হংস জীবরাজ মেহতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

হংস জীবরাজ মেহতা (৩ জুলাই ১৮৯৭ - ৪ এপ্রিল ১৯৯৫)[১] ছিলেন ভারতের একজন সংস্কারবাদী, সমাজকর্মী, শিক্ষাবিদ, স্বাধীনতা কর্মী, নারীবাদী এবং লেখিকা। [২] [৩]

জীবনের প্রথমার্ধ[সম্পাদনা]

১৮৯৭ সালের ৩ জুলাই একটি নগর ব্রাহ্মণ পরিবারে হংস মেহতা জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বরোদা রাজ্যের দেওয়ান মনুভাই মেহতার কন্যা এবং প্রথম গুজরাটি উপন্যাস করণ ঘেলোর লেখক নন্দশঙ্কর মেহতার নাতনি ছিলেন। [১] [৪]

তিনি ১৯১৮ সালে দর্শনের স্নাতক হন। তিনি ইংল্যান্ডে সাংবাদিকতা এবং সমাজবিজ্ঞান অধ্যয়ন করেন। ১৯১৮ সালে, তিনি সরোজিনী নাইডু এবং পরে ১৯২২ সালে মহাত্মা গান্ধীর সাথে দেখা করেন। [৪] [৫]

তিনি জীবরাজ নারায়ণ মেহতার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। জীবরাজ নারায়ণ ছিলেন একজন বিশিষ্ট চিকিৎসক ও প্রশাসক এবং গুজরাটের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

রাজনীতি, শিক্ষা এবং সক্রিয়তা[সম্পাদনা]

হংস মেহতা বিদেশী জামাকাপড় এবং মদ বিক্রির দোকানগুলির পিকেটিং সংগঠিত করেছিলেন এবং মহাত্মা গান্ধীর পরামর্শ অনুসারে অন্যান্য স্বাধীনতা আন্দোলনের কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এমনকি ১৯৩২ সালে তাকে তার স্বামীর সাথে ব্রিটিশরা গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছিল। পরে তিনি বোম্বে লেজিসলেটিভ কাউন্সিলে নির্বাচিত হন। [২]

স্বাধীনতার পর, তিনি ১৫ জন মহিলার মধ্যে ছিলেন যারা ভারতীয় সংবিধান প্রণয়নকারী গণপরিষদের অংশ ছিলেন। [৬] তিনি উপদেষ্টা কমিটি এবং মৌলিক অধিকার বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ছিলেন। [৭] তিনি ভারতে মহিলাদের জন্য সমতা এবং ন্যায়বিচারের পক্ষে ছিলেন। [৮] [৪] [৯]

১৯২৬ সালে হংস বোম্বে স্কুল কমিটিতে নির্বাচিত হন এবং ১৯৪৫-৪৬ সালে সর্বভারতীয় মহিলা সম্মেলনের সভাপতি হন। হায়দ্রাবাদে অনুষ্ঠিত অল ইন্ডিয়া উইমেনস কনফারেন্সে তার সভাপতির ভাষণে তিনি নারী অধিকারের একটি সনদ প্রস্তাব করেন। তিনি ১৯৪৫ থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত ভারতে বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন - এসএনডিটি মহিলা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, অল ইন্ডিয়া সেকেন্ডারি বোর্ড অফ এডুকেশনের সদস্য, ইন্টার ইউনিভার্সিটি বোর্ড অফ ইন্ডিয়ার সভাপতি এবং বরোদার মহারাজা সায়াজিরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর[৫] পদ সেগুলোর মধ্যে অন্যতম।

১৯৪৬ সালে নারীদের অবস্থার বিষয়ে নিউক্লিয়ার সাব-কমিটিতে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি। ১৯৪৭-৪৮ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনে ভারতীয় প্রতিনিধি হিসাবে, তিনি মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণাপত্রের একটি বাক্য পরিবর্তনে ভূমিকা পালন করেন। "all men are created equal"-এর বদলে লিঙ্গ সমতার জন্য। [১০] "all human beings" করা হয়। [১১] হংস পরে ১৯৫০ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান হন। তিনি ইউনেস্কোর নির্বাহী বোর্ডের সদস্যও ছিলেন। [৩] [১২]

সাহিত্যিক পেশা[সম্পাদনা]

তিনি গুজরাটি ভাষায় বেশ কয়েকটি শিশুতোষ বই লিখেছেন যার মধ্যে রয়েছে অরুন্নু অদ্ভু‌ত স্বপ্ন (১৯৩৪), বাবলানা পরাক্রম (১৯২৯), বালবর্তাবলী পর্ব ১-২ (১৯২৬, ১৯২৯)। তিনি বাল্মীকি রামায়ণের কিছু বই অনুবাদ করেছেন: অরণ্যকাণ্ড, বালকাণ্ড এবং সুন্দরকাণ্ড । তিনি গালিভারস ট্রাভেলস সহ অনেক ইংরেজি গল্প অনুবাদ করেছেন। তিনি শেক্সপিয়ারের কিছু নাটকও রূপান্তর করেছিলেন। তার প্রবন্ধগুলি সংগ্রহ করা হয়েছিল এবং কেতলাক লেখো (১৯৭৮) নামে প্রকাশিত হয়েছিল। [২] [৫]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

গুজরাটি, হিন্দি এবং তামিল ভাষায়

  • ত্রাণ নাটকো । (১৯২৬)। মুম্বাই : হংস মেহতা ওসিএলসি ৪১০৫১৭৯৭
  • মেহতা, হংস; সুইফট, জোনাথন। গোখীবরানী মুসাফরী । ভাডোরা : বালাজীবনা কার্যালয় (১৯৩১)ওসিএলসি ৩৮১৪৩৭৩৭
  • রুক্মিণী । (১৯৩৩)। ভাডোরা : আর্য সুধারক প্রেসা (গুজরাতি ভাষায়)
  • অরুণানুণ অদ্ভূত স্বপ্ন । (১৯৩৪)। মুম্বাই : হংস মেহতা ওসিএলসি ৩৪৩০২২১৭
    • মেহতা, এস. হংস। (১৯৫০)। অরুণানু অদ্ভূত স্বপন । আহমেদাবাদ, ভারত : গুজর গ্রন্থ রত্ন কার্যালয়ওসিএলসি ৭৯৮২৮০৩৫০
  • বাকাবর্তাবলী [বাচ্চনাল]। (১৯৩৯)। মুম্বাই : সোল এজাংট, ষষ্ঠ সাহিত্য ভাণ্ডারওসিএলসি ৩৭৫২০০৯২
  • হিমালয় স্বরূপা আনে বিজং নাটকো । শীষ্ট
  • মেহতা, হংস। ত্রান নাটকো আনে বিজম [তিনটি নাটক ইত্যাদি]। (১৯৫৬)।ওসিএলসি ৮৩৫৮৯৭১৩ওসিএলসি 83589713
  • মেহতা, হংস; চিমানালা, চন্দ্রবদন; সীতাশু, যশশ্চন্দ্র। কেতালাক লেখা । মুম্বাই : ফারবাসা গুজরাটি সভা (১৯৭৭)ওসিএলসি ৪০৫৬২৮৬৪
  • মেহতা, হংস; কোলোডি, কার্লো। বাভলানা প্রক্রমো [সাহসী কীর্তি] রাজকোট : প্রভিন রাজকোট (১৯৯৩)ওসিএলসি ৫৯৯০০০০৭
  • মেহতা, হংস। রাম কথা । [রামের গল্প] (১৯৯৩)। দিল্লী : ন্যাশনাল বুক ট্রাস্ট। (হিন্দি ভাষায়)
  • মেহতা, হংস। আয়োতিয়িন ইহভরাসন । (২০০৪)। দিল্লী : ন্যাশনাল বুক ট্রাস্ট। (তামিল ভাষায়)

ইংরেজীতে

  • যুদ্ধ-পরবর্তী শিক্ষাগত পুনর্গঠন: ভারতে নারী শিক্ষার বিশেষ উল্লেখ সহ । (----) বোম্বে : প্রতিভাওসিএলসি ৪৮৩২৮০২১
  • বিবাহ ও উত্তরাধিকারের হিন্দু আইনের অধীনে মহিলা । (১৯৪৪)। পি. ৫২, বোম্বে : প্রতিভা পাবলিকেশন্স।ওসিএলসি ৭৫২৬১৪৪৭৭ওসিএলসি 752614477
  • হংস, মেহতা। (সম্পাদনা। ) "অসামরিক". (১৯৪৫)। সর্বভারতীয় মহিলা সম্মেলনের জন্য, আউন্ধ : আউন্ধ পাব। বিশ্বাস,ওসিএলসি ৬২৬১৪৬১৩
  • ভারতীয় মহিলা । (১৯৮১)। নতুন দিল্লি : বুটালা (ইংরেজি ভাষায়)

অনুবাদ[সম্পাদনা]

ইংরেজিতে

  • উজ্জয়নীর রাজা; বিক্রমাদিত্য হাসসা; মেহতা, হংস। রাজা বিক্রমের অ্যাডভেঞ্চার । (সামলা ভাটের সিংহাসন-বত্রিসির গুজরাটি সংস্করণ থেকে নির্বাচন। প্লেট সহ।) (১৯৪৮)। বোম্বে : অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, pp.vii, ১৫০।ওসিএলসি ৫০৩৭৮৩১১২ওসিএলসি 503783112
    • মেহতা, হংস; শুক্লা, রাজা বিক্রমের ভিকে অ্যাডভেঞ্চারস । (১৯৫৪) লন্ডন : অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি। প্রেস,ওসিএলসি ৫৫১৮২৯৩১৯
  • সরমা, ডিএস; মেহতা, হংস। অযোধ্যার রাজপুত্র । নতুন দিল্লি : ন্যাশনাল বুক ট্রাস্ট, ভারত : ভারতের প্রধান মজুতদার, থমসন প্রেস (ভারত) (১৯৭৪)। (ইংরেজি ভাষায়)
  • Une femme d'aujourd'hui: roman . (১৯৬৬)। প্যারিস : অ্যালবিন মিশেল। (ফরাসি ভাষায়)

পুরস্কার[সম্পাদনা]

মেহতা ১৯৫৯ সালে পদ্মভূষণে ভূষিত হন।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Trivedi, Shraddha (২০০২)। Gujarati Vishwakosh (Gujarati Encyclopedia)Gujarati Vishwakosh Trust। পৃষ্ঠা 540। ওসিএলসি 248968453 
  2. Wolpert, Stanley (৫ এপ্রিল ২০০১)। Gandhi's Passion: The Life and Legacy of Mahatma Gandhi। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 149আইএসবিএন 9780199923922  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "c" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  3. Srivastava, Gouri (২০০৬)। Women Role Models: Some Eminent Women of Contemporary India। Concept Publishing Company। পৃষ্ঠা 14–16। আইএসবিএন 9788180693366  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "a" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  4. "Hansa Jivraj Mehta: Freedom fighter, reformer; India has a lot to thank her for"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০১-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-২৩  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে ":0" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  5. "લેખિકા-પરિચય" [Introduction of Women Writers]। વીસમી સદીનું ગુજરાતી નારીલેખન (গুজরাটি ভাষায়) (1st সংস্করণ)। Sahitya Akademi। ২০০৫। পৃষ্ঠা 350। আইএসবিএন 8126020350ওসিএলসি 70200087  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে ":1" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  6. Ravichandran, Priyadarshini (১৩ মার্চ ২০১৬)। "The women who helped draft our constitution"Mint। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৬, ২০১৭ 
  7. "CADIndia"cadindia.clpr.org.in। ৩১ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-১৬ 
  8. "CADIndia"cadindia.clpr.org.in। ২৫ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-১৬ 
  9. RAJU, M. P.। "Denial of rights"Frontline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৪ 
  10. http://www.un.int/india/india%20&%20un/humanrights.pdf ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১২ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে
  11. Jain, Devaki (২০০৫)। Women, Development and the UN। Indiana University Press। পৃষ্ঠা 20 
  12. Dhanoa, Belinder (১৯৯৭)। Contemporary art in Baroda। Tulika। পৃষ্ঠা 267। আইএসবিএন 9788185229041 
  13. "Hansa Jivraj Mehta"। Praful Thakkar's Thematic Gallery of Indian Autographs। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুন ২০১৬