আসমত আলী শিকদার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অ্যাডভোকেট

আসমত আলী শিকদার
পটুয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৭৩ – ১৯৭৫
পূর্বসূরীআসন শুরু
উত্তরসূরীআখতারুজ্জামান আলমগীর
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৩৯
বরগুনা
মৃত্যু৯ মে ২০০১
শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থান, মিরপুর
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীনাহিদ খুরশিদ জাহান
সন্তানএক ছেলে, দুই মেয়ে
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
ব্রজমোহন কলেজ

আসমত আলী শিকদার (১৯৩৯ – ৯ মে ২০০১) বাংলাদেশের বরগুনা জেলার রাজনীতিবিদ, মুক্তিযোদ্ধের সংগঠক ও আইনজীবী যিনি তৎকালীন পটুয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন।[১][২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

আসমত আলী শিকদার ১৯৩৯ সালে বরগুনা জেলার বামনা উপজেলার কালিকাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা আবদুল মজিদ সিকদার এবং মাতা আফিয়া খাতুন। শিকদারের স্ত্রী নাহিদ খুরশিদ জাহান তাদের এক ছেলে, দুই মেয়ে।[২]

তিনি বামনার সরোয়ারজান পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মেট্রিক এবং বরিশালের বিএম কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে ১৯৬১ সালে বিএ, ১৯৬২ সালে এমএ ও এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করেন।[২]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

আসমত আলী শিকদার ১৯৫৩ সালে ছাত্রলীগে যোগদান করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের সময়ে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক নির্বচিত ছিলেন। ১৯৬২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা হল (বর্তমান শহীদুলাহ হল) ছাত্র সংসদের ভিপি ছিলেন।[২]

১৯৬৩ সাল তিনি নরসিংদী কলেজে ইতিহাস বিভাগে অধ্যাপনায় যোগদিয়ে কর্ম জীবন শুরু করেন। ১৯৬৪ সালে শিক্ষা অন্দোলন ও কনভোকেশন আন্দোলনে যোগদানের কারণে পাকিস্তান সরকার তার এমএ ডিগ্রী বাতিল ও তাকে গ্রেফতার করা হয়। ১৯৬৫ সালে ছয়দফা আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। পরবর্তীতে ঢাকা কোর্টে আইন পেশা শুরু করেন।[২]

১৯৬৯ সালে তিনি তৎকালীন বরগুনা মহাকুমা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে তিনি বরগুনা এলাকার এমএলএ নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭১ সালে বরগুনা মহাকুমার মুক্তিযোদ্ধের সংগঠক।[৩] ১৯৭৩ সালের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তিনি তৎকালীন পটুয়াখালী-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[১][২]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আসমত আলী শিকদার ৯ মে ২০০১ সালে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "১ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. সিরাজ উদ্দীন আহমেদ (২০১৫)। বরিশাল বিভাগের ইতিহাস (দ্বিতীয় খন্ড)ঢাকা, বাংলাদেশ: ভাস্কর প্রকাশনী। 
  3. "বরগুনা জেলা, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধা"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ১৮ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০২০