অ্যাডাম স্যানফোর্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অ্যাডাম স্যানফোর্ড
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅ্যাডাম স্যানফোর্ড
জন্ম (1975-07-12) ১২ জুলাই ১৯৭৫ (বয়স ৪৫)
ডোমিনিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৪২)
১১ এপ্রিল ২০০২ 
ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট১৯ মার্চ ২০০৪ 
ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯৭উইন্ডওয়ার্ড আইল্যান্ডস
২০০২ - ২০০৮লিওয়ার্ড আইল্যান্ডস
২০০২অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুদা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ৫৭
রানের সংখ্যা ৭২ ৪৫৩ ১৮
ব্যাটিং গড় ৪.৮০ ৭.৪২ ৯.০০
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৮* ৩৭ ১৬*
বল করেছে ২,২১৭ ১১,০৮৯ ১৪৬ ৫০
উইকেট ৩০ ১৯৮
বোলিং গড় ৪৩.৮৬ ৩০.৯২ ২৭.৫০ ১৯.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৪/১৩২ ৭/৪০ ৩/৪০ ২/২৮
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/– ২৩/– ০/– ১/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

অ্যাডাম স্যানফোর্ড (ইংরেজি: Adam Sanford; জন্ম: ১২ জুলাই, ১৯৭৫) ডোমিনিকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ও পেশাদার ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০০-এর দশকের শুরুরদিকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২][৩]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে লিওয়ার্ড আইল্যান্ডস ও উইন্ডওয়ার্ড আইল্যান্ডস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার হিসেব খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

উইন্ডওয়ার্ড আইল্যান্ডস ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সদস্য ডোমিনিকায় অ্যাডাম স্যানফোর্ডের জন্ম। ১৯৯৬-৯৭ মৌসুম থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত অ্যাডাম স্যানফোর্ডের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ১৯৯৭ সালে উইন্ডওয়ার্ড আইল্যান্ডসের পক্ষে একটি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ ছাড়া বাদ-বাকী খেলাগুলো লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের পক্ষে খেলেছেন।

লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের পক্ষে ৪১ উইকেট লাভের পর এপ্রিল, ২০০২ সালে তাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। ডোমিনিকায় জন্মগ্রহণ করলেও অ্যান্টিগুয়ায় বসবাস করতেন ও সেখানে পুলিশ হিসেবে কাজ করতেন। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট লাভ করলেও সমালোচকদের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হন। দ্রুতগতিসম্পন্ন বোলার ছিলেন তিনি। তবে, বিখ্যাত ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার ইয়ান বিশপের কাছ থেকে ‘বাজে’ হিসেবে আখ্যায়িত হন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে এগারোটি টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন অ্যাডাম স্যানফোর্ড। ১১ এপ্রিল, ২০০২ তারিখে জর্জটাউনে সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৯ মার্চ, ২০০৪ তারিখে পোর্ট অব স্পেনে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সব মিলিয়ে ১১ টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছেন। ২০০১-০২ মৌসুমে নিজ দেশে সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে পাঁচ-টেস্ট নিয়ে গড়া সিরিজের সবকটিতেই তার অংশগ্রহণ ছিল। ঐ সিরিজে ১৫ উইকেট পান। এরফলে, ক্যারিবের প্রথম আদিবাসী হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে টেস্ট খেলার গৌরব অর্জন করেন। এছাড়াও, জুন, ২০০২ সালে নিউজিল্যান্ড গমনে যান। তবে, দুই টেস্টে অংশ নিয়ে তিনি মাত্র পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন। তন্মধ্যে, শেষ টেস্টে ১০১ রান খরচায় মাত্র একটি উইকেটের সন্ধান পান। এরফলে, পরবর্তী মৌসুমে ভারত সফর থেকে তাকে দলের বাইরে রাখা হয়।

দেড় বছর পর পুণরায় তাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই টেস্টে অংশ নিয়ে সাত উইকেট লাভ করেন। এরপর, স্বদেশে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আরও দুই টেস্ট খেলেন। এ পর্যায়ে টেলিভিশনের ধারাভাষ্যকারদের সমালোচনার কবলে পড়েন তিনি। সাবেক ইংরেজ টেস্ট ক্রিকেটার জিওফ বয়কট মন্তব্য করেন যে, স্যানফোর্ড তার দিদিকে দেখতে পায়নি। দ্বিতীয় টেস্টের পর তাকে দলের বাইরে রাখা হয়।

মার্কিন দলে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

পরবর্তীতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসিত হন। সেখানে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দলে খেলার জন্যে মনোনীত হন। ২০১৩ সারে তিনটি টুয়েন্টি২০ খেলায় অংশ নেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of West Indies Test Cricketers
  2. "West Indies – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  3. "West Indies – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]