সেজান মাহমুদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সেজান মাহমুদ একজন বাংলাদেশি-বংশোদ্ভূত আমেরিকান সাহিত্যিক, গীতিকবি, ছড়াকার এবং কলামিস্ট। পেশাগতভাবে তিনি একজন চিকিৎসা বিজ্ঞানী এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা কলেজ অব মেডিসিনে অধ্যাপক এবং সহকারী ডিন হিসাবে কর্মরত আছেন।[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

সেজান মাহমুদ ১ সেপ্টেম্বর সিরাজগঞ্জে জন্ম গ্রহণ করেন।[২] তার পিতার নাম মরহুম আফাজ উদ্দিন সরকার এবং মাতার নাম ফিরোজা বেগম।

সেজান মাহমুদ ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস., আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.পি.এইচ. এবং এন্ডোক্রাইনোলজিতে স্নাতকোত্তর ফেলোশিপ এবং বার্মিংহাম থেকে পিএইচ.ডি. ডিগ্রি লাভ করেন।

কর্ম জীবন[সম্পাদনা]

চিকিৎসক হিসেবে সেজান তার পেশাগত জীবন শুরু করেন বারডেম-এ স্বাস্থ্যশিক্ষা বিভাগে। এরপর আন্তর্জাতিক ডায়াবেটিস ফেডারেশনের ফেলোশিপ নিয়ে হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলে যান ও এম.পি.এইচ. এবং পিএইচ.ডি. ডিগ্রি লাভের পর তিনি ওহাইও মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি ও বোউলিং গ্রীন স্টেট ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপনা শুরু করেন। বর্তমানে তিনি আমেরিকার ফ্লোরিডা অংগরাজ্যে মেডিসিনের অধ্যাপক হিসাবে কর্মরত আছেন। [৩]

সাহিত্য[সম্পাদনা]

ছড়াগ্রন্থ হাবিজাবি লেখার মাধ্যমে ১৯৮৮ সালে তিনি সাহিত্য জগতে আত্নপ্রকাশ করেন এবং প্রথম গ্রন্থের জন্যেই বাংলাদেশ শিশু একাডেমী কর্তৃক প্রদত্ত 'অগ্রণী ব্যাংক শিশু সাহিত্য পুরস্কার' লাভ করেন। তার লেখা 'পায়ের নিচে এভারেস্ট' বাংলাদেশ টেক্সট বুক বোর্ড ষষ্ঠশ্রেনীর পাঠ্য বইতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে ১৯৯৬ সালে।[৪] মুক্তিযুদ্ধে নৌ-কমান্ডোদের গৌরবজনক ভূমিকার কাহিনী নিয়ে লেখা ‘অপারেশন জ্যাকপট’ ১৯৯১ সালে প্রকাশিত হলে সুধীমহলে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়।[৫] নিরিক্ষাধর্মী জাদুবাস্তবতা আর সাইকোএনালিটিক উপন্যাস 'অগ্নিবালক' প্রকাশিত হয় ২০০৯ সালে যা সাহিত্য সমালোচকদের দ্বারা প্রসংশিত হয়।

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

তার প্রথম তথ্যচিত্র "লাশকাটা ঘর"; এটি বাংলাদেশের ডোমদের জীবন নিয়ে নির্মিত হয়। এই তথ্যচিত্রটি "রিচমন্ড আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভাল"-এ '২০১৪ অনারেবল মেনশন' পুরস্কার লাভ করে। তার মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস "মনের ঘুড়ি লাটাই" অবলম্বনে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র "গৌরব" নির্মাণ করেছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী; এর নির্দেশনায় ছিলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রকার হারুনর রশীদ।

রচনাবলী[সম্পাদনা]

  • সায়েন্স ফিকশন সমগ্র-১ (সন্দেশ প্রকাশন, ২০১৯)
  • দেবদূত মানুষ (সায়েন্স ফিকশন, সন্দেশ প্রকাশন, ২০১৯)
  • হার্ভার্ডের স্মৃতি ও অন্য এক আমেরিকা (ঐতিহ্য প্রকাশনী, ২০১৬)
  • পথ হারানোর পথ (কলাম সমগ্র-১, (সুবর্ণ প্রকাশনী, ২০১২)
  • বিজ্ঞাননির্ভর এডভেঞ্চার সমগ্র-১ (ঝিঙ্গেফুল প্রকাশনী, ২০১০)
  • মুক্তিযুদ্ধের কিশোর রচনা সমগ্র, ১ (মাওলা ব্রাদার্স, ২০০২)
  • অগ্নিবালক (সাহিত্য প্রকাশ, ২০০৯) - নিরিক্ষাধর্মী উপন্যাস
  • হারাম ও অন্যান্য গল্প (মাওলা ব্রাদার্স, ২০১১) - ছোট গল্প
  • মানুষের মধ্যে মানুষ (বাংলা প্রকাশ, ২০১৪) - সায়েন্স ফিকশন;
  • কসমিক সংগীত (বাংলা প্রকাশ, ২০১৪) - সায়েন্স ফিকশন;
  • লীথী (বিদ্যাপ্রকাশ, ২০১২) - সায়েন্স ফিকশন;
  • আয়ুষ্কাল ও ত্রিমিলার প্রেম (অবসর প্রকাশনী, ২০১০) - সায়েন্স ফিকশন;
  • অপারেশন জ্যাকপট (প্রতীক প্রকাশনী, ১৯৯১) - মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক উপন্যাস ও ডক্যুমেন্টরী;
  • Operation Jackpot (Translated by Sagar Chaudhury), (Banglaprokash, 2009) - মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক উপন্যাস ও ডক্যুমেন্টরী;
  • মুক্তিযুদ্ধের সেরা লড়াই (মোহনা প্রকাশনী, ১৯৯২) - মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক উপন্যাস ও ডক্যুমেন্টরী;
  • মনের ঘুড়ি লাটাই (সাহিত্য প্রকাশ, ১৯৯২) - মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক উপন্যাস ও ডক্যুমেন্টরী;
  • কালা কুঠুরি (মাওলা ব্রাদার্স, ২০০২) - মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক উপন্যাস ও ডক্যুমেন্টরী;
  • ফেসবুকের বন্ধু, (ঝিঙ্গেফুল, ২০১০, রচনা সমগ্রে অন্তর্ভুক্ত) - বিজ্ঞাননির্ভর উপন্যাস;
  • তুষার মানব (সাহিত্য প্রকাশ, ১৯৯৪) - বিজ্ঞাননির্ভর উপন্যাস;
  • দ্বীপ পাহাড়ে আতঙ্ক (অঙ্কুর প্রকাশনী, ১৯৯২) - বিজ্ঞাননির্ভর উপন্যাস;
  • প্রোজেক্ট ভূতং আধুনিকং (আগামী প্রকাশনী, ২০০২) - কিশোর গল্প;
  • বিশ্বের শ্রেষ্ঠ দশ অভিযাত্রী (সাহিত্য প্রকাশ, ১৯৯২) - নিবন্ধ;
  • ছড়ায় ছড়ায় সায়েন্স ফিকশন (আগামী প্রকাশনী, ২০১০) - ছড়াগ্রন্থ;
  • হাবিজাবি (দিনরাত্রী প্রকাশনী, ১৯৮৮, অনিন্দ্য প্রকাশনী ১৯৯২, আগামী প্রকাশনী, ২০১০) - ছড়াগ্রন্থ;
  • পাল্টে শুধু লেবাস (শৈলী প্রকাশনী, ১৯৯২) - ছড়াগ্রন্থ;
  • কিশোর রহস্য গল্প (দিনরাত্রী প্রকাশনী, ১৯৮৮) - সম্পাদিত গ্রন্থ;
  • নির্বাচিত কিশোর রহস্য গল্প (কাকলী প্রকাশনী, ১৯৯২, ২০০৫) - সম্পাদিত গ্রন্থ;
  • চোখ ফিরিয়ে দেখি (১৯৯২) - সম্পাদিত গ্রন্থ;
  • পথ হারানোর পথ (সুবর্ণ প্রকাশনী, ২০১২) - ভ্রমণ কাহিনী ও কলাম।

সংগীত রচনা[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ টেলিভিশন ও অন্যান্য মাধ্যমে বেশ কিছু সঙ্গীত রচনা করেছেন; এরমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য কয়েকটি হলোঃ নেলসন মেন্ডেলা (ফকির আলমগীর), আমি নই সেই বনলতা সেন (কনকচাঁপা), কোন এক সুন্দরী রাতে (সামিনা চৌধুরী), আমার দু'চোখ দিয়ে (তপন চৌধুরী), বাঁচার মতো বাঁচতে চাই (রেঁনেসা), আমি একা হলেই বুঝি (সামিনা চৌধুরী), তবু ভালবাসি আমাদের ঢাকা (ফকির আলমগীর ও সহশিল্পীবৃন্দ)

পুরস্কার ও সম্মননা[সম্পাদনা]

  • শিশু একাডেমী পুরস্কার ১৯৮৮
  • আওয়ার প্রাইড এওয়ার্ড ২০০৫
  • আমেরিকান পাবলিক হেলথ এসোসিয়েশন আরলি ক্যারিয়ার এওয়ার্ড ২০০৬ (প্রথম এশিয়ান)
  • আলাবামা পাওয়ার ফাউন্ডেশন আউটস্ট্যান্ডিং এচিভ্‌মেন্ট এওয়ার্ড ২০০১

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Saleh M. M. Rahman, MD, Ph.D., M.P.H"College of Medicine। University of Central Florida। 
  2. [Shishu, 15th year, 5th vol. p 43-46]
  3. "Saleh M Rahman MD, PhD, MPH"Florida State University College of Medicine। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৬ 
  4. Charupath, 6th grade। Bangladesh Text Book Board। ১৯৯৬। পৃষ্ঠা 68–72। 
  5. Sezan Mahmud। Operation Jackpot: A true, untold story of naval commando operations in the liberation war of Bangladesh in 1971Amazon.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-০২