অমিয়চরণ ব্যানার্জি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অমিয়চরণ ব্যানার্জি
Amiya Charan Banerjee.jpg
অমিয়চরণ ব্যানার্জি
জন্ম২৩ জানুয়ারি , ১৮৯১
মৃত্যু৩১ মে,১৯৬৮ (বয়স ৭৭)
জাতীয়তাভারতীয়
মাতৃশিক্ষায়তনপ্রেসিডেন্সি কলেজ বর্তমানে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়, ক্লেয়ার কলেজ, কেমব্রিজ
পেশাগণিতজ্ঞ
দাম্পত্য সঙ্গীপ্রভাদেবী
সন্তানকল্যাণ ব্যানার্জি (পুত্র)
আরতি দত্ত (কন্যা)
মিলন ব্যানার্জি (পুত্র)
পিতা-মাতাজ্ঞানচন্দ্র ব্যানার্জি (পিতা)
মৃণালিনী দেবী(মাতা)
স্বাক্ষর
Signature of Amiya Charan Banerjee.jpg

অমিয়চরণ ব্যানার্জি বা অমিয়চরণ বন্দ্যোপাধ্যায় (ইংরেজি: Amiya Charan Banerjee or Amiya Charan Bandyopadhyay )(জন্ম :- ২৩ জানুয়ারি, ১৮৯১ - মৃত্যু :- ৩১ মে, ১৯৬৮) একজন বাঙালি অধ্যাপক ও গণিতজ্ঞ। [১]

জন্ম ও শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

অমিয়চরণ ব্যানার্জির জন্ম বৃটিশ ভারতের অধুনা বিহার রাজ্যের ভাগলপুরে তার মাতুলালয়ে । পিতা জ্ঞানচন্দ্র ব্যানার্জি ও মাতা ব্রহ্মানন্দ কেশবচন্দ্র সেনের সহকর্মী নিবারণচন্দ্র মুখোপাধ্যায়ের কন্যা মৃণালিনী দেবী । পিতা জ্ঞানচন্দ্র ব্যানার্জি চব্বিশ পরগনা জেলার মহেশতলার জমিদার পরিবারের সন্তান, প্রেসিডেন্সি কলেজের মেধাবী ছাত্র ও স্বামী বিবেকানন্দর সহপাঠী ছিলেন। পিতার কর্মস্থল বিভিন্ন হওয়ার কারণে তার স্কুলের পড়াশোনা মামার বাড়ির ভাগলপুর জেলা স্কুলে । সেখানে ম্যাট্রিক পরীক্ষায় তিনি প্রথম হন। তারপর তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজে ভর্তি হন। ফলিত গণিতে এম.এসসিতে শীর্ষ স্থান দখল করেন । বিহার সরকারের স্কলারশিপ নিয়ে লণ্ডন যান। সেখানে কেমব্রিজ ক্লেয়ার কলেজ থেকে রাংলার ও ফাউন্ডেশন স্কলার হয়ে দেশে ফেরেন।

কর্মজীবন ও অবদান[সম্পাদনা]

দেশে ফেরার পর কিছু দিন তিনি পাটনা শহরে কাটান। এরপর ইণ্ডিয়ান এডুকেশন সার্ভিসপদে যোগ দিয়ে এলাহাবাদের বর্তমানে প্রয়াগরাজের ক্যানিং কলেজে অধ্যাপনা শুরু করেন । সেসময় মেঘনাদ সাহা, নীলরতন ধর প্রমুখ বিজ্ঞানীদের উপস্থিতিতে এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার ক্ষেত্রে এক উৎকর্ষ কেন্দ্র ছিল। অধ্যাপক ব্যানার্জিও Astro Physics ও Gallactic Dynamics বিষয়ে বিশেষ অবদান রাখেন। ১৯৫৩-৫৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যপদে নিযুক্ত থাকেন। তিনি জ্যোতির্বিদ্যা বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে বক্তৃতা করতেন । ১৯৫৬ খ্রিস্টাব্দে ইণ্ডিয়ান আকাডেমি অব সাইন্সের এলাহাবাদ অধিবেশনে "Stellar Evolution" শীর্ষক বিষয়ে বক্তব্য রাখেন । [২] এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি কলকাতায় চলে আসেন । অধ্যাপক ব্যানার্জি দেশে বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার কাজে নিযুক্ত ছাত্রদের গবেষণাপত্রের মূল্যায়ন করতেন । এদেশে উচ্চমানের অবজারভেটরি স্থাপনের উদ্দেশ্যে ভারত সরকার তাঁকে ইউরোপ ও আমেরিকার শ্রেষ্ঠ অবজারভেটরিগুলি পরিদর্শন করে একটি প্ল্যান প্রস্তুত করার যে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। তিনি তা সুসম্পন্ন করেন। ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দের পশ্চিমবঙ্গের হাবড়ায় শ্রীচৈতন্য কলেজস্থাপনে তিনি প্রভূত সাহায্য করেন।

শেষজীবনে ব্রাহ্মসমাজের সেবায় নিয়োজিত ছিলেন ।১৯৫৭ খ্রিস্টাব্দে তিনি সর্বভারতীয় ব্রাহ্ম সমাজের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন । এলাহাবাদে তার বাড়ির সম্মুখস্থ রাস্তাটি তার নামেই নামাঙ্কিত ।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

অধ্যাপক অমিয়চরণ ব্যানার্জি ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দের ৩১ শে মে ৭৭ বৎসর বয়সে কলকাতায় প্রয়াত হন ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সুবোধচন্দ্র সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট ২০১৬ পৃষ্ঠা ৩৯, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬
  2. "Symposia held since inception of the Academy"। Indian Academy of Sciences। ১১ মার্চ ২০০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা।