বিষয়বস্তুতে চলুন

সুলুর বায়ুসেনা ঘাঁটি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুলুর বায়ুসেনা ঘাঁটি

சூலூர் விமானப்படை நிலையம்
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
বিমানবন্দরের ধরনসামরিক
পরিচালকভারতীয় বিমানবাহিনী
অবস্থানসুলুর, তামিলনাড়ু, ভারত
এএমএসএল উচ্চতা১,২৫০ ফুট / ৩৮১ মিটার
স্থানাঙ্ক১১°০০′৪৯″ উত্তর ০৭৭°০৯′৩৫″ পূর্ব / ১১.০১৩৬১° উত্তর ৭৭.১৫৯৭২° পূর্ব / 11.01361; 77.15972
রানওয়ে
দিক দৈর্ঘ্য পৃষ্ঠতল
মি ফুট
০৫/২৩ ২,৫১৬ ৮,২৫৫ অ্যাসফাল্ট (পিচ)
ভারত সরকার

সুলুর এয়ার ফোর্স স্টেশন হল তামিলনাড়ু রাজ্যের কোয়েম্বাটুরের নিকটে সুলুরে অবস্থিত ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি বিমান ঘাঁটি। এটি হিন্ডন বিমান ঘাঁটির পরে ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিমান ঘাঁটি। এটি একমাত্র ভারতের বিমান ঘাঁটি, যেখানে যুদ্ধবিমান, ক্যারিয়ার বিমান, ক্যারিয়ার হেলিকপ্টারস, অ্যাটাক চপ্টারস, একটি মেরামত ও সংস্কারের ডিপো, বায়ুসেনা হাসপাতাল, সাউদার্ন কমান্ডের উপ সদরদপ্তর, ইসিএইচএস সহ সমস্ত বিভাগ রয়েছে।[২] এটি রয়্যাল নেভিভারতীয় নৌবাহিনীর প্রাক্তন ঘাঁটি।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঘাঁটিটি ১৯৪০ সালে তৎকালীন ব্রিটিশ রাজের রয়্যাল নেভির দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়। এই ঘাঁটিটিকে এইচএমএস ভাইয়ারি বলা হত এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বিমান পরিচালনার জন্য আরএনএওয়াই সুলুর নামে পরিচিত বিমানের মেরামত কেন্দ্র ফ্লিট এয়ার আর্ম রয়্যাল নেভি এয়ার ইয়ার্ডের স্থাপন করা হয় ঘাঁটিটিতে। স্বাধীনতা সংগ্রাম চলাকালে ১৯৪২ আগস্ট ২৬ অগাস্ট ঘাঁটিটি পুড়িয়ে দেওয়া হয়। ১৯৪৩ সালে ভারতীয় রয়েল এয়ার ফোর্স সুলুর আসে, যা পরে ১৯৪৯ সালে কোচিনে স্থানান্তরিত হয়।

পরিচালনাগত বিমান[সম্পাদনা]

এই ঘাঁটিটি ভারতীয় বিমানবাহিনীর ৫ টি ঘাঁটি মেরামত ডিপো এবং ৪৩ টি উইংয়ের জন্য একটি কেন্দ্র।[৩] ৩৩ নং স্কোয়াড্রন "হিমালয়ান গিজ" যা মাঝারি পরিবহন বিমান আন্তোনভ আন-৩২ পরিচালনা করত সুলুর বিমান ঘাঁটিকে ভিত্তি করে।[৪][৫] ঘাঁটিটিতে ১০৯ হেলিকপ্টার ইউনিট "নাইটস" অবস্থান করছে, এটি মি-১৭ ভি৫ পরিবহন হেলিকপ্টারগুলি পরিচালনা করে।[৬] ২০১৮ সালের জুলাই মাস থেকে এয়ার ফোর্স স্টেশনটি ৪৫ নং স্কোয়াড্রন আইএএফ "ফ্লাইং ডাগারস" এর ঘাঁটি হিসাবে কাজ শুরু করে, যা এইচএএল তেজস পরিচালনা করে।[৭] ২০২০ সালের ২৭ শে মে এই বিমান ঘাঁটি থেকে ১৮ নং স্কোয়াড্রন "ফ্লাইং বুলেটস" চালু হয়।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Airport information for VOSX ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৬ মার্চ ২০১৬ তারিখে from DAFIF
  2. "Tejas Commences Operations From Kerala's Sulur Air Force Station"NDTV। Press Trust of India। ২ জুলাই ২০১৮। 
  3. "AF Sulur to get Light Combat Aircraft in 2010: Air Chief"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। ১৭ এপ্রিল ২০০৮। 
  4. "33 Squadron celebrates anniversary"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ এপ্রিল ২০১০। 
  5. "Selfless service earns two IAF squadrons President's Standard"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। ১২ ডিসেম্বর ২০১২। 
  6. Thomas, Wilson (২৮ আগস্ট ২০১৮)। "How air warriors fromSulur flew to help Kerala"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। 
  7. Siddiqui, Huma (নভেম্বর ১৩, ২০১৯)। "More firepower to Indian Air Force! IAF to receive around 200 fighter aircrafts [sic]"। সংগ্রহের তারিখ মে ২৭, ২০২০ 
  8. "LCA Tejas to join IAF 18 Squadron today at Tamil Nadu's Sulur airbase"Zee News। সংগ্রহের তারিখ মে ২৭, ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]