সাইফুল আলম (সাংবাদিক)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাইফুল আলম
Saiful Alam.jpg
সভাপতি, জাতীয় প্রেস ক্লাব
কাজের মেয়াদ
১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ – ২০২০
সম্পাদক, দৈনিক যুগান্তর
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯ নভেম্বর ২০১৩
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1956-11-01) ১ নভেম্বর ১৯৫৬ (বয়স ৬৫)
ঢাকা
দাম্পত্য সঙ্গীফেরদৌসী বেগম
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাসাংবাদিক

সাইফুল আলম (জন্ম ১ নভেম্বর ১৯৫৬) একজন বাংলাদেশি সাংবাদিক। তিনি দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশের সাংবাদিকদের সংগঠন জাতীয় প্রেস ক্লাবের নির্বাচিত সভাপতি হিসেবে ২০১৯-২০২০ মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেছেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

সাইফুল আলম ১৯৫৬ সালের ১ নভেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন।[২][৩] তার পৈতৃক নিবাস চাঁদপুরের কচুয়ায়। তার পিতার নাম আলী আরশাদ মিয়া এবং মাতার নাম শামসুন নাহার।[৪] আলী আরশাদ মিয়া একজন সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন।

সাইফুল আলম মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও ১৯৭৪ সালে ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতক ও ১৯৭৮ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।[৫] ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন।[৫] বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্তায় তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংস্কৃতি সংসদের সহ-সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।[৫]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

সাইফুল আলম ১৯৭৯ সালে তিনি সাপ্তাহিক কিশোর বাংলা দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন।[৫] ১৯৮৩ সালে তিনি দৈনিক জনতায় জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হিসেবে যোগ দেন। ১৯৮৬ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত তিনি দৈনিক ইনকিলাবের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৫] ২০০০ সালে গোলাম সারওয়ারের নেতৃত্বে শুরু হওয়া নতুন দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হিসেবে যোগ দেন। পরবর্তীতে তিনি এ পত্রিকাটির উপসম্পাদক, নির্বাহী সম্পাদক ও ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর থেকে ২০২০ সালে ২১ ফব্রুয়ারি পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৬] ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তিনি যুগান্তরের সম্পাদক পদে অধিষ্ঠিত হন।[৭]

সাইফুল আলম ১৯৯৭ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউটের (পিআইবি) পরিচালনা কমিটির সদস্য এবং ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার পরিচালনা বোর্ডের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৫] এছাড়ও তিনি বাংলাদেশ সম্পাদক পরিষদের একজন সদস্য। তিনি ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৮ পর্যন্ত দুই মেয়াদে জাতীয় প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক, ২০১৭-২০১৮ মেয়াদের কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন।[৫] তিনি ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।[৫]

রচনা ও প্রকাশনা[সম্পাদনা]

সাইফুল আলমের গ্রন্থসমূহ হল, ছেঁড়াপাতা (শিশু-কিশোর গল্পগ্রন্থ - ১৯৮২), নিম ফুলের ঘ্রাণ (১৯৯৬), ছড়া-কবিতার গ্রন্থ হাত বাড়ালেই আকাশ, কিছু ভাবনা কিছু কথা (প্রবন্ধ সংলন ২০১৩), মাইনাস নয়, প্লাসের প্রজ্ঞাই গণতন্ত্র এবং গণতন্ত্রের যাত্রা ও অন্যান্য (২০১৯)[৫][৬][৮]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

  • বাংলাদেশ মিউজিক জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের আবদুর রহমান চিশতি স্মৃতি পুরস্কার (২০০৭)
  • পদক্ষেপ পুরস্কার (২০১০)
  • জাতীয় সমন্বিত উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের সম্মাননা স্মারক (২০১৪)
  • আলতাফ আলী হাসু স্মৃতি পদক (২০১৯) [৯]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

সাইফুল আলম ব্যক্তিগত জীবনে ব্যাংকার ফেরদৌসী বেগমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।[৫] এই দম্পতির দুই মেয়ে রয়েছে।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা"প্রথম আলো। ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮। 
  2. "যুগান্তরের সম্পাদক সাইফুল আলমের ৬৬তম জন্মদিন আজ"এনটিভি অনলাইন (ইংরেজি ভাষায়)। ১ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০২১ 
  3. "Managing Committee – JATIYA PRESS CLUB"জাতীয় প্রেস ক্লাব (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৯ 
  4. "যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলমের বাবার ইন্তেকাল"দৈনিক যুগান্তর। ১৪ জুন ২০১৮। 
  5. "সাইফুল আলম - সাংবাদিক"দৈনিক যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৯ 
  6. "সাইফুল আলম পথ হারাতে প্রস্তুত নন"দৈনিক কালের কন্ঠ। ৬ মার্চ ২০১৫। 
  7. "যুগান্তরের সম্পাদকের দায়িত্ব পেলেন সাইফুল আলম"দৈনিক যুগান্তর। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। 
  8. "ব্যক্তি সাইফুল আলম ও তার সাহিত্যবোধ"দৈনিক যুগান্তর। ২২ মার্চ ২০১৯। 
  9. "সাইফুল আলম পেলেন আলতাফ আলী হাসু স্মৃতিপদক"জাগো নিউজ। ১৫ মার্চ ২০১৯।