭)২৭ মার্চ ১৮৮৮
ক্যাটফোর্ড, কেন্ট, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১৩ নভেম্বর ১৯৭৮(1978-11-13) (বয়স ৯০)
বারবারটন, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
সম্পর্কফ্রাঙ্ক হার্ন (পিতা)
পরিবারের অন্যান্য সদস্য
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০৫)
২৩ ডিসেম্বর ১৯২২ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৬ আগস্ট ১৯২৪ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৪১
রানের সংখ্যা ৫৯ ১,৯৮১
ব্যাটিং গড় ১১.৮০ ২৮.৩০
১০০/৫০ ০/০ ২/১০
সর্বোচ্চ রান ২৮ ১৩৮
বল করেছে - ৭১৪
উইকেট - ১৪
বোলিং গড় - ২৮.৬৪
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং - ৩/৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/০ ৩৮/২
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১০ জুলাই ২০১৯

জর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্ন (ইংরেজি: George Alfred Lawrence Hearne; জন্ম: ২৭ মার্চ, ১৮৮৮ - মৃত্যু: ১৩ নভেম্বর, ১৯৭৮) কেন্টের ক্যাটফোর্ড এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯২২ থেকে ১৯২৪ সময়কালে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে ব্যাটিংয়ে কার্যকরী ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

১৮৮৯ সালে স্ব-পরিবারে দক্ষিণ আফ্রিকায় অভিবাসিত হন। তাঁর পিতা ফ্রাঙ্ক হার্ন পেশাদার ক্রিকেটার ছিলেন এবং ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা - উভয় দলের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

তাঁর পিতা ফ্রাঙ্ক হার্ন নভেম্বর, ১৮৮৮ সালে মেজর ওয়ারটন একাদশের সদস্যরূপে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। এটিই দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম ইংরেজ দলের সফর ছিল। এ সফরে দলটি দুই টেস্টে অংশ নেয় ও দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটের সূচনা ঘটে। ফলে, জর্জ হার্নকে ঐ সময় থেকে আজীবন সেখানে অবস্থান করতে হয়েছিল।

বিখ্যাত হার্ন পরিবারের সদস্য ছিলেন ফ্রাঙ্ক হার্ন। কেন্টের পক্ষে খেলেছিলেন তিনি। দূর্বল স্বাস্থ্যের কারণে দক্ষিণ আফ্রিকায় অভিবাসিত হন ও ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের কোচের দায়িত্ব পালন করেন।[১][২]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯১০-১১ মৌসুম থেকে ১৯২৬-২৭ মৌসুম পর্যন্ত জর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্নের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।[৩] এ সময়ে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের পক্ষে ডানহাতি ব্যাটসম্যান ও উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। ১৯২১-২২ মৌসুমে প্রতিশ্রুতিশীলতার স্বাক্ষর রাখেন। ৪৫ গড়ে ৫৪১ রান তুলেন তিনি। ১৯২৬-২৭ মৌসুমে অবসর গ্রহণকালীন সময়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৩৮ রানের ইনিংস খেলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন জর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্ন। ২৩ ডিসেম্বর, ১৯২২ তারিখে জোহেন্সবার্গে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তাঁর। ১৬ আগস্ট, ১৯২৪ তারিখে ওভালে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯২৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সাথে ইংল্যান্ড গমন করেন। ওভালে সিরিজের চূড়ান্ত টেস্টে সর্বশেষ অংশ নেন।[৩]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৩ নভেম্বর, ১৯৭৮ তারিখে ৯০ বছর বয়সে বারবারটন এলাকায় জর্জ আলফ্রেড লরেন্স হার্নের দেহাবসান ঘটে।[৩] পিতা-পুত্র উভয়েই ৯০ বছর বেঁচেছিলেন। এ ঘটনাটি টেস্ট খেলার ইতিহাসে একমাত্র ঘটনা হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছে। মৃত্যু পূর্ব-পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার বয়োজ্যেষ্ঠ টেস্ট ক্রিকেটারের সম্মাননা পেলেও ইজে টাইগার স্মিথের পরবর্তী স্থানে ছিলেন। তাঁর পিতা ফ্রাঙ্ক হার্ন পরবর্তীতে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে বেশ কয়েকটি টেস্টে অংশ নেন ও পরবর্তীতে দক্ষিণ আফ্রিকায় কোচের দায়িত্ব পালন করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Frank Hearne, Obituaries in 1949, Wisden Cricketers' Almanack, 1950. Retrieved 2017-10-28.
  2. A short history of Kent cricket, Wisden Cricketers' Almanack, 1907. Retrieved 2017-10-28.
  3. Hearne, George Alfred Lawrence, Obituaries before 1979, Wisden Cricketers' Almanack, 1980. Retrieved 2017-10-28.

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]