অমৃতা পুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অমৃতা পুরী
Amrita puri forest success party.jpg
২০১২ সালে অমৃতা পুরী
জন্ম (1983-08-20) ২০ আগস্ট ১৯৮৩ (বয়স ৩৭)
পেশাঅভিনেত্রী
কর্মজীবন২০১০-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীইমরুন শেঠী (বি. ২০১৭)

অমৃতা পুরী (জন্ম: ২০শে আগস্ট ১৯৮৩) হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। কয়েকটি চলচ্চিত্রের জন্য অডিশন দেওয়ার পরে, রোমান্টিক কমেডি চলচ্চিত্র আইশা (২০১০)-এর একটি পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করে, পুরী অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন। এই চলচ্চিত্রের তাঁর অভিনয়ের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেত্রী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পেয়ে ছিলেন। তিনি অভিনয় জগতে প্রবেশের তিন বছর পর প্রথমবারের মতো বাণিজ্যিকভাবে সফল চলচ্চিত্রের দেখা পান, উক্ত চলচ্চিত্রটির নাম ছিল কাই পো চে!

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করার পরে, পুরী লেখালেখি এবং মঞ্চ নাটক করার মাধ্যমে তাঁর কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। তাঁর প্রথম অভিনীত নাটকটি ছিল কাসার ঠাকুর পদমসীর ইংরেজি নাটক রিটেলিংস ভিউ ফ্রম দ্য স্টেজ[১] এক বছরের জন্য তিনি জীবনশৈলী পত্রিকায় স্বাধীনভাবে লেখা দেওয়ার পাশাপাশি বিজ্ঞাপন সংস্থা ওগিলভির বিজ্ঞাপন লেখার কাজ করেছিলেন।[২] দিলীপ ভাটিয়াকে দিয়ে নিজের পোর্টফোলিও সম্পন্ন করার পরে, তিনি চলচ্চিত্র এবং বিজ্ঞাপনের জন্য অডিশন দেওয়া শুরু করেন। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি কোটেক্স এর জন্য তাঁর প্রথম বিজ্ঞাপনটি করেছিলেন এবং পরে পিপল ফার্স্ট, গার্নিয়ার এবং লোরেয়ালসহ বেশ কয়েকটি নামকরা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে একজন মডেল হিসেবে কাজ করেছিলেন।[১][৩]

বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রের অডিশন দেওয়ার পরে, রাজশ্রী ওঝার পরিচালিত আইশা (২০১০) চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পুরী তাঁর বলিউড চলচ্চিত্রের সূচনা করেছিলেন। সোনম কাপুরঅভয় দেওল অভিনীত রোম্যান্টিক কমেডি চলচ্চিত্রটিতে পুরী 'শেফালি ঠাকুর' নামক মূল চরিত্রের একটিতে অভিনয় করেছিলেন। উক্ত চলচ্চিত্রটিতে তাঁর অভিনয়ের জন্য তিনি বেশিরভাগ ইতিবাচক পর্যালোচনা পেয়েছেন, তবে ১৯ কোটি টাকার (২.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) বাজেটে নির্মিত চলচ্চিত্রটি মাত্র ২৮.৬৫ কোটি টাকা (৪.১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) আয় করেছিল। এর ফলস্বরূপ এই চলচ্চিত্রটি একটি সংকটপূর্ণ এবং বাণিজ্যিক ব্যর্থতা হিসাবে প্রমাণিত হয়েছিল, তবে পুরী বার্ষিক (৫৫ তম) ফিল্মফেয়ার পুরস্কারে এই চলচ্চিত্রে তাঁর অভিনয়ের জন্য তিনি দুইটি বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছিলেন; একটি হচ্ছে শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেত্রী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার এবং অন্যটি হচ্ছে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার

তাঁর প্রথম বলিউড চলচ্চিত্রটি ব্যর্থতার মুখ দেখার পরে, পুরী বিশাল মহাদকরের পরিচালনায় কুণাল খেমুর বিপরীতে ব্লাড মানি নামক একটি অপরাধমূলক রোমাঞ্চকর চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন; উক্ত চলচ্চিত্রে তিনি কুণাল খেমুর স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এই চলচ্চিত্র সম্পর্কে সমালোচকেরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া প্রদান করেছেন। ৯০ মিলিয়ন টাকা (১.৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) বাজেটে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি বিশ্বব্যাপী ১২০ মিলিয়ন টাকা (১.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) আয় করেছিল; যার ফলস্বরূপ এটি একটি "গড় উপার্জনকারী" চলচ্চিত্রে পরিণত হয়েছিল। এরপরে ২০১৩ সালে, পুরী, বন্ধুবান্ধবের সম্পর্ককে ঘিরে অভিষেক কাপুর নির্মিত চলচ্চিত্র কাই পো চে!-তে অভিনয় করেছেন। এই চলচ্চিত্রে তিনি সুশান্ত সিং রাজপুত, অমিত সাধ এবং রাজকুমার রাওয়ের মতো অভিনয়শিল্পীদের সাথে অভিনয় করেছিলেন। দ্য থ্রি মিস্টেকস অফ মাই লাইফ উপন্যাসের ওপর নির্মিত এই চলচ্চিত্রে তিনি বিদ্যা ভট্ট নামে একটি জেলা স্তরের ক্রিকেটারের ছোট বোনের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন, যে মেয়েটি তার ভাইয়ের সেরা বন্ধুর প্রেমে পড়ে যায়। এই চলচ্চিত্রটি বিশ্বব্যাপী টিকিট বিক্রিতে ৯০০ মিলিয়ন টাকা (১২.৫২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) আয় করেছিল। সমালোচনা এবং বাণিজ্যিক দিক থেকে এটি সফল চলচ্চিত্র ছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "My Character Has Been Fleshed Out Much More Than In Emma"। RealBollywood.com। ৫ আগস্ট ২০১০। ৬ আগস্ট ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১১ 
  2. "Abhay is a fab co-star: Amrita Puri"। The Times of India। ৭ জুলাই ২০১০। ৯ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১১ 
  3. "It's raining newcomers in Bollywood"। India Tribune। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]