আলাপ:পিতৃপক্ষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

নিবন্ধ শিরোনাম[সম্পাদনা]

একদম সাধারণ ধ্যান ধারণা থেকে একটা প্রশ্ন, মহালয়াপিতৃপক্ষ কি একই বিষয়? আমার জানা মতে পিতৃপক্ষ নামক সংস্কার হিন্দু ধর্মে অনেক দিন ধরে চলে আসছে। আর মহালয়া শিরোনামটা ব্যাপারটা বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র মহাশয়ে দৌলতে জনপ্রিয়। একটু পরিস্কার করবে ধারণাটা।--জয়ন্ত (আলাপ | অবদান) ১৭:০৩, ৬ অক্টোবর ২০১০ (ইউটিসি)

না, মহালয়া আর পিতৃপক্ষ ঠিক এক বিষয় নয়, একটু আলাদা। পিতৃপক্ষ বলা হয় সমগ্র পক্ষকালটিকে, আর মহালয়া হল পিতৃপক্ষের শেষ দিন সর্বপিতৃ অমাবস্যার অপর নাম। এই সর্বপিতৃ অমাবস্যা নামটি বাঙালি সমাজে সুপ্রচলিত নয়, আমরা বাঙালিরা দিনটিকে মহালয়া নামেই চিনি। এই দিন প্রেততর্পণ করা হয়। তবে দুর্গাপূজার সঙ্গে মহালয়ার যোগটা আমার কাছেও obscure। আমাদের দেশের বাড়িতে পনেরো দিন ধরে দুর্গাপুজো হয়। মহালয়ার আগের কৃষ্ণানবমী তিথিতে দেবীর বোধন হয়। এরপর কৃষ্ণাদশমী থেকে কৃষ্ণাচতুর্দশী পর্যন্ত তিথিবিহিত পূজা হলেও, মহালয়ার দিন কোনো বিশেষ পূজা হয় না, পরদিন থেকে অর্থাৎ, প্রতিপদ থেকে পুনরায় তিথিবিহিত পূজা শুরু হয়। অনেকের বাড়িতে প্রতিপদ থেকে দুর্গাপূজা হয়। তাঁদের বাড়িতেও মহালয়ায় কোনো অনুষ্ঠান হয় বলে শুনিনি। সুদেষ্ণা ব্যানার্জির দুর্গাপূজা: ইয়েস্টারডে, টুডে অ্যান্ড টুমরো বইতে পড়েছি দুর্গাপূজার সঙ্গে মহালয়ার প্রত্যক্ষ যোগ নেই। বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র মহাশয় কেন তাঁর অনুষ্ঠানের জন্য মহালয়ার দিনটি বেছে নিয়েছিলেন, তাও আমার কাছে অস্পষ্ট। কারণ দুর্গাপূজার সূচনা অর্থাৎ শাস্ত্রের ভাষায় যাকে কল্পারম্ভ বলে তা হয় মহালয়ার আগের কৃষ্ণানবমী, মহালয়ার পরের দিন (প্রতিপদ) এবং দুর্গাষষ্ঠীর দিন; কখনও মহালয়ার দিন নয়। তবে একটা কথা মোটামুটি পরিষ্কার, দুর্গাপূজার সঙ্গে মহালয়ার যে আধুনিক যোগ তা তাঁর এই অনুষ্ঠানটিই স্থাপন করেছে। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৮:৩৮, ৬ অক্টোবর ২০১০ (ইউটিসি)
এই নিবন্ধে আমি মহালয়া রিডাইরেক্ট করে রেখেছি। যদি ভবিষ্যতে মহালয়া নিয়ে আলাদা করে লিখি, তবে রিডাইরেক্ট তুলে ওই পাতায় নিবন্ধ লিখব। নতুবা মহালয়ার মূল শাস্ত্রানুষ্ঠান অর্থাৎ পাঁজির ভাষায় মহালয়া পার্ব্বণ শ্রাদ্ধ, অপরপক্ষীয় বা প্রেতপক্ষ বিহিত শ্রাদ্ধ ও তিলতর্পণ সমাপন বিষয়ক তথ্য এই পিতৃপক্ষ পাতাতেই সন্নিবেশিত হয়েছে। তাই এই পুনর্নির্দেশনা। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৮:৪১, ৬ অক্টোবর ২০১০ (ইউটিসি)