কার্সিনোমা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফুস্ফুসের কার্সিনোমা কোষ

কার্সিনোমা (ইংরেজি: Carcinoma) হচ্ছে আবরণী কোষ থেকে বিকশিত হওয়া এক প্রকার ম্যালিগন্যান্সি[১] দেহের ভেতরের বা বাইরের পৃষ্ঠতলে অবস্থিত কলা থেকে এ ধরনের ক্যান্সারের বিকাশ শুরু হয় আর এটি উৎপন্ন হয় এমন সব কোষ থেকে যেগুলো ভ্রূণের বিকাশের সময়ে এন্ডোডার্ম, মেসোডার্ম[২] বা এক্টোডার্ম জনন স্তর থেকে তৈরি হয়।[৩] যখন কোনো কোষের ডিএনএ ক্ষতিগ্রস্ত বা পরিবর্তিত হওয়ার ফলে কোষের অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধি শুরু হয়ে তা ম্যালিগন্যান্টে পরিণত হয় তখন তাকে কার্সিনোমা বলে।[৪]

রোগ নির্ণয়[সম্পাদনা]

বায়োপসি দ্বারা সুনির্দিষ্টভাবে কার্সিনোমা নির্ণয় করা সম্ভব। বায়োপসির জন্য প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহে ফাইন-নিডল অ্যাসপিরেশন প্রক্রিয়া বা অত্যন্ত সরু সূচের মাধ্যমে আক্রান্ত অংশ থেকে সংগৃহীত কলার নমুনা, কোর বায়োপসি বা শরীর থেকে অপসারিত হওয়া আক্রান্ত অংশের বায়োপসি, অথবা কোনো একক নোডের পুরোটা অংপসারণ করে নমুনা সংগ্রহ করা হয়।[৫] পরবর্তীতে সংগৃহীত নমুনা একজন রোগ বিশেষজ্ঞ কর্তৃক অণুবীক্ষনিক পরীক্ষার মাধ্যমে কলার আবরণী কোষের আণবিক, কোষীয়, এবং কলার গাঠনিক বৈশিষ্ট্যসমূহ নির্ণয় করা প্রয়োজন।

প্রকার[সম্পাদনা]

কিছু কার্সিনোমা সেগুলোর কোষ যে অঙ্গের অন্তর্ভুক্ত তার নাম অনুসারে নামকরণ করা হয়। এমন কার্সিনোমার মধ্যে রয়েছে হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা, বৃক্কের কোষের কার্সিনোমা, ইত্যাদি।

প্রাদুর্ভাব[সম্পাদনা]

যদিও সাধারণত ক্যান্সারকে বার্ধক্যকালীন রোগ হিসেবে ধরা হয়ে থাকে, তবে শিশুরাও ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারে।[৭] প্রাপ্তবয়স্কদের তুলনায় শিশুদের মধ্যে কার্সিনোমা জাতীয় ক্যান্সারের হার খুব-ই কম। কার্সিনোমায় আক্রান্তদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা শতকরা ১ ভাগেরও কম।[৮] ডিম্বাশয়ের কার্সিনোমার ক্ষেত্রে দুইটি প্রধান ঝুঁকি হচ্ছে বয়স এবং পারিবারিক ইতিহাস।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Lemoine, Nigel Kirkham, Nicholas R. (২০০১)। Progress in pathology। Greenwich Medical Media। পৃষ্ঠা 52। আইএসবিএন 9781841100500 
  2. 1942-, Weinberg, Robert A. (Robert Allan) (২৪ মে ২০১৩)। The biology of cancer (Second সংস্করণ)। আইএসবিএন 9780815345282ওসিএলসি 841051175 
  3. "Definition of Carcinoma"। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  4. Oxford English Dictionary, 3rd edition, s.v.
  5. Wagman LD (২০০৮)। "Principles of Surgical Oncology"। Pazdur R, Wagman LD, Camphausen KA, Hoskins WJ। Cancer Management: A Multidisciplinary Approach (11th সংস্করণ)। 
  6. Boyraz; Selcuk (সেপ্টেম্বর ২০১৩)। "Ovarian Carcinoma Associated with endometriosis": 211–213। ডিওআই:10.1016/j.ejogrb.2013.06.001পিএমআইডি 23849309 
  7. Kuriakose MA, Hicks WL, Loree TR, Yee H (আগস্ট ২০০১)। "Risk group-based management of differentiated thyroid carcinoma": 216–23। পিএমআইডি 11523714। ৫ মে ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  8. "Key Statistics for Childhood Cancers"www.cancer.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-০৬ 
  9. "Ovarian Cancer: An Overview"। American Family Physician। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

শ্রেণীবিন্যাস
  • উইকিমিডিয়া কমন্সে কার্সিনোমা সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন