উবুখ ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উবুখ
/tʷaxəbza/
দেশোদ্ভবসার্কেশিয়া
অঞ্চলমানিয়াস, বালুকেসির
বিলুপ্ত7 October 1992, with the death of তৌফিক এসেঞ্চ
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩uby
গ্লোটোলগubyk1235[১]
Caucasic languages.svg
  উবুখ (বিলুপ্ত)
এই নিবন্ধটিতে আইপিএ ফনেটিক চিহ্নসমূহ রয়েছে। সঠিক পরিবেশনার সমর্থন ছাড়া, আপনি প্রশ্ন বোধক চিহ্ন, বক্স, অথবা অন্যান্য চিহ্ন ইউনিকোড অক্ষরের পরিবর্তে দেখতে পারেন।

উবুখ বা উবুখ একটি বিলুপ্ত উত্তরপশ্চিমী ককেশীয় ভাষা যা এক সময় উবুখদের(যারা মূলত ১৮৬০ সালের দিকে তুরস্কের দিকে বাণিজ্য করতে যাওয়ার আগে কৃষ্ণসাগরের পূর্ব উপকূলে বাস করতো) মুখের ভাষা ছিলো।[২]

উবুখ একটি এরগেটিভ এবং অভিশ্লেষ্য ভাষা, সাথে আছে বহুপুরুষী ক্রিয়ারূপ এবং ভারী সংখ্যায় স্বতন্ত্র ব্যঞ্জন কিন্তু মাত্র দুটো ধ্বনিরূপী স্বরধ্বনি আছে। ৮০টি ব্যঞ্জন নিয়ে গড়ে ওঠা ভাষাটি পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ ব্যঞ্জনবহুল ভাষা যাতে কোনো ক্লিক ব্যঞ্জন নেই। [৩]

উবুখ নামটি এসেছে Убыхыбзэ (/wəbəx/)(ওয়াবাখ) থেকে, নামটি আব্জাখ আবিগে ভাষারভাষাগত সাহিত্যে এটি বিভিন্ন নামে পরিচিত। যেমন উবিখ, উবুহ(তুর্কীতে), এবং উউবিখ(ফরাসি); এবং পেখি (উবুখ /tʷaχə/ থেকে), যার জার্মানীকৃতরূপ পাখি

প্রধান বৈশিষ্ট্যসমূহ[সম্পাদনা]

উবুখ ভাষা বর্ণিত বৈশিষ্ট্যসমূহ দ্বারা চেনা যায়, যার কিছু বৈশিষ্ট্য উত্তরপশ্চিমী ককেশীয় ভাষার সাথে মিলে যায়।

  • এই ভাষায় সকর্মক বাক্যে কর্তা এবং অকর্মক বাক্যের কর্তায় কোনো অন্বিত পার্থক্য তৈরী করেনা। স্প্লিট এরগেটিভিটি কিছু ক্ষেত্রে ঘটে থাকে।
  • একদলমাত্রিক এবং দ্বিদলমাত্রিক মূলের শব্দগুলি ব্যবহার অভিশ্লেষ্য, কিন্তু একক রূপমূলতাত্ত্বিক শব্দে মাঝেমাঝে নয়টি বা তার অধিক দলমাত্রিক শব্দ তৈরী হয়।

/aχʲazbatɕʼaʁawdətʷaajlafaqʼajtʼmadaχ/(আখিয়াজবাচ'আরাওদাতোয়াআজলাফাক'আজত'মাদাখ)(যদি তুমি আবারও তাদের জন্য আমার কাছ থেকে তাকে সরিয়ে নিতে না পারো)। আলাদা শব্দ একীভূত হওয়াটা খুব কম ঘটে থাকে।

  • এর খুবই সাবলীল নামপদের ব্যবহার আছে, যেখানে সরাসরি কারকে চারটি কর্তৃ কারক এবং সবসময় বচন তৈরী করেনা।
  • এর ক্রিয়াগত সংগতি কিছুটা জটিল। ইংরেজি ক্রিয়া অবশ্যই কর্তার সাথে সংগতিপূর্ণ হতে হবে, উবুখ ক্রিয়া অবশ্যই কর্তা, সরাসরি কর্ম এবং অসরাসরি কর্মে সংগতিপূর্ণ এবং অপাদান কারক অবশ্যই ক্রিয়ায় চিহ্নিত থাকবে।
  • ৮৪টি ব্যঞ্জন সহ (এদের মধ্যে ৪টি শুধু বিদেশী শব্দে ব্যবহার হয়) ভাষাটি ধ্বনিতাত্ত্বিকভাবেও বেশ জটিল। একটি ভাষাগত বিশ্লেষণ অনুযায়ী ভাষাটির মাত্র দুটি ধ্বনিতাত্ত্বিক স্বর আছে, কিন্তু এই স্বরগুলির আছে বড় সংখ্যায় অ্যালোফোন কারণ ব্যঞ্জনগুলি ব্যাপকভাবে তাদের সাথে মিশে আছে।

ধ্বনিতত্ত্ব[সম্পাদনা]

উবুখের ৮৪টি ব্যঞ্জন আছে, যা ক্লিক ব্যঞ্জন ছাড়া ভাষাগতভাবে একটি রেকর্ড এবং এর স্বরধ্বনি দুইটি। এদের মধ্যে চারটি ব্যঞ্জন শুধু ঋণকৃত শব্দে ব্যবহার হয়। ব্যঞ্জনসমূহের স্পষ্ট উচ্চারণের জন্য ৯টি পৃথক স্থান রয়েছে এবং অতিরিক্ত ব্যঞ্জনের জন্য আলাদা স্থান থেকে উচ্চারিত হয়, যেমন উবুখের ২০টি অন্তস্থ স্বর আছে। উবুখের তিনটি পোস্টাভিওলার ব্যঞ্জন আছে। এগুলি হলো অগ্রস্থ, পার্শ্বস্থ এবং রুদ্ধ পার্শ্বস্থ। কিন্তু এতো কিছু ছাড়াও মাত্র দুটি স্বর বিদ্যমান আছে। এই ভাষায় অ্যালোফোনির প্রভাব অনেক।

ব্যাকরণ[সম্পাদনা]

বাক্যগঠন[সম্পাদনা]

উবুখ একটা অভিশ্লেষ্যিক এবং আবৃত্তিক ভাষা। /ʃəkʲʼaajəfanamət/ (আমরা ফিরে যেতে সক্ষম নই), /awqʼaqʼajtʼba/ (যদি তুমি এটা আগে বলতে)। উবুখ মাঝেমাঝে শাব্দিক রূপে অনেক সংক্ষিপ্ত হয়ে যায়।

উবুখে বিশেষ্য এবং ক্রিয়ার সীমা কিছুটা অস্পষ্ট। যে কোনো বিশেষ্য স্থাবর ক্রিয়া হিসেবে ব্যবহার হয়। যেমন /məzə/ 'শিশু', /səməzəjtʼ/ 'আমি শিশু ছিলাম'। এছাড়াও বিভিন্ন ক্রিয়ামূল সাধারণভাবে বিশেষ্য হয়ে ব্যবহার হয়। (/qʼa/ 'বলা', /səqʼa/ 'আমি যা বলি')।[৪][৫]

বিশেষ্য[সম্পাদনা]

উবুখে বিশেষ্য অনেক সাবলীল। উবুখে তিনটি বিশেষ্য রয়েছে (অথবা: এরগেটিভ কেসের ক্ষেত্রে দুটি ভিন্ন ক্রিয়ায় দুটি ধ্বনিরূপ রয়েছে, যে জন্য চারটি বিশেষ্যও উল্লেখ করা হয়।)।

  • সরাসরি বা আবশ্যিক কারকগুলি বাহকমূলের সাথে চিহ্নিত থাকে, এটি অকর্মক ক্রিয়ায় কর্তা এবং সকর্মক ক্রিয়ায় কর্মকে শনাক্ত করে। (উদা: /tət/ 'a man')
  • অথবা-এরগেটিভ কেস চিহ্নিত থাকে /n/ এর ভিতরে; এটা সকর্মক ক্রিয়াতে কর্তাকে শনাক্ত করে, পূর্বক্রিয়ার উদ্দেশ্য, পরোক্ষ কর্তা যা অন্যান্য অনুসর্গ গ্রহণ করেনা। (məzən/ '(to) a child')
  • অধিকরণ কারক /ʁa/ তে চিহ্নিত থাকে, যা ইংরেজি in, at বা on এর সম্পূরক।

ভাষাবিদ দুমেজিল অপাদানকে কারক হিসেবে চিহ্নিত করেন। আরও একজোড়া উর্ধ্বান্বয়ী অব্যয় -/laaq/ ('প্রতি') এবং -/ʁaafa/ ('জন্য')কে সম্প্রদান কারক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে (e.g. /aχʲəlaaq astʷadaw/ 'আমি এটি রাজকুমারের কাছে পাঠিয়ে দিবো'), কিন্তু তাদের কারকগুলি আরও অগণিত।

বিশেষ্য লিঙ্গান্তরে পার্থক্য সৃষ্টি করেনা। নির্দিষ্ট পদাশ্রিত নির্দেশক হিসেবে /a/ (e.g. /atət/ 'মানুষটি') ব্যবহার হয়। অনির্দিষ্ট পদাশ্রিত নির্দেশক ইংরেজির মতো ব্যবহার হয়না। তবে /za/-(root)-/ɡʷara/ (আক্ষরিক 'এক'-(মূলীয়)-'নির্দিষ্ট') ফ্রেঞ্চ un এবং টার্কিশ bir এর মতো ব্যবহার হয়।(e.g. /zanajnʃʷɡʷara/ ('সেই যুবকটি')।

বচন শুধুমাত্র এরগেটিভ কেসে বিশেষ্যে ব্যবহার হয় /na/ যুক্ত হয়ে। বচনের ক্ষেত্রে মূল যুক্তি সম্পূরক ক্রিয়ামূল (/akʷən blas/ 'সে গাড়ীতে' বনাম /akʷən blaʒʷa/ 'তারা গাড়ীতে')) কিংবা ক্রিয়া অনুসর্গের (akʲʼan/ ('সে যায়'), /akʲʼaan/ ('তারা যায়')) দ্বারা বিবেচিত হয়। আশ্চর্যজনকভাবে দ্বিতীয় পুরুষের বহুবচনে উপসর্গ /ɕʷ/ সকল বহু উপসর্গের প্রকাশ করে। আরও

  • আবশ্যিক: /ɕʷastʷaan/ ('আমি তোমাকে তার সব দিয়েছি')
  • অথবা: /səɕʷəntʷaan/ ('সে আমাকে তোমার সব দিয়েছে')
  • এরগেটিভ: /asəɕʷtʷaan/ ('তোমরা সবাই আমাকে এগুলি দিয়েছো')

উল্লেখ্য, সর্বশেষ বাক্যে এটা/-a/ এর বহুবচন অস্পষ্ট, এজন্য 'আমি এটা দিলাম' না হয়ে অর্থ দাঁড়ায় 'আমি এগুলি দিলাম'।

বিশেষণগুলি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই স্বাভাবিকভাবে বিশেষ্যের সাথে অনুসর্গ যুক্ত হয়ে গঠিত হয়, যেমন /tʃəbʒəja/ ('মরিচ') সাথে /pɬə/ ('লাল') হয়েছে /tʃəbʒəjapɬə/ ('লাল মরিচ')। বিশেষণসমূহের শব্দরূপ হয়না।

পদান্বয়ী অব্যয়ের ব্যবহার খুবই কম হয়। অধিকাংশই অধিকরণ শব্দার্থিক, এছাড়াও কিছু অ-স্থানীয় পূর্বক্রিয়ায় সাথে গৃহীত হয়। যেমন: /asχʲawtxqʼa/ ('তুমি এটা আমার জন্য লিখেছিলে')। যদিও কিছু অব্যয় রয়েছে, যেমন: /səʁʷa səɡʲaatɕʼ/ ('আমার মতো'), /aχʲəlaaq/ ('রাজকুমারের কাছে')।

ক্রিয়া[সম্পাদনা]

অতীতকাল, বর্তমানকাল এবং ভবিষ্যৎকালের জন্য আলাদা ক্রিয়ারূপ রয়েছে (অনুসর্গ -/qʼa/ এবং -/awt/ অতীত এবং ভবিষ্যৎকাল প্রকাশ করে) এবং অসম্পূর্ণ ক্রিয়া পাওয়া যায় (-/jtʼ/, যেটা ক্রিয়ায় কালের অনুসর্গে মিশে)। চলমান এবং স্থির ক্রিয়াসমূহ আরবির মতো পরস্পর বিপরীত এবং ক্রিয়া সমূহ নামেমাত্র আলাদা। নির্দিষ্ট বিষয়ক ণিজন্তসমূহ তেমন দেখা যায়না। সংযোগকারী অব্যয় সমূহ /ɡʲə/ ('এবং') এবং /ɡʲəla/ ('কিন্তু') সাধারণ ক্রিয়া অনুসর্গে দেয়া থাকে, কিন্তু এতে ক্ষুদ্র অংশ সংশ্লিষ্ট বিষয় দেয়া থাকে।

  • -/ɡʲə/ 'এবং' (মুক্ত অংশ /ve/, তুর্কী থেকে ঋণকৃত);
  • -/ɡʲəla/ 'কিন্তু' (মুক্ত অংশ /aʁʷa/)

সর্বনাম সংক্রান্ত শব্দগুলিও জটিল ক্রিয়ার অংশ, যা পূর্বক্রিয়ায় সাথে যুক্ত থাকে -/χʲa/,কিন্তু একটি শাব্দিক ক্রিয়া সাধারণভাবে প্রদর্শিত হয়না যেই ক্রিয়ায় তিনটি উপসর্গের সন্ধি থাকে।

লিঙ্গ শুধুমাত্র মধ্যমপুরুষে ব্যবহার হয় এবং তা বক্তার কথায় প্রকাশ পায়। স্ত্রীবাচক মধ্যমপুরুষ -/χa/ দ্বারা সূচিত হয়, যা অন্যান্য সর্বনামীয় উপসর্গের ন্যায় আচরণ করে, যেমন: /wəsχʲantʷən/ ('সে তোমাকে (এটা) দিয়েছে [সাধারণ; লিঙ্গ-নিষ্ক্রিয়] আমার জন্য') কিন্তু তুলনায় but compare /χasχʲantʷən/ 'সে তোমাকে [এটা] দিয়েছে [স্ত্রীবাচক] আমার জন্য').

বিশেষণের বিশেষণ[সম্পাদনা]

কিছু ক্রিয়া বিশেষণের বাংলা এবং উবুখের তুলনা:

  • /asfəpχa/ ('আমার এটা পান করা প্রয়োজন')
  • /asfəfan/ ('আমি এটি পান করতে পারি')
  • /asfəɡʲan/ ('আমি এটি সবসময় পান করি')
  • /asfəlan/ ('আমি এটি সম্পূর্ণ পান করছি')
  • /asfətɕʷan/ ('আমি এটি অনেক পান করছি')
  • /asfaajən/ ('আমি এটি আবার পান করেছি')

প্রশ্নবোধক[সম্পাদনা]

ক্রিয়ায় উপসর্গ বা অনুসর্গ যুক্ত হয়ে ব্যাকরণগতভাবে প্রশ্নবোধক বাক্যগঠন হয়:

  • হ্যাঁ বা না বোধক প্রশ্নে -/ɕ/ যুক্ত হয়; /wana awbjaqʼaɕ/? ('তুমি কি দেখেছো?')
  • জটিল প্রশ্নে -/j/ যুক্ত হয়; /saakʲʼa wəpʼtsʼaj/? ('তোমার নাম কী?')

অন্যান্য প্রশ্নবোধক বাক্য উচ্চারণকে নির্দেশ করে। 'কোথায়' এবং 'কী' জটিল ক্রিয়ায় চিহ্নিত। যেমন: /maawkʲʼanəj/ ('তোমরা কোথায় যাচ্ছো?'), /saawqʼaqʼajtʼəj/ ('তুমি কী বলেছিলে?')

পূর্বক্রিয়া এবং নির্ধারক[সম্পাদনা]

অনেক স্থানীয়, পদান্বয়ী অব্যয় এবং অন্যান্য কাজ প্রদত্ত হয় পূর্বক্রিয়ায় অংশ দ্বারা, এবং এখানে উবুখ দেখায় বৈশিষ্ট্যময় জটিলতা। দুই ধরণের পূর্বক্রিয়া উবুখে বর্তমান: নির্দেশক এবং পূর্বক্রিয়া। সংখ্যার দিক হতে পূর্বক্রিয়া বেশ কম এবং মূলত স্থান এবং দিক নির্দেশ করে। নির্দেশকের মাত্রাও অনেক কম, কিন্তু শ্রেণীগুলি অনেক উন্মুক্ত। কিছু নির্দেশকে /tʃa/ এবং /ɬa/ যুক্ত হয়।

সাধারণ স্থানবাচকের জন্য পূর্বক্রিয়ার সম্ভাবনা যুক্ত হয়। যেগুলি:

  • উপরে এবং স্পর্শী
  • উপরে এবং অস্পর্শী
  • নীচে এবং স্পর্শী
  • নীচে এবং অস্পর্শী
  • পাশে
  • মধ্য দিয়ে
  • অভেদ্যের ভিতর
  • সমতলে
  • অসমতল কিংবা উল্লম্ব তল
  • সগোত্রীয়
  • সামনের দিকে
  • উর্ধ্বগামী
  • নিম্নগামী
  • নলাকার
  • বদ্ধাকার

এখানে আরও আলাদা নির্দেশক পূর্বক্রিয়া আছে /j/-, যা ক্রিয়া জটিলতায় নিজস্ব জায়গা নিয়ে থাকে। যদিও এই পূর্বক্রিয়াসমূহ বাক্যকে অর্থবোধক করতে সাহায্য করে। পূর্বক্রিয়া /jtɕʷʼaa/- উল্লেখ করে 'পৃথিবীর উপরে' বা 'পৃথিবীতে', উদাহরণস্বরূপ: /ʁadja ajtɕʷʼaanaaɬqʼa/ ('তারা তার শরীরকে প্রোথিত করেছিলো'; আক্ষরিক, "তারা তার শরীর পৃথিবীতে রাখলো")। আরও, পূর্বক্রিয়া /faa/- কর্মসমাপ্তিকে উল্লেখ করে: /amdʒan zatʃətʃaqʲa faastχʷən/ ('আমি আগুনের বাইরে একটি তরবারি নিলাম').

লেখনপদ্ধতি[সম্পাদনা]

উবুখের জন্য লেখনপদ্ধতি প্রস্তাবিত আছে,[৬] কিন্তু কোনো প্রমিত লেখন পদ্ধতি এখনো হয়নি।

শব্দভাণ্ডার[সম্পাদনা]

নিজস্ব শব্দভাণ্ডার[সম্পাদনা]

উবুখ অক্ষরসমূহের সিভি, ভিসি এবং সিভিসি হওয়ার প্রবণতা রয়েছে। ব্যঞ্জনগুচ্ছ আবখাজ এবং জর্জীয় ভাষাগুলির মতো বিস্তৃত নয়, যা দ্বিতীয় শর্তে অনেক বৃদ্ধি পায়। তৃতীয় শর্তীয় শব্দগুচ্ছ দুটো শব্দে বর্তমান, /ndʁa/ ('সূর্য') এবং /psta/ ('স্ফীত হওয়া'), কিন্তু তা আদুগ থেকে ঋণকৃত শব্দ এবং আগেরটা একাকীতে /nədʁa/ উচ্চারণ হয়। সমাস অন্যান্য উত্তরপশ্চিমী ককেশীয় ভাষাগুলির মতো উবুখেও অনেক বড় ভূমিকা রাখে। এতে বাংলার মতো কোনো সম্পূরক ক্রিয়া নেই, যেমন: "আমি তোমাকে ভালোবাসি" কে /tʂʼanə wəzbjan/ ('আমি তোমাকে ভালো দেখি') বলা হয়।

কিছুকিছু ক্ষেত্রে পুনরাবৃত্তি ঘটে থাকে, যা প্রায়ই ধ্বন্যাত্মক মানের সাথে সম্পৃক্ত। যেমন: (/χˤaχˤa/, 'পরিবহন[আঁচড়ানো]' এসেছে /χˤa/ 'পালিশ করা' হতে; /kʼərkʼər/, 'মুরগীর মতো ডাকা' [আবুগ থেকে ঋণকৃত]); এবং /warqwarq/, 'ব্যাঙের মতো ডাকা')।

মূল এবং এবং এর অংশগুলি এক ধ্বনিগুচ্ছে সংক্ষেপিত। /wantʷaan/ (তারা তাকে তুমি দেয়), উদাহরণস্বরূপ ছয়টি আলাদা ধ্বনিগুচ্ছ আলাদা রূপমূলে বাহিত।

  • /w/ - দ্বিতীয় পরম একক
  • /a/ - তৃতীয় একক সম্প্রদান
  • /n/ - তৃতীয় এরগেটিভ
  • /tʷ/ - দেয়া
  • /aa/ - এরগেটিভ বহুবচন
  • /n/ - বর্তমান কাল

যদিও, কিছু শব্দ সপ্ত বর্ণী হয় (তারপরও সেগুই মিশ্র শব্দ); /ʂəqʷʼawəɕaɬaadətʃa/ (সিঁড়ি)।

অপভাষা ও বাগধারা[সম্পাদনা]

অন্যান্য ভাষাগুলির মত উবুখও বাগধারায় পরিপূর্ণ। /ntʷa/ ('দরজা') শব্দটি ম্যাজিস্ট্রেট, আদালত কিংবা সরকারের প্রতিশব্দ। উবুখে কথ্যরূপ অন্যভাষাগুলি থেকে বেশী দেখা যায়, প্রতিনিধিত্বকারী নিয়মগুলি উত্তরপশ্চিমী ককেশীয় ভাষায় ক্রমানুসারে জমাটবদ্ধভাবে সাজানো থাকে। আগেও বলা হয়েছে "আমি তোমাকে ভালোবাসি"কে "আমি তোমাকে ভালো দেখি" বলা হয়, তেমনি "আমাকে দয়া করুন" কে "আমার হৃদয় কর্তন করুন" বলা হয়। /wərəs/ (রুশ), তুর্কী মূলীয় শব্দটি নাস্তিক, অমুসলিম এবং শত্রুদের অর্থে ব্যবহার হয়। (দেখুন ইতিহাসে)

বিদেশী ঋণ[সম্পাদনা]

উবুখ টার্কিশ এবং আদুগে ভাষা থেকে বেশী শব্দ ধার করেছে আর প্রায় সমান সংখ্যা ফার্সি, আবখাজ এবং দক্ষিণ ককেশীয় ভাষাসমূহ থেকে শব্দ ঋণ নিয়েছে। উবুখ ভাষার বিলুপ্তির প্রাক্কালে আদুগে ভাষার একটি বড় প্রভাব লক্ষিত হয়(১৯৬০ সালে লিপিবদ্ধ করা তথ্যানুযায়ী)। /ɡ/ /k/ /kʼ/ উচ্চারণগুলো টার্কিশ এবং আদুগে থেকে এসেছে এই ভাষায়। /ɬʼ/ উচ্চারণও আদুগে প্রভাবিত। যদিও উচ্চারণটি অনেক আগে এসেছে। /ɣ/ উচ্চারণটিও আদুগে থেকে আসার সম্ভাবনাই বেশী, যেহেতু অধিকাংশ এই উচ্চারণের শব্দগুলো আদুগে মূলের। যেমন: /paaɣa/ ('গর্ব'), /ɣa/ ('শুক্রাশয়')।

উবুখের নিজস্ব বিকল্প শব্দও রয়েছে। কিন্তু তা টার্কিশ, সার্কাশিয়ান এবং রাশিয়ানের প্রভাবে লুপ্ত প্রায়।

  • /bərwə/ ('গর্ত বা ছিদ্র করা' তুর্কি হতে) = * /pɕaatχʷ/
  • /tʃaaj/ ('চা' তুর্কি হতে) = /bzəpɕə/
  • /wərəs/ ('শত্রু' তুর্কি হতে) = /bˤaqˤʼa/

কিছু শব্দ এসেছে একদম ভিন্ন মূল থেকে, যার সাথে উবুখের সম্পর্ক বা প্রভাব নেই। কোলারুশো (১৯৯৪) খেয়াল করেন যে /χˤʷa/ ('শূকর') শব্দটি সেমেটিক শব্দ *huka থেকে এসেছে। অন্যদিকে /aɡʲarə/ ('দাস') এসেছে ইরানী মূল থেকে।

বিবর্তন[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. নোরধোফ, সেবাস্টিয়ান; হামারস্ট্রাম, হারাল্ড; ফোস্কেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যার্থ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৩)। "Ubykh"গ্লোটোলগ। লিপজিগ: বিবর্তনীয় নৃতত্ত্বে ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 
  2. E. F. K. Koerner (১ জানুয়ারি ১৯৯৮)। First Person Singular III: Autobiographies by North American Scholars in the Language Sciences। John Benjamins Publishing। পৃষ্ঠা 33। আইএসবিএন 978-90-272-4576-2 
  3. Charles King, The Ghost of Freedom (2008) p 15
  4. Dumézil, G. 1975 Le verbe oubykh: études descriptives et comparatives (The Ubykh Verb: Descriptive and Comparative Studies). Paris: Imprimerie Nationale
  5. Hewitt, B. G. 2005 North-West Caucasian. Lingua 115: 91-145.
  6. Fenwick, R. S. H. (২০১১)। A Grammar of Ubykh। Munich: Lincom Europa।