গৌরিপুর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গৌরিপুর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়
ঠিকানা
গৌরিপুর,দাউদকান্দি,কুমিল্লা
বাংলাদেশ
বাংলাদেশ
তথ্য
বিদ্যালয়ের ধরনআধা-সরকারি বিদ্যালয় মাধ্যমিক
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৪২ (1942)
অবস্থাসক্রিয়
বিদ্যালয় বোর্ডমাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লা
বিদ্যালয় জেলাকুমিল্লা জেলা
সেশনজানুয়ারি - ডিসেম্বর
চেয়ারম্যানসুবিদ আলী ভুইয়া
অধ্যক্ষসেলিম সরকার
উপাধ্যক্ষসেলিম তালুকদার
শিক্ষকমণ্ডলী৪৩
কর্মচারী১২
লিঙ্গবালক, বালিকা
শিক্ষার্থী সংখ্যা৩২০১
শ্রেণী৬-১০
শিক্ষাদানের মাধ্যমজাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড
ভাষার মাধ্যমবাংলা-মাধ্যম শিক্ষা
ভাষাবাংলা
ক্যাম্পাসের ধরনআবাসিক-অনাবাসিক
ওয়েবসাইট

গৌরিপুর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়টি দাউদকান্দি উপজেলার গৌরিপুরে অবস্থিত একটি ঐতিহ্যবাহী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। এটি অত্র এলাকার সবচেয়ে পুরাতন বিদ্যালয়

ভৌত অবকাঠামো[সম্পাদনা]

বিদ্যালয়ের তিনটি আলাদা ভবন আছে।

ভবনের ধরন সংখ্যা কক্ষ
একতলা ১টি ৫টি
দোতলা ১টি ৩০টি
তিনতলা ১টি ৮টি
সর্বমোট ৩টি ৪৩টি

বিদ্যালয়ের ইউনিফর্ম[সম্পাদনা]

ছেলেদের

  1. ব্লু হাফ/ফুল শার্ট( সোল্ডারসহ)
  2. প্যান্ট : সাদা ফুল প্যান্ট কুচি ক্রস পকেট
  3. বেল্ট : কালো
  4. জুতা : সাদা কেড্‌স
  5. সাদা মোজা
  6. বিদ্যালয়ের পরিচয় পত্র

মেয়েদের

  1. সাদা শালোয়ার ( সোল্ডারসহ)
  2. কামিজ : ব্লু
  3. বেল্ট : কামিজের রঙের
  4. জুতা : সাদা কেড্‌স
  5. সাদা মোজা
  6. স্কার্ফ : সাদা
  7. বিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বিংশ শতাব্দীর শুরু দিকে গলিয়ারচর নিবাসী মৌলভী ওয়াজউদ্দীন আহমেদ অত্র এলাকায় কোরআনহাদীস শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষা প্রসারের লক্ষ্যে মক্তব রূপে বিদ্যাপীঠ তৈরি করেন।বর্তমানে একটি আধুনিক বিদ্যালয়ের রূপ লাভ করেছে। সময়ের সাথে তাল রেখে এই বিদ্যাপীঠটি পরিবর্তন ও পরিবর্ধন হতে থাকে। ১৯১৯ খ্রিষ্টাব্দে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উন্নীত হয়। ১৯৪২ খ্রিষ্টাব্দে কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে উচ্চ বিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃত হয়। মরহুম ডা. শামসুল হুদার উদ্যোগে উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রাক্কালে স্থান ও অর্থ দান করায় স্বর্গীয় বাবু সুবল চন্দ্র সাহা ও মরহুম আফতাব উদ্দিন আহমেদ এর নাম শুরু থেকেই জড়িয়ে বিদ্যালয়ের নামকরণ করা হয় গৌরীপুর সুবল-আফ্তাব উচ্চ বিদ্যালয়। হিন্দুমুসলিমের স্বতঃস্ফূর্ত দানে গড়ে উঠা এই বিদ্যালয় শিক্ষার আলো ছড়ানোর পাশাপাশি এই অঞ্চলের হিন্দু-মুসলিমের পারস্পরিক সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির এক অনবদ্য দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করে চলছে।

কৃতি ব্যাক্তিত্ব[সম্পাদনা]