কোটাসুর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কোটাসুর
গ্রাম
কোটাসুর পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
কোটাসুর
কোটাসুর
পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারতে কোটাসুরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৭′৩৯″ উত্তর ৮৭°৪৪′৪১″ পূর্ব / ২৩.৯৬০৭৮° উত্তর ৮৭.৭৪৪৭৩৪° পূর্ব / 23.96078; 87.744734স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৭′৩৯″ উত্তর ৮৭°৪৪′৪১″ পূর্ব / ২৩.৯৬০৭৮° উত্তর ৮৭.৭৪৪৭৩৪° পূর্ব / 23.96078; 87.744734
রাষ্ট্র ভারত
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
জেলাবীরভূম
আয়তন
 • মোট৪.২১ বর্গকিমি (১.৬৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৪,৩০২
 • জনঘনত্ব১,০০০/বর্গকিমি (২,৬০০/বর্গমাইল)
ভাষা
 • দাপ্তরিকবাংলা, ইংরাজী
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+০৫:৩০)
পিন৭৩১২১৩
টেলিফোন কোড০৩৪৬২
লোকসভা নির্বাচনকেন্দ্রবোলপুর
বিধানসভা নির্বাচনকেন্দ্রময়ূরেশ্বর
ওয়েবসাইটbirbhum.nic.in

কোটাসুর হলো পূর্ব ভারতে অবস্থিত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বর্ধমান বিভাগের অন্তর্গত বীরভূম জেলার রামপুরহাট মহকুমার ময়ূরেশ্বর ২ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের একটি আধুনিক ও বর্ধনশীল গ্রাম। এটি ময়ূরাক্ষী নদীর তীরে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

লোকমুখে প্রায়ই শোনা যায় যে, মহাভারতের সময়কালে এখানে রাজ দরবার এবং অসুরকুল উভয়েরই সহাবস্থান ছিলো এবং কোটাসুর ছিলো কৌটেশ্বর রাজত্বের জনপদ ও সদর দপ্তর। বর্তমান কোটাসুর নামটি প্রাচীন কৌটেশ্বর রাজ্যের নাম থেকে এসেছে বলে অনুমান করা হয়। নিকটস্থ ময়ূরেশ্বরের কুণ্ডলতলাকে কেন্দ্র করেই জড়িয়ে রয়েছে মহাভারতের একটি কাহিনীও। ময়ূরেশ্বর লাগোয়া বীরচন্দ্রপুর থেকে কোটাসুর পর্যন্ত এলাকা মহাভারতের একচক্রধাম হিসাবে পরিচিত। কথিত রয়েছে, অজ্ঞাতবাসের সময় কুন্তী-সহ পাণ্ডবেরা আশ্রয় নেয় লাগোয়া বীরচন্দ্রপুরে।[১]

ভূগোল[সম্পাদনা]

বীরভূম জেলার রামপুরহাট মহকুমার শহর, নগর ও অঞ্চলসমূহের অবস্থান মানচিত্র
M: পুরসভা/ শহর, CT: জনগণনা নগর, R: গ্রামাঞ্চল বা মফঃসল.
Owing to space constraints in the small map, the actual locations in a larger map may vary slightly

প্রশাসনিক ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

ময়ূরেশ্বর ২ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের প্রশাসনিক দপ্তরটি কোটাসুরে অবস্থিত।[২]

বীরভূম জেলা পরিষদের অন্তর্গত ময়ূরেশ্বর ২ ব্লকের কোটাসুর পঞ্চায়েত সমিতিভুক্ত একটি গ্রাম পঞ্চায়েত হলো কুণ্ডলা, কোটাসুর এরই অন্তর্ভুক্ত একটি গ্রাম।

অবস্থান[সম্পাদনা]

রামপুরহাট মহকুমার উত্তরদিকের অংশ নলহাটি সমতলভূমি নামক ক্ষুদ্র ভূতাত্ত্বিক অঞ্চলের অন্তর্গত। আবার মহকুমার দক্ষিণাংশ ব্রাহ্মণী-ময়ূরাক্ষী অববাহিকা নামক অপর এক ক্ষুদ্র ভূতাত্ত্বিক অঞ্চলের অন্তর্গত। এই অববাহিকাটি উত্তরে ব্রাহ্মণী নদী থেকে দক্ষিণে ময়ূরাক্ষী নদী পর্যন্ত বিস্তৃৃৃত। মহকুমাটির উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত সাঁওতাল পরগনা বিভাগের রাজমহল পাহাড়ের থেকে আসা জমির ঢাল স্পষ্টভাবে পরিলক্ষিত হয়। মানচিত্রে বাংলা-ঝাড়খণ্ড সীমানা অঞ্চল উদ্দিষ্ট এবং সীমানা বরাবর এই ভূমিরূপ লক্ষ্য করা যায়। মহকুমার পূর্বাংশে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যেরই মুর্শিদাবাদ জেলা রয়েছে। মানচিত্রে পদ্মা নদী এবং বাংলাদেশের সাথে আন্তর্জাতিক সীমানা স্পষ্ট। বীরভূম জেলা বা রামপুরহাট মহকুমার সাথে গঙ্গা নদীর সরাসরি কোনো যোগাযোগ নেই।[৩]

নগরায়ন[সম্পাদনা]

রামপুরহাট মহকুমার ৯৬.৬২ শতাংশ লোক গ্রাম্য জীবনযাপন করেন এবং ৩.৩৮ শতাংশ লোক শহরবাসী। কোটাসুর পুরোপুরিভাবে একটি গ্রাম।[৪]

জনতত্ত্ব[সম্পাদনা]

২০১১ সালের ভারতের জনগণনা অনুসারে কোটাসুরের মোট জনসংখ্যা ৪৩০২ জন, যার মধ্যে ২১৯৬ জন পুরুষ এবং ২১০৬ জন নারী। ছয় বৎসর অনুর্ধ্ব শিশু সংখ্যা ৪৮৬ জন যা জনসংখ্যার ১১.৩০ শতাংশ। মোট ছয় বৎসরোর্ধ্ব জনসংখ্যার ২৮৬৭ জন তথা ৭৫.১৩ শতাংশ সাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন[৫]

পরিবহন[সম্পাদনা]

মহম্মদ বাজার থেকে রানাঘাট অবধি বিস্তৃত ১১ নম্বর রাজ্য সড়কটি কোটাসুরের ওপর দিয়ে দীর্ঘায়িত।[৬]

নিকটবর্তী রেলওয়ে স্টেশন সাঁইথিয়া জংশনটি কোটাসুর থেকে ৭.৯ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।[৬]

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

কোটাসুরে একটি সরকার পরিচালিত উচ্চ মাধ্যমিক সহশিক্ষা বিদ্যালয় রয়েছে, যা কোটাসুর উচ্চ বিদ্যালয় নামে পরিচিত। এছাড়া একাধিক প্রাথমিক ও বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ও রয়েছে। পার্শ্ববর্তী গ্রামগুলি থেকে প্রচুর ছাত্র-ছাত্রী কোটাসুর উচ্চ বিদ্যালয় বিদ্যালাভের জন্য ভর্তি হয়।

নিকটবর্তী স্থান[সম্পাদনা]

মদনেশ্বর মন্দির[সম্পাদনা]

কোটাসুর গ্রামে মধ্যস্থলে অবস্থিত মদনেশ্বর মন্দিরটি এই স্থানের অন্যতম উল্লেখযোগ্য স্থাপত্য। মন্দিরের প্রধান অনুষ্ঠানগুলি হলো - "শিবরাত্রি", "জলাভিষেক", "চড়ক" ইত্যাদি।

আমবাগান[সম্পাদনা]

ময়ূরেশ্বর নদীর তীরে অবস্থিত আমবাগানটি নিকটবর্তী কোটাসুরের পর্যটন ও চড়ুইভাতির অন্যতম কেন্দ্র।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পর্যটকদের ভ্রমণক্ষেত্র হতে পারে কোটাসুর"। আনন্দবাজার পত্রিকা। ২১ জুলাই ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ 
  2. "District Census Handbook: Birbhum, Series 20, Part XII B" (PDF)Map of Birbhum with CD Block HQs and Police Stations (on the fourth page)। Directorate of Census Operations, West Bengal, 2011। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  3. "District Census Handbook Birbhum, Census of India 2011, Series 20, Part XII A" (PDF)Page 15: Physiography। Directorate of Census Operations, West Bengal। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০১৮ 
  4. "2011 Census - Primary Census Abstract Data Tables"West Bengal – District-wise। Registrar General and Census Commissioner, India। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০১৮ 
  5. "2011 Census – Primary Census Abstract Data Tables"West Bengal – District-wise। Registrar General and Census Commissioner, India। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুন ২০১৭ 
  6. Google maps