সাগরিকা ঘোষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাগরিকা ঘোষ
Ghose, Sagarika.jpg
সাগরিকা ঘোষ
জন্ম (1964-11-08) ৮ নভেম্বর ১৯৬৪ (বয়স ৫৫)
শিক্ষাসেন্ট স্টিফেন্স কলেজ, দিল্লি
ম্যাগদালেন কলেজ, অক্সফোর্ড
সেন্ট অ্যান্টনিজ কলেজ, অক্সফোর্ড
পেশাসাংবাদিক, সংবাদ পরিবেশক
কর্মজীবন১৯৯১–বর্তমান
উল্লেখযোগ্য কৃতিত্ব
ফেস দ্য নেশন
দাম্পত্য সঙ্গীরাজদীপ সারদেশাই (বিবাহ ১৯৯৪)

সাগরিকা ঘোষ (জন্ম: ৮ নভেম্বর ১৯৬৪) হলেন একজন ভারতীয় সাংবাদিক, সংবাদ পরিবেশক এবং লেখক।[১] তিনি একজন কলাম লেখকও এবং নিজেকে জনপ্রিয় দার্শনিক হিসেবে বিবৃত করেন। ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে তিনি দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া, আউটলুক এবং দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদপত্রে সাংবাদিকের কাজ করেছেন। তিনি সিএনএন-আইবিএন নিউজ নেটওয়র্কের ডেপুটি এডিটর এবং একজন প্রাইম টাইম অ্যাঙ্কার ছিলেন। সাগরিকা ঘোষ সাংবাদিকতায় একাধিক পুরস্কার পেয়েছেন এবং তিনি দুটো উপন্যাসের লেখক, তার মধ্যে একটা ছিল সর্বাধিক বিক্রি হওয়া ইন্দিরা গান্ধির জীবনপঞ্জী, 'ইন্দিরা, ইন্ডিয়াজ মোস্ট পাওয়ারফুল প্রাইম মিনিস্টার'। এই জীবনপঞ্জী থেকে চলচ্চিত্র তৈরি করার কথা হচ্ছে। সম্প্রতি তার একটা বই প্রকাশিত হয়েছে, 'হোয়াই আই অ্যাম আ লিবারাল, ম্যানিফেস্টো ফর ইন্ডিয়ান্স হু বিলিভড ইন ইন্ডিভিজুয়াল ফ্রিডম'। সাম্প্রতিকতম এই বইতে সাগরিকা নিজেকে একজন উদার বলে বর্ণনা করেছেন, যিনি বিশ্বাস করেন আইনের শাসন, সীমিত সরকার, শক্তিশালী প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং ব্যক্তিগত স্বাধীনতা। তিনি বিবেচনার জন্যে এই যুক্তি দেখান যে, যদিও ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দে ভারত প্রজাতন্ত্র একটা উদার গণতন্ত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, পরবর্তীতে ভারতের সরকারগুলো স্বাধীনোত্তর সময়কালে ব্যক্তি স্বাধীনতার ওপর আক্রমণ করতে উদ্যত হয়েছে এবং সরকারের ক্ষমতা ভীষণভাবে বাড়িয়েছে অথবা সেই ক্ষমতা যাকে তিনি বলেছেন ভারতীয় 'বিশাল রাষ্ট্র'। সাগরিকা ঘোষ ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের জুলাইতে সিএনএন-আইবিএন-এর ডেপুটি এডিটর পদে ইস্তফা দেন।[২] তিনি এখন টাইমস অফ ইন্ডিয়া সংবাদপত্রের কন্সাল্টিং এডিটর।[৩]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

সাগরিকা ঘোষ দিল্লি শহরের সেন্ট স্টিফেন্স কলেজ থেকে ইতিহাস স্নাতক হয়েছিলেন। ১৯৮৭ খ্রিষ্টাব্দে একজন রোডস স্কলারশিপ গ্রহীতা, ম্যাগদালেন কলেজ থেকে তিনি আধুনিক ইতিহাসে স্নাতক এবং সেন্ট অ্যান্টনিজ কলেজ, অক্সফোর্ড থেকে এমফিল[৪] ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে তিনি দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া সংবাদপত্র, আউটলুক ম্যাগাজিন এবং ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদপত্রে কাজ করেছিলেন এবং সিএনএন-আইবিএন নিউজ নেটওয়র্কে ডেপুটি এডিটর ও প্রাইম টাইম অ্যাঙ্কার ছিলেন।[৫][৬]

সাগরিকা ঘোষ প্রাক্তন ১৯৬০ ব্যাচের ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস আধিকারিক এবং ভারতীয় পাব্লিক টেলিভিশন নেটওয়র্ক দূরদর্শনএর ডিরেক্টর জেনারেল ভাস্কর ঘোষ মহাশয়ের কন্যা।[৭] তার দুই পিসিমার একজন অরুন্ধতী ঘোষ, প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিবিদ এবং অন্যজন হলেন ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট-এর প্রাক্তন মাননীয়া বিচারপতি রুমা পাল। সাগরিকা বিয়ে করেছিলেন সাংবাদিক এবং সংবাদ পরিবেশক রাজদীপ সারদেশাই মহাশয়কে। রাজদীপ এবং সাগরিকার দুই সন্তান, পুত্র ঈশান এবং কন্যা তারিণী।[৮]

২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে আম আদমি পার্টির অরবিন্দ কেজরিওয়াল সাগরিকা ঘোষের সঙ্গে টুইটার ইন্টারভিউ দিয়েছিলেন, যেটা প্রথম নজির হয়ে আছে যে, নির্বাচনের আগে কোনো ভারতীয় রাজনীতিকের সোশ্যাল মিডিয়ায় সাক্ষাৎকার।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Strategy to breach BJP-mukt South India can't rely on Hindu card, Modi" 
  2. "Rajdeep Sardesai Resigns as Editor in Chief of CNN-IBN"deccanchronicle.com 
  3. "Chanakya's not 21st century: Misuse of power in Karnataka cannot be justified as an ancient art of politics" 
  4. Sagarika Ghose (২৪ মার্চ ২০১০)। "Sagarika Ghose from HarperCollins Publishers"। Harpercollins.com। ১ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  5. "Interview with Sagarika Ghose"। mutiny.in। ৫ জুন ২০০৭। ৩১ জানুয়ারি ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১১ 
  6. Seema Chowdhry (৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)। "Airing both sides"। Livemint। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  7. Som, Rituparna (৬ নভেম্বর ২০০৬)। "Most of my critics are talentless lderly ladies: Sagarika Ghose"DNA। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুলাই ২০১৩ 
  8. "The referee in town"The Hindu। ১০ জুন ২০০৪। 
  9. "In first Twitter interview, Kejriwal says no free power if AAP wins in Delhi"IBNLive.com। ১ নভেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০১৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]