২০২২ এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০২২ এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ
২০২২ এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপের লোগো.jpg
বিবরণ
স্বাগতিক দেশ ভারত
তারিখ২০ জানুয়ারি – ৬ ফেব্রুয়ারি
দল১২ (১টি কনফেডারেশন থেকে)
মাঠ৩ (৩টি আয়োজক শহরে)
চূড়ান্ত অবস্থান
চ্যাম্পিয়ন গণচীন (৯ম শিরোপা)
রানার-আপ দক্ষিণ কোরিয়া
তৃতীয় স্থান জাপান
 ফিলিপাইন
পরিসংখ্যান
ম্যাচ২৩
গোল সংখ্যা৯৬ (ম্যাচ প্রতি ৪.১৭টি)
দর্শক সংখ্যা০ (ম্যাচ প্রতি ০ জন)
শীর্ষ গোলদাতা স্যাম কের (৭ গোল)
সেরা খেলোয়াড় ওয়াং শাংশান[১]
সেরা গোলরক্ষক ঝু ইউ[২]
ফেয়ার প্লে পুরষ্কার দক্ষিণ কোরিয়া

২০২২ এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ (ইংরেজি: 2022 AFC Women's Asian Cup) এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপের ২০তম প্রতিযোগিতা। এটি এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন কর্তৃক পরিচালিত।  জাপান ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন্স। এই আসরে কোনো তৃতীয় স্থান নির্ধারক খেলা হয়নি।

যোগ্যতা অর্জনকারী দেশ[সম্পাদনা]

নিম্নলিখিত ১২টি দল যোগ্যতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে:

দল যোগ্যতা অর্জনের মাধ্যম তারিখ মোট অংশগ্রহণ শেষ অংশগ্রহণ সেরা ফলাফল
প্রতিযোগিতা অবস্থান
 ভারত আয়োজক ৫ জুন ২০২০ ৯ম ২০০৩ রানার-আপ (১৯৭৯, ১৯৮৩)
 জাপান ২০১৮ এশিয়ান কাপ প্রথম ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ১৭শ ২০১৮ চ্যাম্পিয়ন (২০১৪, ২০১৮)
 অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ৬ষ্ঠ চ্যাম্পিয়ন (২০১০)
 গণচীন তৃতীয় ১৫শ চ্যাম্পিয়ন (১৯৮৬, ১৯৮৯, ১৯৯১, ১৯৯৩, ১৯৯৫, ১৯৯৭, ১৯৯৯, ২০০৬)
 চীনা তাইপেই ২০২২ এশিয়ান কাপ বাছাইপর্ব গ্রুপ এ বিজয়ী ২৪ অক্টোবর ২০২১ ১৪শ ২০০৮ চ্যাম্পিয়ন (১৯৭৭, ১৯৭৯, ১৯৮১)
 ভিয়েতনাম গ্রুপ বি জয়ী ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৯ম ২০১৮ ষষ্ঠ (২০১৪)
 ইন্দোনেশিয়া গ্রুপ সি জয়ী ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৫ম ১৯৮৯ চতুর্থ (১৯৭৭, ১৯৮৬)
 মিয়ানমার গ্রুপ ডি জয়ী ২৪ অক্টোবর ২০২১ ৫ম ২০১৪ গ্রুপ পর্ব (২০০৩, ২০০৬, ২০১০, ২০১৪)
 দক্ষিণ কোরিয়া গ্রুপ ই জয়ী ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৩শ ২০১৮ তৃতীয় (২০০৩)
 ফিলিপাইন গ্রুপ এফ জয়ী ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১০ম ২০১৮ ষষ্ঠ (২০১৮)
 ইরান গ্রুপ জি জয়ী ২৫ অক্টোবর ২০২১ ১ম প্রথম অংশগ্রহণ
 থাইল্যান্ড গ্রুপ এইচ জয়ী ১৭শ ২০১৮ চ্যাম্পিয়ন (১৯৮৩)

মাঠ[সম্পাদনা]

২০২২ পর্বের প্রতিযোগিতায় ভারতের ৩টি শহরের ৩টি স্টেডিয়ামে খেলা হবে।[৩] প্রথমে, আয়োজক শহরগুলি ছিল আহমেদাবাদ, ভুবনেশ্বর এবং নবি মুম্বই। এরপর এএফসি ঠিক করে যে তিনটি আয়োজক শহর হবে।[৪][৫]যদিও ৬ জুলাই ২০২১-এ, এএফসি ঘোষণা করে যে মহারাষ্ট্রের মুম্বই, নবি মুম্বই এবং পুনে প্রতিযোগিতা আয়োজন করবে।[৬]

মহারাষ্ট্র মুম্বই নবি মুম্বই পুনে
মুম্বই ফুটবল এরিনা ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়াম শ্রী শিব ছত্রপতি স্পোর্টস কমপ্লেক্স
ধারণ ক্ষমতা: ১৮,০০০ ধারণ ক্ষমতা: ৫৫,০০০ ধারণ ক্ষমতা: ১১,৯০০
Mumbai Football Arena.jpg D Y Patil Sports Stadium.jpg Balewadi Athletics Stadiums Interior.jpg

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

প্রতিটি দল কমপক্ষে ১৮ জন ও সর্বাধিক ২৩ জন খেলোয়াড়ের নাম নথিভুক্ত করতে পারবে, যাদের মধ্যে কমপক্ষে তিনজন গোলকিপার হবে।

ড্র[সম্পাদনা]

পট ১ পট ২ পট ৩ পট ৪
১.  ভারত (আ)
২.  জাপান
৩.  অস্ট্রেলিয়া
৪.  গণচীন
৫.  থাইল্যান্ড
৬.  দক্ষিণ কোরিয়া
৭.  ফিলিপাইন
৮.  ভিয়েতনাম
৯.  চীনা তাইপেই
১০.  মিয়ানমার
১১.  ইরান
১২.  ইন্দোনেশিয়া
  • (আ)=আয়োজক

কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব[সম্পাদনা]

ভারত চিনা তাইপেই দলের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ১৩জন খেলোয়াড় নামাতে ব্যর্থ হয়। ভারতীয় দলে অনেক খেলোয়াড়ই কোভিড-১৯ আক্রান্ত হবার জন্য তারা প্রতিযোগিতা থেকে এএফসি-এর ৪.১ নং ধারা অনুযায়ী দল নামাতে ব্যর্থ হবার জন্য নাম প্রত্যাহার করে নেয়। তাদের ম্যাচগুলো বাতিল ঘোষিত হয় এবং ইরানের সাথে হয়ে যাওয়া ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষিত হয়।[৭]

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্বের প্রতিটি গ্রুপের সেরা ২ দল ও দুটি সেরা তৃতীয় স্থানাধিকারী দল কোয়ার্টার-ফাইনালের জন্য যোগ্যতা অর্জন করবে।[৮]

টাইব্রেকার[সম্পাদনা]

দলগুলিকে পয়েন্টের ভিত্তিতে পয়েন্ট টেবিলে সাজানো হয়েছে (জয়ের জন্য ৩ পয়েন্ট, ড্র হলে ১ ও হারলে ০)। যদি কোনো দুই বা ততোধিক দলের পয়েন্ট একই হয়ে যায়, তখন ট্রাইব্রেকিং করার জন্য নিম্নলিখিত নিয়মগুলি মান্য করে তাদের পৃথক র‌্যাঙ্ক দেওয়া হবে।

  1. হেড-টু-হেড ম্যাচের ফলাফলের ভিত্তিতে পয়েন্ট
  2. হেড-টু-হেড ম্যাচে গোল পার্থক্য
  3. হেড-টু-হেড ম্যাচে দলগুলির দ্বারা করা গোলসংখ্যা
  4. দুই-এর অধিক দল একই পয়েন্ট পেলে, ঐ দলগুলির মধ্যে উপরোক্ত নিয়ম অনুসারে স্থান নির্ধারিত হবে।
  5. সব ম্যাচে মোট গোল পার্থক্য
  6. সব ম্যাচে যতগুলো গোল করেছে কোনো দল
  7. পেনাল্টি শুট-আউট
  8. শৃঙ্খলাভিত্তিক পয়েন্ট (হলুদ কার্ড = ১ পয়েন্ট, দুই হলুদ কার্ডের পর লাল কার্ড = ৩ পয়েন্ট, সরাসরি লাল কার্ড = ৩ পয়েন্ট, হলুদ কার্ড ও সরাসরি লাল কার্ড = ৪ পয়েন্ট)
  9. লটারি

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 গণচীন ১১ +১১ নকআউট পর্ব
 চীনা তাইপেই +১
 ইরান ১২ −১২
 ভারত (H) প্রত্যাহার
উৎস: এএফসি
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার
(H) স্বাগতিক।

ম্যাচসমূহ[সম্পাদনা]

গণচীন ৪−০ চীনা তাইপেই
ওয়াং শুয়াং গোল ৩' (পে.)৬৯'

ওয়াং শাংশানগোল ৯'

ঝ্যাং জিং গোল ৫৩'
প্রতিবেদন
ভারত পরিত্যক্ত (০−০) ইরান
প্রতিবেদন

ইরান ০−৭ গণচীন
প্রতিবেদন ওয়াং শুয়াং গোল ২৮'৪৯' (পে.)

জিয়াও ইউয়ি গোল ৪৩'

ওয়াং শাংশান গোল ৫৫'৫৯' ত্যাং জিয়ালি গোল ৭৭'

আদেলি গোল ৮২' (আ.গো.)
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: পাঁসা চাইসানিৎ (থাইল্যান্ড)
চীনা তাইপেই বাতিল ভারত
প্রতিবেদন

ভারত বাতিল গণচীন
প্রতিবেদন
চীনা তাইপেই ৫−০ ইরান
  • লাই লি-চিন গোল ৪'৩১'৬৫' (পে.)
  • চেন ইয়েন পিং গোল ৪০'
  • ওয়াং শিয়াং হুয়েই গোল ৭৮'
প্রতিবেদন

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 অস্ট্রেলিয়া ২৪ +২৩ নকআউট পর্ব
 থাইল্যান্ড +২
 ফিলিপাইন +৩
 ইন্দোনেশিয়া ২৮ −২৮
উৎস: এএফসি
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার

ম্যাচসমূহ[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া ১৮−০ ইন্দোনেশিয়া
  • স্যাম কের গোল ৯'১১'২৬' (পে.)
  • ফুর্ড গোল ১৪'
  • ফাউলার গোল ১৭'
  • রাসো গোল ২৪'৮৮'
  • কার্পেন্টার গোল ৩৪'৪৯'
  • ভ্যান এগমন্ড গোল ৩৯' (পে.)
  • ইয়ালপ গোল ৫৯'
  • সাইমন গোল ৬৮'৭১'
  • লুইক গোল ৭৯'
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: মাহসা ঘোরবানি (ইরান)
থাইল্যান্ড ০−১ ফিলিপাইন
প্রতিবেদন ম্যাকড্যানিয়েল গোল ৮১'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: কং থি ডুং (ভিয়েতনাম)

ইন্দোনেশিয়া ০−৪ থাইল্যান্ড
প্রতিবেদন
  • চেত্থাবুতর গোল ২৭'৩৬'৭১'
  • মাকরিস গোল ৭৬'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: ইওশিমি ইয়ামাশিতা (জাপান)
ফিলিপাইন ০−৪ অস্ট্রেলিয়া
প্রতিবেদন
  • স্যাম কের গোল ৫১'
  • র‌্যান্ডল গোল ৫৩' (আ.গো.)
  • ভ্যান এগমন্ড গোল ৬৭'
  • ফাউলার গোল ৮৭'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: ওয়াং চেই (চিনা তাইপেই)

অস্ট্রেলিয়া ২−১ থাইল্যান্ড
  • ভ্যান এগমন্ড গোল ৩৯'
  • স্যাম কের গোল ৮০'
প্রতিবেদন নিপাওয়ান গোল ৯০+৩'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: থিন থিন আয়ে (মায়ানমার)
ফিলিপাইন ৬−০ ইন্দোনেশিয়া
  • গিলৌ গোল ৬'
  • বোল্ডেন গোল ২৭'
  • অ্যানিস গোল ৫৬'৮২'
  • মিকল্যাট গোল ৭৪' (পে.)
  • সিজার গোল ৯০+৪'
প্রতিবেদন

গ্রুপ সি[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 জাপান +৮ নকআউট পর্ব
 দক্ষিণ কোরিয়া +৫
 ভিয়েতনাম −৬
 মিয়ানমার −৭
উৎস: এএফসি
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার

ম্যাচসমূহ[সম্পাদনা]

জাপান ৫−০ মিয়ানমার
উয়েকি গোল ২২'

হাসেগাওয়া গোল ৪৭'৯০+২' নাওমোতো গোল ৫২'

নারুমিয়া গোল ৭০'
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: ভেরোনিকা বার্নাৎসকাইয়া (কিরগিজস্তান)
দক্ষিণ কোরিয়া ৩−০ ভিয়েতনাম
জি সো উন গোল ৪'৮১' (পে.) ফুয়োং থাও গোল ৭' (আ.গো.) প্রতিবেদন

মিয়ানমার ০−২ দক্ষিণ কোরিয়া
প্রতিবেদন
  • লি গোল ৫০'
  • জি গোল ৮৪'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: সিজার রিবেল্ট (অস্ট্রেলিয়া)
ভিয়েতনাম ০−৩ জাপান
প্রতিবেদন
  • নারুমিয়া গোল ৩৮'৫৮'
  • কুমাগাই গোল ৫০'

জাপান ১−১ দক্ষিণ কোরিয়া
উয়েকি গোল ১' প্রতিবেদন সেও জি উন গোল ৮৫'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: এদিতা মিরাবিদোভা (উজবেকিস্তান)
ভিয়েতনাম ২−২ মিয়ানমার
  • টুয়ে দুং গোল ৪৫+২'
  • হুন নু গোল ৬৪' (পে.)
প্রতিবেদন
  • উইন থেইঙ্গি তুন গোল ২৮' (পে.)
  • খিন মার্লার তুন গোল ৪৯'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: রঞ্জিতা দেবী টেকচাম (ভারত)

তৃতীয় স্থানাধিকারী দলগুলির অবস্থান[সম্পাদনা]

গ্রুপের চতুর্থ দলের সাথে সংঘটিত খেলার ফলাফল গণনায় ধরা হয়নি।

অব গ্রুপ দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
বি  থাইল্যান্ড −২ নকআউট পর্ব
সি  ভিয়েতনাম −৬
 ইরান ১২ −১২
উৎস: এএফসি
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: ১) পয়েন্ট; ২) গোল পার্থক্য; ৩) গোল সংখ্যা; ৪) শৃঙ্খলাভিত্তিক পয়েন্ট; ৫) অঙ্কন।

নকআউট পর্ব[সম্পাদনা]

 
কোয়ার্টার-ফাইনালসেমি-ফাইনালফাইনাল
 
          
 
৩০ জানুয়ারি-ডিওয়াই পাতিল
 
 
 গণচীন
 
৩ ফেব্রুয়ারি-শিব ছত্রপতি
 
 ভিয়েতনাম
 
 গণচীন (পে.) ২(৪)
 
৩০ জানুয়ারি-ডিওয়াই পাতিল
 
 জাপান ২(৩)
 
 জাপান
 
৬ ফেব্রুয়ারি-ডিওয়াই পাতিল
 
 থাইল্যান্ড
 
 গণচীন
 
৩০ জানুয়ারি-শিব ছত্রপতি
 
 দক্ষিণ কোরিয়া
 
 অস্ট্রেলিয়া
 
৩ ফেব্রুয়ারি-শিব ছত্রপতি
 
 দক্ষিণ কোরিয়া
 
 দক্ষিণ কোরিয়া
 
৩০ জানুয়ারি-শিব ছত্রপতি
 
 ফিলিপাইন
 
 চীনা তাইপেই১(৩)
 
 
 ফিলিপাইন (পে.)১(৪)
 

কোয়ার্টার-ফাইনাল[সম্পাদনা]

গণচীন ৩–১ ভিয়েতনাম
  • ওয়াং শুয়াং গোল ২৫'
  • ওয়াং শাংশান গোল ৫২'
  • ট্যাং জিয়ালি গোল ৫৩'
প্রতিবেদন
  • টুয়েট ডুং গোল ১১'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: ওহ হোয়েং জং (দক্ষিণ কোরিয়া)

অস্ট্রেলিয়া ০–১ দক্ষিণ কোরিয়া
প্রতিবেদন জি সো উন গোল ৮৭'
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: কিন লিয়াং (চিন)

জাপান ৭–০ থাইল্যান্ড
  • সুগাসাওয়া গোল ২৭'৬৫' (পে.)৮০'৮৩'
  • মিয়াজাওয়া গোল ৪৫+২'
  • সুমিডা গোল ৪৮'
  • উয়েকি গোল ৭৫'
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: ক্যাসি রিবেল্ট (অস্ট্রেলিয়া)

চীনা তাইপেই ১–১
(অ.স.প.)
 ফিলিপাইন
ঝুয়ো লি-পিং গোল ৮২' প্রতিবেদন কুয়েজাদা গোল ৪৯'
পেনাল্টি
  • টিং চি পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • ওয়াং সিয়াং-হুয়েই পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • চেন ইং-হুই পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • সু ই-উন পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে
  • সু সিন-উন পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে
  • ঝুয়ো লি-পিং পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে
৩–৪
  • পেনাল্টিতে গোল করেছেন সারা কাস্তানেদা
  • পেনাল্টিতে গোল করেছেন অ্যানিস
  • পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে মিকল্যাট
  • পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে লং
  • পেনাল্টিতে গোল করেছেন ম্যাকড্যানিয়েল
  • পেনাল্টিতে গোল করেছেন বোল্ডেন
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: থিন থিন আয়ে (মায়ানমার)

সেমি-ফাইনাল[সম্পাদনা]

গণচীন ২−২
(অ.স.প.)
 জাপান
  • চেংশু গোল ৪৬'
  • ওয়াং শাংশান গোল ১১৯'
প্রতিবেদন উয়েকি গোল ২৬'১০৩'
পেনাল্টি
  • ঝ্যাং জিং পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে
  • ঝ্যাং রুই পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • ইয়াং লিনা পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • গাও চেন পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • ওয়াং শাংশান পেনাল্টিতে গোল করেছেন
৪−৩
  • কুমাগাই পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে
  • হাসেগাওয়া পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • শিমিজু পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • নাগানো পেনাল্টিতে গোল করেছেন
  • মিনামি পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে

দক্ষিণ কোরিয়া ২−০ ফিলিপাইন
  • সো-হুন গোল ৪'
  • হা-ইয়ন গোল ৩৪'
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: ০
রেফারি: পাঁসা চাইসানিৎ (থাইল্যান্ড)

ফাইনাল[সম্পাদনা]

গণচীন ৩–২ দক্ষিণ কোরিয়া
  • টাং জিয়ালি গোল ৬৮' (পে.)
  • ঝ্যাং লিনয়ান গোল ৭২'
  • জিয়াও ইউয়ি গোল ৯০+৩'
প্রতিবেদন (ফিফা)
প্রতিবেদন (এএফসি)
  • চো ইউ-রি গোল ২৭'
  • জি সো-উন গোল ৪৫+৩' (পে.)

বিশ্বকাপ প্লে-অফ পর্ব[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়ার অবস্থানের ওপর নির্ভর করে এই রাউন্ড সংঘটিত হচ্ছে।[৯]অস্ট্রেলিয়া কোয়ার্টার-ফাইনালে বিদায় নেওয়ার জন্য বাকি তিনটি কোয়ার্টার-ফাইনালে বিদায় গ্রহণকারী দল এই পর্বে একটি সিঙ্গেল রাউন্ড-রবিন টুর্নামেন্ট খেলবে নিজেদের মধ্যে। সেরা দল সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে আর বাকি দুই দল আন্তঃ-কনফেডারেশন প্লে-অফে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 ভিয়েতনাম +৩ ২০২৩ বিশ্বকাপে উত্তীর্ণ
 চীনা তাইপেই +২ ২০২৩ বিশ্বকাপ আন্তঃ-কনফেডারেশন প্লে-অফ
 থাইল্যান্ড −৫
উৎস: এএফসি
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার

ম্যাচসমূহ[সম্পাদনা]

থাইল্যান্ড ০–২ ভিয়েতনাম
প্রতিবেদন (ফিফা)
প্রতিবেদন (এএফসি)
  • হুন নুহ গোল ১৯'
  • থাই থি থাও গোল ২৪'

চীনা তাইপেই ৩–০ থাইল্যান্ড
  • সু ইউ-সুয়ান গোল ৪৪'৮৪'
  • চেন ইং-হুই গোল ৯০+৩'
প্রতিবেদন (ফিফা)
প্রতিবেদন (এএফসি)

ভিয়েতনাম ২–১ চীনা তাইপেই
  • চুয়ং থি কিউ গোল ৭'
  • নগুয়েন থি বিচ থ্যু গোল ৫৬'
প্রতিবেদন (ফিফা)
প্রতিবেদন (এএফসি)
  • সু ইউ-সুয়ান গোল ৫০'
ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়াম, নবি মুম্বই
রেফারি: ইয়োশিমি ইয়ামাশিতা (জাপান)

ফিফা মহিলা বিশ্বকাপে যোগ্যতার্জন[সম্পাদনা]

আয়োজক দেশ অস্ট্রেলিয়া ছাড়া এএফসির ৫টি দেশ ২০২৩ বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। দুটি দল আন্তঃ-কনফেডারেশন প্লে-অফে খেলার সুযোগ পাবে।

দল তারিখ পূর্বে অংশগ্রহণ
 অস্ট্রেলিয়া ২৫ জুন ২০২০[১০] ৭ (১৯৯৫, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭, ২০১১, ২০১৫, ২০১৯)
 গণচীন ৩০ জানুয়ারি ২০২২ ৭ (১৯৯১, ১৯৯৫, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭, ২০১৫, ২০১৯)
 জাপান ৮ (১৯৯১, ১৯৯৫, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭, ২০১১, ২০১৫, ২০১৯)
 দক্ষিণ কোরিয়া ৩ (২০০৩, ২০১৫, ২০১৯)
 ফিলিপাইন প্রথম অংশগ্রহণ
 ভিয়েতনাম ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  • ১৯৯৫, ১৯৯৯, ২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়া ওএফসি ভুক্ত দেশ হিসেবে যোগ্যতা অর্জন করে।

আন্তঃ-কনফেডারেশন প্লে-অফ[সম্পাদনা]

এএফসি থেকে দুটি দল আন্তঃ-কনফেডারেশন প্লে-অফে খেলার সুযোগ পাবে।

দল তারিখ
 থাইল্যান্ড ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২
 চীনা তাইপেই ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

গোলদাতা[সম্পাদনা]

এই প্রতিযোগিতায় ২৫টি ম্যাচে ১০৪টি গোল হয়েছে, যা ম্যাচ প্রতি গড়ে ৪.১৬টি গোল।

৭টি গোল

  • স্যাম কের

৫টি গোল

  • এমিলি ভ্যান এগমন্ড
  • ওয়াং শাংশান
  • ওয়াং শুয়াং
  • রিকো উয়েকি
  • জি সো-উন

৪টি গোল

  • ইউকা সুগাসাওয়া

সম্প্রচারক[সম্পাদনা]

এএফসি অঞ্চল[সম্পাদনা]

অঞ্চল সম্প্রচারক সংস্থা
অস্ট্রেলিয়া নেটওয়ার্ক ১০[১১][১২]
ভারত ইউরোস্পোর্ট, জিওটিভি[১৩]
তাইওয়ান এলটা টিভি
জাপান ডিএজেডএন[১৪]
ইন্দোনেশিয়া এমএনসি[১৫]
মায়ানমার ক্যানাল+[১৫]
দক্ষিণ কোরিয়া টিভি আইএনজি[১৫]
ফিলিপাইন ইলেভেন স্পোর্টস[১৫]
থাইল্যান্ড
গুয়াম সিবিএস
উত্তর মারিয়ানা দ্বীপপুঞ্জ
ভিয়েতনাম এফপিটি টেলিকম, ভিয়েতনাম টিভি[১৫]
চীন পিপিটিভি[১৬]

বিশ্বের বাকি অঞ্চল[সম্পাদনা]

অঞ্চল সম্প্রচারক সংস্থা
বার্মুডা সিবিএস[১৭][১৮][১৯]
কানাডা
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
আয়ারল্যান্ড ফ্রিস্পোর্টস
যুক্তরাজ্য
তুরস্ক স্পোর স্মার্ট, ডি-স্মার্ট গো
নিউজিল্যান্ডওশিয়ানিয়া বিইন স্পোর্টস

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "China PR's Wang Shanshan named AFC Women's Asian Cup India 2022™ MVP"। AFC। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২। 
  2. "China PR's Zhu Yu picked as Best Goalkeeper of AFC Women's Asian Cup India 2022™"। AFC। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২। 
  3. "Three top venues for AFC Women's Asian Cup India 2022 confirmed"এএফসি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  4. "Navi Mumbai, Ahmedabad, Bhubaneswar chosen as venues for 2022 Women's Asian Cup"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  5. "Host cities confirmed for AFC Women's Asian Cup India 2022"Westfield Matildas (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২১ 
  6. "New venues for AFC Women's Asian Cup India 2022™ confirmed"এএফসি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০২১ 
  7. "Latest update on the AFC Women's Asian Cup India 2022™"। Asian Football Confederation। ২৩ জানুয়ারি ২০২২। 
  8. "AFC Women's Asian Cup to be held from January 20 to February 6, 2022"। Sportstar। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ৪ নভেম্বর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০২১ 
  9. http://en.vff.org.vn/afc-announces-the-competition-format-of-womens-asian-cup-india-2022/। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০২১  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  10. "Australia and New Zealand selected as hosts of FIFA Women's World Cup 2023"FIFA। ২৫ জুন ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০২০ 
  11. "AFC and Australia's Network Ten agree 'US$77m' rights deal"SportsPro। ১৬ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  12. Tribune, The National (৬ জানুয়ারি ২০২২)। "How to watch Matildas at 2022 AFC Women's Asian Cup"The National Tribune (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  13. "Eurosport, Jio TV acquire broadcast rights for AFC Women's Asian Cup India 2022"mint (ইংরেজি ভাষায়)। ৭ জানুয়ারি ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  14. "DAZN snaps up AFC rights in Japan until 2028"SportsPro। ১৯ আগস্ট ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  15. "WAC - Where to watch"AFC Women's Asian Cup 2022 (ইংরেজি ভাষায়)। Asian Football Confederation। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 
  16. "Live Streaming and TV Listings, Live Scores, News, Videos - January 20, 2022 - AFC Women's Asian Cup"www.livesoccertv.com। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 
  17. "AFC inks exclusive media rights deal with CBS"SportsPro। ৪ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  18. "CBS SPORTS ACQUIRES EXCLUSIVE RIGHTS TO ASIAN FOOTBALL CONFEDERATION (AFC) COMPETITIONS - ViacomCBS Inc."ir.viacomcbs.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 
  19. Talk, World Soccer (৩ জুন ২০২১)। "CBS announces details about Asian Football Confederation"World Soccer Talk। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]