স্টিভেন সীগাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্টিভেন সীগাল
জন্মস্টিভেন ফ্রেদেরিক সীগাল
(1952-04-10) এপ্রিল ১০, ১৯৫২ (বয়স ৬৭)[১]
ল্যানসিং, মিশিগান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
অন্য নামচুংড্র্যাগ দর্জি, টেকশিগেমিচি
ধরনআকিদো
পদবী     আকিদোতে ৭ম স্তরের ব্ল্যাকবেল্টধারী
কার্যকাল১৯৮৭-বর্তমান
পেশাঅভিনেতা, চলচ্চিত্র প্রযোজক, মার্শাল আর্টিস্ট, সঙ্গীতজ্ঞ, লেখক, রিজার্ভ ডেপুটি শেরিফ
স্বামী বা স্ত্রীমিয়াকো ফুজিতানি (১৯৭৪-৮৭; বিবাহ-বিচ্ছেদ)
আর্দ্রিয়েনি লা রুজা (১৯৮৪-৮৭; বাতিল)
কেলি লিব্রোক (১৯৮৭-৯৬)
আর্দেনেতুয়া (ব্যাটসুখ) সীগাল (২০০৯-বর্তমান)
সন্তান৭ (সংযুক্ত আয়াকো ফুজিতানি)
ওয়েবসাইটstevenseagal.com

স্টিভেন ফ্রেদেরিক সীগাল[২] (ইংরেজি: Steven Frederic Seagal; জন্ম: ১০ এপ্রিল, ১৯৫২)[১] মিশিগান অঙ্গরাজ্যের ল্যানসিংয়ে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট মার্কিন চলচ্চিত্র তারকা, প্রযোজক, লেখক, মার্শাল আর্টিস্ট ও গিটারবাদক। আকিদোতে ৭ম-ড্যান ব্ল্যাকবেল্টধারী সীগাল জাপানে আকিদোর প্রশিক্ষকেরও দায়িত্ব পালন করেছেন।[৩] তিনিই প্রথম বিদেশী ব্যক্তিত্ব, যিনি জাপানে আকিদো দোজো পরিচালনা করেছেন।[৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলসে অনেকগুলো চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেন। ১৯৯২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত 'আন্ডার সিজ' চলচ্চিত্রটি তাঁকে বিপুল খ্যাতি এনে দেয়। অনেক স্টুডিও চলচ্চিত্র নির্মাণ করলেও সেগুলো তেমন সফলতার মুখ দেখেনি। তারপর তিনি ডাইরেক্ট-টু-ভিডিও চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। এগুলো মূলতঃ স্বল্প বাজেটের ও ইউরোপ কিংবা এশিয়ায় চলচ্চিত্রায়ণ করা হয়েছিল।

২০০৯ সালে এএন্ডই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে স্টিভেন সীগালকে নিয়ে রিয়্যালিটি শো: 'লম্যান' প্রদর্শন করতে শুরু করে। এ শোতে ডেপুটি শেরিফ পদবীধারী স্টিভেন সীগালের কর্মজীবনকে প্রাধান্য দেয়া হয়। ২০১১ সালে সীগাল 'ট্রু জাস্টিস' শিরোনামে ১৩ পর্বের টেলিভিশন সিরিজ নির্মাণ ও প্রদর্শন করেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

সীগালের চারটি বৈবাহিক সম্পর্কে ৭ সন্তান জন্মগ্রহণ করে। প্রথম স্ত্রী জাপানী মিয়াকো ফুজিতানি’র এক পুত্র ও কন্যা রয়েছে। আয়াকো ফুজিতানি নামীয় কন্যা অভিনেত্রী ও লেখিকা।[৫][৬] মার্কিন অভিনেত্রী আর্দ্রিনে লা রুজাকে বিয়ে করেন। বিবাহের সময় কেলি লিব্রোকের সাথে সম্পর্ক গড়ে উঠে। ফলে সে গর্ভবতী হয়ে পড়ে। এতে তিনি লা রুজার সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক ভেঙ্গে দেন ও লিব্রোককে বিয়ে করেন। এ সংসারে ৩ সন্তান রয়েছে। এরপর তিনি তাদের ধাত্রী অ্যারিজা ওল্ফের সাথে সম্পর্কে লিপ্ত হন।[৭] তাদের এক কন্যা সন্তান হয়েছিল। বর্তমানে মঙ্গোলীয় আর্দেনেতুয়া ব্যাটসুখ এলি নাম্নী এক রমণীকে বিয়ে করেন। তাদের এক পুত্র রয়েছে।[৮] এছাড়াও তিব্বতীয় শিশু ইয়াবশী প্যান রিনজিনওয়াংমো তাদের সাথে বসবাস করছে।[৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Steven Seagal – About Steven ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৯ জুন ২০১৪ তারিখে. Stevenseagal.com (1952-04-10). Retrieved on 2011-11-19.
  2. /s[অসমর্থিত ইনপুট: 'ɨ']ˈɡɑːl/.
  3. Goldstein, Patrick (১৯৮৮-০২-১৪)। "Steven Seagal Gets a Shot at Stardom"The Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২৫ 
  4. Britishaikido.com, Retrieved on January 27, 2008. Britishaikido.com. Retrieved on 2011-11-19.
  5. [ http://www.eonline.com/On/Holly/Shows/Seagal/facts.html Paul Smith. "E! TV- "E! True Hollywood Story" – Steven Seagal". E!. Retrieved 2006-06-25.]
  6. ""Mini Facts". Retrieved 2007-01-27."। ২০০৭-০১-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৮-২৮ 
  7. "Spiritually Retreat With Steven Seagal". Luke Ford. Retrieved 2007-01-27.
  8. "Proud father of seven Steven Seagal shows off baby son on reality show". Daily Mail (London). 2010-10-21. Retrieved 2010-10-23.
  9. Los Angeles City Ethics Commission – Search Contributions. Ethics.lacity.org. Retrieved on 2011-11-19.
  10. Charles Carreon. "Steven Seagal Comes Out of the Buddhist Closet". American Buddha Online Library. Retrieved 2007-05-24.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]