ক্রিস্টোফার হিচেন্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্রিস্টোফার হিচেন্স
Hitchens photographed from profile
২০০৮ সালে হিচেন্স
জন্মক্রিস্টোফার হিচেন্স
(১৯৪৯-০৪-১৩)১৩ এপ্রিল ১৯৪৯
হ্যাম্পশায়ার, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১৫ ডিসেম্বর ২০১১(2011-12-15) (বয়স ৬২)
টেক্সাস, যুক্তরাষ্ট্র
জাতীয়তা
  • যুক্তরাজ্য (১৯৪৯–২০১১)
  • যুক্তরাষ্ট্র (২০০৭–২০১১)
যুগসমসাময়িক দর্শন
অঞ্চলপাশ্চাত্য দর্শন
ধারানব্য নাস্তিকতা[১]
আগ্রহরাজনীতি, ধর্ম, ইতিহাস, সাহিত্য সমালোচনা
শিক্ষায়তনঅক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
অবদানHitchens's razor
পুরস্কার
স্বাক্ষরChristopher Hitchens signature.svg

ক্রিস্টোফার এরিক হিচেন্স (১৩ এপ্রিল ১৯৪৯ - ১৫ ডিসেম্বর ২০১১) একজন ব্রিটিশ প্রাবন্ধিক, বাগ্মী, সাংবাদিক, লেখক, সাহিত্য ও সমাজ সমালোচক। হিচেন্স ৩০টির অধিক গ্রন্থের রচয়িতা, সহরচয়িতা, সম্পাদক বা সহসম্পাদক। হিচেন্স নিউ স্টেটসম্যান, দ্য নেশন, দ্য উইকলি স্ট্যান্ডার্ড, দ্য আটলান্টিক, লন্ডন রিভিউ অব বুকস, দ্য টাইমস লিটেরারি সাপ্লিমেন্ট, স্লেট, ফ্রি ইনকোয়ারি, ও ভ্যানিটি ফেয়ার প্রভৃতি পত্রিকায় লিখতেন।

ভাবাদর্শের দিক থেকে হিচেন্স ছিলেন গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্রী ও মার্ক্সবাদী। হিচেন্স তার লেখনীতে বিল ক্লিনটন, হেনরি কিসিঞ্জার, মেরি টেরিজা বোজাঝিউ, ড্যায়ানা প্রমুখের কঠোর সমালোচনা করেন।

হিচেন্স একজন নাস্তিক চিন্তক। তার প্রখ্যাত বাণী, 'যা প্রমাণ ছাড়া দাবি করা যায়, তা প্রমাণ ছাড়া খারিজ করা যায়।'[৮][৯]

নির্বাচিত গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. টেমপ্লেট:Cite IEP: "In spite of their different approaches and occupations (only Dennett is a professional philosopher), the New Atheists tend to share a general set of assumptions and viewpoints. These positions constitute the background theoretical framework that is known as the New Atheism. The framework has a metaphysical component, an epistemological component, and an ethical component. ... Hitchens includes chapters entitled "The Metaphysical Claims of Religion are False" and "Arguments from Design," but his more journalistic treatment of the cases for and against God's existence amounts primarily to the claim that the God hypothesis is unnecessary since science can now explain what theism was formerly thought to be required to explain, including phenomena such as the appearance of design in the universe."
  2. Marr, Andrew (২৪ জুন ২০০২)। "Christopher Hitchens on George Orwell"BBC। NetCharles.com। ১৭ ডিসেম্বর ২০০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১১ 
  3. Hitchens, Christopher (২০০৮)। Christopher Hitchens and his Critics। New York University Press। পৃষ্ঠা 264। আইএসবিএন 978-0814716878 
  4. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Christopher Hitchens In Depth নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  5. Kennard, Matt (১৭ এপ্রিল ২০১১)। "Johann Hari on Chomsky, Hitchens, Iraq, and anarchism"। Thecommentfactory.com। সংগ্রহের তারিখ ২৬ এপ্রিল ২০১১ 
  6. Alter, Alexandra (১১ মে ২০১০)। "A Friendship for the Pages"The Wall Street Journal। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৬ 
  7. Saad, Gad। "Christopher Hitchens: The Personification of Intellectual Courage" 
  8. Hitchens, Christopher (২০ অক্টোবর ২০০৩)। "Mommie Dearest"Slate। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৬ 
  9. McGrattan, Cillian (২০১৬)। The Politics of Trauma and Peace-Building: Lessons from Northern Ireland। Routledge। পৃষ্ঠা 2। আইএসবিএন 978-1138775183