সময়ের কথা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সময়ের কথা
সময়ের কথা অনুষ্ঠানের স্ক্রিনশট.webp
উপস্থাপকসৈয়দ মুনির খসরু
মূল দেশবাংলাদেশ বাংলাদেশ
পর্বের সংখ্যা২০ ( ২০০৮-২০১৭) পর্যন্ত
নির্মাণ
নির্বাহী প্রযোজকআব্দুন নূর তুষার
নির্মাণের স্থানঢাকা,বাংলাদেশ
ব্যাপ্তিকালশুক্রবার রাত ০৯: ১০,
মুক্তি
মূল নেটওয়ার্কবিটিভি
ছবির ফরম্যাটDVB
প্রথম প্রকাশ২২ জুন ২০০৭

সময়ের কথা বাংলাদেশ এর রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন বাংলাদেশ টেলিভিশন এ প্রচারিত একটি আলোচনামূলক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটি পরিকল্পনা ও উপস্থাপনা করেছেন সৈয়দ মুনির খসরু, যিনি ব্যবসায় প্রশাসন ইন্সটিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর একজন শিক্ষক এবং পরিচালনা করেছেন আব্দুন নূর তুষার।

বিবরণ[সম্পাদনা]

২০০৭ এর ২২ জুন বাংলাদেশে সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত - প্যাট্রিসিয়া বিউটিনিসের সাক্ষাৎকার সম্প্রচারের মাধ্যমের অনুষ্ঠানটির সম্প্রচার কার্যক্রম শুরু হয়। সাক্ষাৎকারে বিউটিনিস রসিকতার ছলে বাংলাদেশীদের "কখনো কখনো ষড়যন্ত্রপ্রবণ" বলায় প্রথম পর্বটি উল্লেখযোগ্যভাবে গণমাধ্যমের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। [১] অনুষ্ঠানটি প্রতি শুক্রবার রাত ৯:১০ এ প্রচারিত হয়; যেহেতু বাংলাদেশে শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি গণ্য করা হয়, সেহেতু সময়টিকে সপ্তাহান্তিক মুখ্য সম্প্রচার সময় হিসেবে গণ্য করা যেতে পারে। যদিও সময়ের কথা নতুন অনুষ্ঠান, তা সত্ত্বেও দর্শক-সমালোচকদের কাছে এটি যে উল্লেখযোগ্য গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে তার কারণ এর আকর্ষনীয় ও অভিনব মঞ্চ সজ্জা, মানসম্মত বিষয় নির্বাচন, সৃষ্টিশীল আঙ্গিক।.[২] "সময়ের কথা"এর প্রতিটি পর্ব সাধারণত নির্বাচিত বিষয় অথবা জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা যেমন, নির্বাচনী ও রাজনৈতিক পূনর্গঠন, দুর্নীতি দমন অভিযান, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মূল্যের উর্ধ্বগতি ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়। মাঝে মাঝে অনুষ্ঠানটিতে বিনোদন কেন্দ্রিক বিষয় যেমন বাংলা গান এর চলতি হাল [৩], ক্রিকেট ইত্যাদিও আলোচিত হয়।

পটভূমি[সম্পাদনা]

"সময়ের কথা" অনুষ্ঠানের শুরুতে নির্বাচিত বিষয়ের সচিত্র পটভূমি প্রদর্শন করা হয় যাতে আলোচনা দর্শকগণের কাছে আরো উপভোগ্য হয়। অনুষ্ঠানের শেষে, আলোচনার সারবস্তু উল্লেখ করা হয়। অনুষ্ঠানটিতে এ পর্যন্ত প্যাট্রিসিয়া বিউটিনিস, আনোয়ার চৌধুরী( বাংলাদেশে ব্রিটিশ হাইকমিশনার), আইএমএফ এবং এডিবি এর বাংলাদেশ প্রধানগণ এবং আরো কয়েকজন খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব উপস্থিত হয়েছেন। অংশগ্রহণকারীর পছন্দমত অনুষ্ঠানটি বাংলা অথবা ইংরেজিতে হয়ে থাকে। ইংরেজি আলোচনার বাংলা অনুলিপি পর্দায় প্রদর্শিত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বাংলাদেশীরা ষড়যন্ত্র প্রবণ,কখনো কখনো: বিউটিনিস"প্রথম পৃষ্ঠা (ইংরেজি ভাষায়)। New Age। ২০০৭-০৬-২৩। ২০০৭-১২-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-২৮ 
  2. সংস্কৃতি প্রতিবেদক (২০০৭-১২-২৮)। ""সময়ের কথা" তে শিক্ষামূলক বিনোদন : বিটিভি তে একটি কাঙ্খিত পরিবর্তন" (ইংরেজি ভাষায়)। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-২৮ 
  3. সংস্কৃতি প্রতিবেদক (২০০৭-০৯-২১)। "আজ রাতে বিটিভিতে "সময়ের কথা""TV Watch (ইংরেজি ভাষায়)। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-২৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]