ওয়ার্নিং (২০১৫-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ওয়ার্নিং
পরিচালকসাফি উদ্দিন সাফি
প্রযোজকটপি খান
রচয়িতাআবদুল্লাহ জহির বাবু
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারশওকত আলী ইমন
চিত্রগ্রাহকতপন আহমেদ
সম্পাদকতৌহিদ হোসেন চৌধুরী
প্রযোজনা
কোম্পানি
ম্যাপল ফিল্মস
পরিবেশকজাজ মাল্টিমিডিয়া
মুক্তি
  • ১ মে ২০১৫ (2015-05-01)
দৈর্ঘ্য১৩৫ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা

ওয়ানিং সাফি উদ্দিন সাফি পরিচালিত ২০১৫ সালের অ্যাকশন-থ্রিলার চলচ্চিত্র। ম্যাপল ফিল্মসের ব্যানারে ছবিটি প্রযোজনা করেছেন টপি খান। এটি টপি খান প্রযোজিত প্রথম চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি পরিবেশনা করেছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন আবদুল্লাহ জহির বাবু। এতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ, মাহিয়া মাহী,[১] মাসুম পারভেজ রুবেল,[২] মিশা সওদাগর প্রমুখ।

চলচ্চিত্রটি ৯ জানুয়ারি, ২০১৫ মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও বিশ্ব ইজতেমা২০১৫ ক্রিকেট বিশ্বকাপ এর কারণে সময় পিছিয়ে ১ মে, ২০১৫ মুক্তি দেয়া হয়।[৩]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

পাচারকারীদের হাত থেকে শিশুদের উদ্ধার করে ডিসিডিবি মুরাদ হাসান। এরই মধ্যে থানায় ফ্যাক্স আসে ডঃ মাসুদকে কিডন্যাপ করা হবে। কিডন্যাপারের পিছু নিয়ে মুরাদ ঢুকে যায় চ্যানেল এক্সের অফিসে। সেখানে সে টিভি রিপোর্টার জিসানকে পাকড়াও করে। জিসান তাকে উল্টো ক্যামেরার সামনের কিডন্যাপার সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় জিসানের এক সহকর্মী দেখান চ্যানেল ওয়াইতে কিডন্যাপ হওয়া ডঃ মাসুদকে দেখাচ্ছে, যেখানে মাসুদ তার পাপকর্মের কথা স্বীকার করে। এই তথ্য ধারণ করে চ্যানেল ওয়াইয়ের রিপোর্টার তৃণা হাসান।

কিছুদিন পর আবার ওয়ার্নিং আসে ইঞ্জিনিয়ার বেলালকে কিডন্যাপ করা হবে। তার অফিসে এবং বাসায় পূর্ণ পুলিশি নিরাপত্তা দেওয়া হয়। তবুও কিডন্যাপ হয়ে যায় বেলাল। সিসিটিভি ফুটেজ থেকে পাওয়া ছবি থেকে বেড়িয়ে আসে আসল কিডন্যাপারের ছবি। এবং সেই কিডন্যাপার হল টিভি রিপোর্টার জিসান। মুরাদ তৎক্ষণাৎ জিসানের বাড়ি পৌঁছে তাকে ধরার জন্য কিন্তু তার বোন তৃণার কারণে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় জিসান।

ভুমিকম্পে এক দালান ধ্বসে জিসান তার বাবা ও বোনকে হারায়, মা হয়ে যায় মানসিক প্রতিবন্ধী। সে তখন এর পিছনে থাকা লোকদের খুঁজতে গিয়ে উস্তাগারের নাম জানতে পারে এবং এর সাথে সম্পর্কিত ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, জমির দালাল সকলকে খুঁজে বের করে তাদের শাস্তির বিধানের লক্ষ্যে একের পর এক কিডন্যাপ করতে থাকে।

কুশীলব[সম্পাদনা]

  • আরিফিন শুভ - জিসান, চ্যানেল এক্সের টিভি রিপোর্টার
  • মাহিয়া মাহী - তৃণা হাসান, চ্যানেল ওয়াইয়ের টিভি রিপোর্টার
  • মাসুম পারভেজ রুবেল - ডিসিডিবি মুরাদ হাসান, এন্টি কিডন্যাপিং স্কোয়াড ইনচার্জ
  • মিশা সওদাগর - উস্তাগার
  • শিবা সানু - জাহাঙ্গীর
  • আবদুল্লাহ সাকী - ডঃ মাসুদ
  • আবু সাঈদ খান - ইঞ্জিনিয়ার বেলাল
  • শিমুল খান - মেরাজ, পুলিশ ইন্সপেক্টর
  • কাজী হায়াৎ - জিসানের বাবা
  • রেবেকা - জিসানের মা
  • পিরজাদা শহীদুল হারুন - চ্যানেল ওয়াইয়ের মালিক
  • সোহেল রশিদ - মিঃ সাজ্জাদ
  • জাদু আজাদ
  • সুলতান - সুলতান
  • জুঁই - জুঁই
  • চিকন আলী - মামুন
  • বিপাশা কবির - আইটেম গানে বিশেষ উপস্থিতি

নির্মাণ[সম্পাদনা]

অভিনয়শিল্পী নির্বাচন[সম্পাদনা]

অগ্নি ছবির সফলতার পর ম্যাপল ফিল্মস লিমিটেড আরিফিন শুভ, মাহিয়া মাহীমিশা সওদাগরদের নিয়ে ওয়ার্নিং চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে আগ্রহী হন। তবে অগ্নির সাথে এই চলচ্চিত্রের কোন যোগসূত্র নেই। দেশা: দ্য লিডার এর পর এই চলচ্চিত্রে দ্বিতীয়বারের মত মাহীকে টিভি রিপোর্টারের ভূমিকায় দেখা যায়।[৩]

শুটিংয়ের স্থান[সম্পাদনা]

ছবির বেশির ভাগ অংশের শুটিং হয় ঢাকায়। কিছু অংশ কক্সবাজা ও সিলেটে ধারণ করা হয়। "ফেসবুক" ও "শুনো তুমি" গান দুটি সম্পূর্ণ কক্সবাজারে ধারণ করা হয়। ১০ ভাগের মত শুটিং হয় থাইল্যান্ডে।

মুক্তি[সম্পাদনা]

ওয়ার্নিং চলচ্চিত্রে মুক্তির তারিখ নির্ধারণ করা হয় ২০১৪ সালের ঈদুল আযহা। কিন্তু মাহীর আরেকটি ছবি দেশা: দ্য লিডার সেসময়ে মুক্তির কথা থাকায় মাহীর অনুরোধে তারিখ পিছানো হয়। পরে তারিখ নির্ধারিত হয় ৯ জানুয়ারি, ২০১৫।[৪] কিন্তু বিশ্ব ইজতেমা২০১৫ ক্রিকেট বিশ্বকাপ-এর জন্য সময় পিছিয়ে ১ মে, ২০১৫ চলচ্চিত্রটি মুক্তি দেওয়া হয়। ছবিটি সারাদেশের ৮০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়।[৫]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

ওয়ার্নিং চলচ্চিত্রের সঙ্গীত
শাফিন আহমেদ, নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি, মাহফুজ আনাম জেমস, দিলশাদ নাহার কনা, দিনাত জাহান মুন্নী, রুপম কর্তৃক চলচ্চিত্রের সঙ্গীত
মুক্তির তারিখ৬ জানুয়ারি ২০১৫ (2015-01-06)
শব্দধারণের সময়২০১৪
ঘরানাচলচ্চিত্রের সঙ্গীত
দৈর্ঘ্য৩১:৩৯
সঙ্গীত প্রকাশনীটাইগার মিডিয়া লিমিটেড
প্রযোজকশওকত আলী ইমন

ওয়ার্নিং চলচ্চিত্রের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন শওকত আলী ইমন। গীত রচনা করেছেন কবির বকুল। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন শাফিন আহমেদ, নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি, মাহফুজ আনাম জেমস, দিলশাদ নাহার কনা, দিনাত জাহান মুন্নী, রুপম। চলচ্চিত্রে ছয়টি গান রয়েছে। জেমসের গাওয়া "এতো কষ্ট" গানটি ২০১৪ সালের ৮ ডিসেম্বর ইউটিউবে প্রকাশিত হয়। কনা ও রুপমের গাওয়া "ফেসবুক" গানটি ২০১৪ সালের ১৭ ডিসেম্বর[৬] এবং শাফিন ও ন্যান্সির গাওয়া "শুনো তুমি" গানটি ২০১৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর ইউটিউবে প্রকাশিত হয়। ওয়ার্নিং চলচ্চিত্রের অডিও প্রকাশিত হয় ৬ জানুয়ারি, ২০১৫।[৭]

গানের তালিকা[সম্পাদনা]

নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পী(রা)দৈর্ঘ্য
১."এতো কষ্ট (কান্নার কবিতা)"মাহফুজ আনাম জেমস৬:১৮
২."শুনো তুমি"শাফিন আহমেদ, নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি৫:০৪
৩."ফেসবুক"দিলশাদ নাহার কনা, রুপম৪:৫২
৪."এক্সকিউজ মি"দিনাত জাহান মুন্নী, তাসিফ৫:০৪
৫."হায় হুইস্কি"রোমা, সায়মন৫:১৮
৬."শুনো তুমি (একক)"শাফিন আহমেদ৫:০৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মঈনুদ্দীন, অভি (৩০ এপ্রিল ২০১৫)। "মাহি-শুভর রসায়ন"দৈনিক যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  2. শান্ত, আমিনুল ই (৪ আগস্ট ২০১৪)। "বড় মনের পরিচয় দিলেন রুবেল"। রাইজিংবিডি ডট কম। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  3. মঈনুদ্দীন, অভি (এপ্রিল ৩০, ২০১৫)। "মাহিয়া মাহির সতর্কবার্তা"যায়যায়দিন। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  4. "৯ জানুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে না ওয়ার্নিং"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। ১ মে ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  5. "সারাদেশে শুভ-মাহি"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। ১ মে ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  6. "প্রকাশ হলো 'ফেসবুক' (ভিডিও)"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। ১৭ ডিসেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  7. "'ওয়ার্নিং' এর অডিও প্রকাশ"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। ৬ জানুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]