কানিজ আলী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কানিজ আলী
জন্মজুলাই ১৯৮৫ (বয়স ৩৪)
বাসস্থানপশ্চিম লন্ডন, ইংল্যান্ড
জাতীয়তাবাংলাদেশি
জাতিসত্তাবাঙালি
নাগরিকত্বব্রিটিশ
শিক্ষাআইন
যেখানের শিক্ষার্থীঅক্সব্রিজ কলেজ
ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন
পেশামেকআপ শিল্পী, কলামলেখক
কার্যকাল২০০৭–বর্তমান
ওয়েবসাইটwww.kanizmakeup.com

কানিজ আলী (জন্মঃ জুলাই, ১৯৮৫) একজন বাংলাদেশি-ব্রিটিশ মেকআপ শিল্পী এবং ফ্রিল্যান্স বিউটি কলামলেখক। তিনি "কানিজমেকআপ" এবং "কানিজমেকআপ ট্রেইনিং একাডেমি"র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

আলী বাংলাদেশে জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মের কিছু পরেই তার পিতামাতা ইংল্যান্ডের লন্ডনে চলে যান এবং সেখানে পশ্চিম লন্ডনে বসবাস করেন। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে তিনি সবাই বড়।[১] একটি মুসলিম বাড়িতেই তারা বড় হন।[২]

১৩ বছর বয়সে আলী শিশুতোষ প্রকাশনায় কবিতা লেখেন এবং প্রতিযোগিতায় জয়লাভ করেন। মাধ্যমিক শিক্ষাকালীন তিনি ভালো গ্রেড পেতেন।[৩]

অক্সব্রিজ কলেজে আলী পূর্ণাঙ্গরূপে পড়াশোনার পাশাপাশি একটি ফাউন্ডেশন কোর্সও করেন।[৩] ২০০৭ সালে তিনি ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন থেকে[১] এলএলবি ল কোর্স পাস করেন।[৩] পরবর্তীতে তিনি লন্ডনের চ্যান্সেরি লেন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক আইন ফার্ম বার্ড অ্যান্ড বার্ডে কাজ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আলী কর্মজীবনে আইনজীবী হতে চাইলেও পরবর্তীতে কসমেটিকস ক্ষেত্রে নিজের কাজের কিছু প্রকাশনার পর এ দিকেই ক্যারিয়ার গঠন করার প্রতি ঝোঁকেন। একই সময়ে তিনি ফেনচার্চ ক্লোথিং এর সাথেও তিনি কাজ করার সুযোগ পান।[১]

এশিয়ানা, এশিয়ানা ওয়েডিং, এশিয়ান ম্যাগাজিন, এশিয়ান ব্রাইড, ফ্যানফেয়ার, এশিয়ান ওয়েডিং ডিকশনারি, রেমিডি, শাউট, ইস্টার্ন আই, দ্য মুসলিম পেপার এবং লন্ডন বাংলাসহ নানা ম্যাগাজিনে তাঁর কাজগুলো প্রকাশিত হয়।[১]

২০০৭ সালের অক্টোবরে আলী "কানিজমেকআপ" প্রতিষ্ঠা করেন, যা বিভিন্ন সামগ্রী উৎপাদনসহ নানাবিধ প্রকল্প গ্রহণ করে থাকে।[৩]

২০০৯ সালের অক্টোবরে তিনি "কানিজমেকআপ ট্রেইনিং একাডেমি" প্রতিষ্ঠা করেন। অনেকেই তার কাছ থেকে মেকআপ বিষয়ক পরামর্শ চাইতেন, তাদের জন্যেই তিনি এ একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি সেখানে বছরজুড়েই কর্মশালা নিয়ে থাকেন। সেইসাথে মেকআপ, ফ্যাশন এবং বধূসাজ বিষয়েও শিখিয়ে থাকেন।[৩]

মে, ২০১০ সালে তিনি "কানিজমেকআপ টীম" নামক মেকআপ শিল্পীদের একটি দল গঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন। এর মাধ্যমে নতুন শিল্পীরা প্রধান ফ্যাশন ক্যাটওয়াক ও অনুষ্ঠানের বাইরেও তাদের দক্ষতা বাড়াতে পারেন। তবে তার ব্যস্ততার কারণে বর্তমান এ দলটি তার কিছু প্রকল্প দেখাশোনা করে। তার একটি মডেল ও চিত্রগ্রাহকদেরও দল রয়েছে যা তার জন্য কাজ করে।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

২০০৮ সালের নভেম্বর মাসে আলী এশিয়ান স্টাইল অ্যাওয়ার্ডে "দ্য বেস্ট মেকআপ আর্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড" এর জন্য মনোনীত হন।[১] ২০১১ সালের নভেম্বরে তিনি লন্ডনের পার্ক লেনের লন্ডন হিল্টন পার্কে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক এশিয় ফ্যাশন পুরস্কারে "সেরা মেকআপ শিল্পী" বিভাগের পুরস্কার লাভ করেন।[৪][৫]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. টেইলর, জ্যাক (২৯ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "The Make-up of Kaniz Ali" (ইংরেজি ভাষায়)। শুট কনফিডেনটিয়াল। ২০ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  2. Naseem, Aliya (আগস্ট ২০১০)। "The Make-up of Kanis Ali" (ইংরেজি ভাষায়)। Shout Confidential। পৃষ্ঠা 43। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  3. Chowdhury, Rumki (২০ মে ২০১০)। "An interview with Kaniz Ali" (ইংরেজি ভাষায়)। The Muslim Paper। ২০ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  4. Chrysanthou, Gina (২৫ নভেম্বর ২০১১)। "International Asian Fashion Awards" (ইংরেজি ভাষায়)। Pukka PR। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  5. "International Asian Fashion Awards 2011 Winners" (ইংরেজি ভাষায়)। এশিয়ান ওয়েডিং আইডিয়াস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]