সারা রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সারা রায়
Sara Rai.jpeg
২০১৮ সালে এলাহাবাদে সারা রায়।
জন্ম (1956-09-15) ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৫৬ (বয়স ৬৩)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাকথাসাহিত্যিক এবং অনুবাদক


সারা রায় (সারা রাই, জন্ম: ১৫ই সেপ্টেম্বর ১৯৫৬) হলেন একজন সমসাময়িক ভারতীয় লেখিকা, রচনা সংকলনের সম্পাদক, আধুনিক হিন্দিউর্দু ভাষার কথাসাহিত্যিক এবং অনুবাদক। তিনি বর্তমানে উত্তর ভারতের এলাহাবাদ (উত্তরপ্রদেশ) এবং নতুন দিল্লিতে বসবাস করেন। রায় মূলত হিন্দিতে ছোট গল্প লেখেন এবং প্রকাশ করেন। প্রতিবিম্বিত গদ্যে রচিত তাঁর গল্পগুলো সমসাময়িক ভারতের সাধারণ মানুষ এবং বহিরাগতদের জীবনের ব্যক্তিগত জটিলতাগুলো সুন্দরভাবে উপস্থাপন করে থাকে।

ব্যক্তিগত পটভূমি[সম্পাদনা]

সারা রায় এলাহাবাদে বসবাসকারী এক লেখক শিল্পী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। সারা রায়ের পিতামহ ছিলেন লেখক ধনপত রায় শ্রীবাস্তব, তিনি তাঁর ছদ্মনাম মুন্সী প্রেমচাঁদ নামে বেশি পরিচিত। তাঁর পিতামহের দ্বিতীয় স্ত্রী শিবরানী দেবী, যিনি মহাত্মা গান্ধীর একজন সক্রিয় অনুগামী ছিলেন, প্রেমচাঁদের সাথে তাঁর জীবন নিয়ে "প্রেমচান্দ ঘর আমার" ("বাড়িতে বাড়িতে প্রেমচাঁদ", ১৯৪৪) শীর্ষক একটি স্মৃতিকথা রচনা করেছিলেন।[১] সারা রায়ের বাবা সৃপত রায় ছিলেন একজন সাহিত্য সমালোচক এবং চিত্রশিল্পী[২] তাঁর মা, জহরা রায় হিন্দিতে ছোট গল্প লিখতেন এবং প্রকাশ করতেন।[৩] "আপনি হিন্দির ক্যাথরিন ম্যান্সফিল্ড হবেন" নামক প্রবন্ধে[৪] সারা রায় বলেছেন, তাঁর পরিবার এবং তাঁর নিজ শহর এলাহাবাদের বহুভাষিক এবং বহু সাংস্কৃতিক পটভূমিতে সাহিত্যিক হতে গিয়ে তাঁর লেখক হওয়ার এবং তার নিজস্ব সাহিত্য কন্ঠ খুঁজে নিতে গিয়ে লড়াইয়ের কথা।

শিক্ষা এবং কর্মজীবন[সম্পাদনা]

সারা রায় ১৯৭৮ সালে নতুন দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আধুনিক ইতিহাসে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন। তিন বছর পরে, তিনি এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছিলেন। রায় অল্প বয়সেই লেখা শুরু করেছিলেন। তাঁর প্রথম গল্প "লাকি হোরাস" প্রকাশিত হয়েছিল ড্যাম ইউ ম্যাগাজিনে। ১৯৬০-এর দশকের গোড়ার দিকে এটির প্রতিষ্ঠা এবং সম্পাদনা করেছিলেন অরবিন্দ কৃষ্ণ মেহরোত্রা এবং সারার সম্পর্কিত ভাই অলোক ও অমিত রায়।[৫]

নব্বইয়ের দশকের গোড়ার দিকে, সারা, বিনোদ কুমার শুক্ল, প্রেমচাঁদ, পঙ্কজ বিশট, শওকত হায়াত, গীতাঞ্জলি শ্রী এবং অন্যান্য লেখকের লেখাকে হিন্দি ও উর্দু থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করতেন। তিনি তাঁর নিজের অনেক ছোট গল্পেরও ইংরেজি অনুবাদ করেছিলেন।[৬] রায় বেশ কিছু চলচ্চিত্র ও নাট্য প্রকল্পে অংশ নিয়েছিলেন; যার মধ্যে মধুশ্রী দত্ত পরিচালিত বোম্বাই ডকুমেন্টারি "সেভেন দ্বীপপুঞ্জ অ্যান্ড একটি মেট্রো" (২০০৪) উল্লেখযোগ্য।

রায়ের প্রথম উপন্যাস, "হাউস অফ কাইটস" (মূল হিন্দি শিরোনাম cvlālīl koṭhī), ২০১০ সালে প্রকাশিত হয়েছিল। এই উপন্যাসটিতে পূর্বের ধনী, শিক্ষিত ও ধর্মনিরপেক্ষ বংশের হিন্দু বানিয়া, ব্যবসায়ী ও হিসাবরক্ষকদের গল্প এবং এর ধীরে ধীরে ক্ষয়ের কাহিনী বর্ণনা করা হয়েছে। এই উপন্যাসটি বারাণসীর (বেনারস) এক পরিবারের পৈতৃক বাড়ির (কোঠী ) ওপর ভিত্তি করে নির্মিত; উক্ত বাড়িতে মীনা নামে এক অনাথ মেয়ে ছিল, যে এই ঘরে বসবাসরত পরিবারের একজন সহকর্মী হিসেবে এসেছিল। কিশোরী মীনা এবং বাড়ির বড় ছেলে বিক্রম গোপনে একে অপরের প্রেমে পড়ে যায়। বিক্রম বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রিধারী, কিন্তু তার কোন চাকরি নেই, সে সামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত এবং দরিদ্রদের অধিকার আদায়ের জন্য লড়াই করে। তবে, বিয়ের প্রশ্ন উঠলে, তার সত্যিকারের ভালবাসা (সম্ভবত নিম্নবিত্ত বলে) মীনার পক্ষে যায়না, বরঞ্চ সে তার বাবা-মা দ্বারা নির্বাচিত মেয়েকে বিয়ে করতে সম্মত হয় - যেটি পরবর্তীতে একটি মারাত্মক সিদ্ধান্তে পরিণত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Devi, Shivrani (২০০৬)। Premcand ghar meṃ। Ātmarām eṇḍ sans। আইএসবিএন 81-7043-473-4 
  2. Govind, Nikhil (৯ মে ২০১৬)। "Nayi Kahani"Routledge Encyclopedia of Modernism 
  3. Rai, Zahra (২০০৩)। Taking Leave, in: Hindi. Handpicked Fiction (ed. by Sara Rai)। Katha। পৃষ্ঠা 30–37। 
  4. Rai, Sara (৩১ ডিসেম্বর ২০১৮)। "You will be the Katherine Mansfield of Hindi" 
  5. Hahn, Johanna (২০১৩)। "In der Wildnis." Kommentierte Übersetzung und Interpretation moderner Hindi-Kurzgeschichten von Sara Rai। Regiospectra। পৃষ্ঠা 164। 
  6. Rai, Sara (মার্চ ২০০৯)। "Other Skies"