সোন নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

'সোন নদী' (অন্য উচ্চারণ সোনে '); যমুনা নদী এর পরে গঙ্গার দক্ষিণ উপনদীগুলির 'দ্বিতীয় বৃহত্তম নদী। প্রাথমিকভাবে এখানের বনভোজন স্থানগুলির কারণে কাব্যরা খুর্দ সোন নদীর তীরে একটি সুন্দর জায়গা।

গতিপথ[সম্পাদনা]

সোনমুদা , সোননদীর উৎস
Babur crossing the Son River.[১]

সোন নদীর মধ্যপ্রদেশের অমরকণ্টকএর কাছ থেকে উৎপত্তি,[২] নর্মদা নদী র উৎসের পূর্বদিকে এবং প্রবলভাবে পূর্ব দিকে অগ্রসর হওয়ার পূর্বে যেখানে দক্ষিণপশ্চিম-উত্তরপূর্ব বরাবর কাইমুর শ্রেণীর সম্মুখীন হয় সোন তার আগে মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের উত্তর-উত্তর-পশ্চিম দিক দিয়ে প্রবাহিত হয।সোন নদী কাইমুর শ্রেণীর সমন্তরাল, উত্তরপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ডবিহার এর মধ্য দিয়ে পূর্ব-উত্তর-পূর্ব বরাবর প্রবাহিত পাটনার পশ্চিমে গঙ্গায় মিলিত হয়। ভৌগলিকভাবে সোনের নিম্ন উপত্যকা নর্মদা উপত্যকার বিস্তার এবং কাইমুর শ্রেণী বিন্ধ শ্রেনীর বিস্তার । ডেহরি অন সোন এবং সোনভদ্র সোন নদীর উপর প্রধান দুই শহর।

সোন নদী ৭৮৪ কিলোমিটার (৪৮৭ মাইল) দীর্ঘ, ভারতের দীর্ঘতম নদী। [2] এর প্রধান উপনদী রিহানদ ও উত্তর কোয়েল। সোনের একটি খাড়া ঢাল (৩৫-৫৫ সেন্টিমিটার প্রতি) রয়েছে, তাতে অববাহিকায় বর্ষার জল জমা হয়। সোন, বিস্তৃত এবং অগভীর হওয়ায়, বছরের বাকি সময়ে বাকী অংশে জল সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকে। সোনের চ্যানেল অত্যন্ত বিস্তৃত (প্রায় ৫ কিলোমিটারের ডেহরির উপর) কিন্তু প্লাবনভূমি স্রোত হয়, মাত্র ৩ থেকে ৫কিলোমিটার (২-৩ মি) প্রশস্ত। অতীতে, সোন অবশ্যই গতি পরিবর্তনের জন্য কুখ্যাত ছিল, কারণ এটি পূর্ব তীরের কাছাকাছি অনেক পুরাতন নদীটির দেখতে পাওয়া যায়। আধুনিক সময়ে এই প্রবণতাটি ডেরির আনিকাট দিয়ে আটকান হয়েছে এবং এখন ইন্দ্রপুরী ব্যারেজ দিয়ে।

সেতু[সম্পাদনা]

১৪৪০ মিটার রেল ও সড়ক ল্যাটিস-গার্ডার কংক্রিট এবং ইস্পাত আবদুল বারী সেতু (পূর্বে কিন্তু ব্যাপকভাবে কোলভার ব্রিজ নামে পরিচিত ছিল এবং তারও পূর্বে সোন সেতু) ১৮২৫ সালে আরার নিকটবর্তী অঞ্চলে সম্পন্ন হয়)। [5] ১৯০০ সালে ডেহরিতে নেহেরু সেতু নির্মানের পূর্ব পর্যন্ত, এটি ভারতের সবচেয়ে দীর্ঘ সেতু ছিল।[৩] It remained the longest bridge in India, until the Nehru Setu bridge at Dehri was opened in 1900.[৪][৫]

বাঁধ[সম্পাদনা]

সোনের প্রথম বাঁধটি ১৮৭৩-৭৪ সালে ডেহরিতে নির্মিত হয়েছিল।

ইন্দ্রপুরী বাঁধটি ৮ কিলোমিটার (৫ মাইল) উপরে ১৯৬৮ সালে চালু হয়। [৬]

২০০৮ সালে মধ্য প্রদেশের বানসাগর বাঁধ চালু হয়।

গ্যাল্যারি=[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

ভারতের নদীর তালিকা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Baburnama"। ১৫৯০s। ১৭ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; volume 23 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. "Bridges: The Spectacular Feat of Indian Railways" (PDF)। National Informatics Centre। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (pdf) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১১ 
  4. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; houlton নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  5. "Longest railway bridge in Kochi"। ForumCo.com। ২০১২-০৩-২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুলাই ২০১১ 
  6. "Performance Evaluation of Patna Main Canal" (PDF)। ICAR Research Complex for Eastern Region,। ২৬ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১১