লুংলেই জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লুংলেই জেলা
মিজোরামের জেলা
মিজোরামে লুংলেইয়ের অবস্থান
মিজোরামে লুংলেইয়ের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যমিজোরাম
সদরদপ্তরলুংলেই শহর
আয়তন
 • মোট৪৫৩৮ কিমি (১৭৫২ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,৬১,৪২৮
 • জনঘনত্ব৩৬/কিমি (৯২/বর্গমাইল)
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলে মিজোরাম রাজ্যের ৮টি জেলার অন্যতম লুংলেই জেলা।২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী, জনসংখ্যার বিচারে, আইজলের পরে এটি মিজোরামের দ্বিতীয় বৃহত্তম জেলা।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ক্যাপ্টেন জে শেকসপিয়ারের নেতৃত্বে লুসাই সামরিক অভিযান ১৮৮২ সালের মার্চ মাসে চট্টগ্রাম থেকে লুংলেই (তদানীন্তন লুংলে) পৌঁছায়। তিনজন কর্মকর্তা এবং ২৫০ জন সিপাহী দ্বারা সৈন্যবাহিনী গঠিত হয়। তারা 'ফোর্ট লুঙ্গল' নামে পরিচিত একটি কাঠের কাঠামো নির্মাণ করেছিলেন, এইভাবেই লুংলেইকে ব্রিটিশ শাসনের প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়েছিল। দক্ষিণ লুসাই পাহাড়, চট্টগ্রাম বিভাগের অধীনে একটি পৃথক প্রশাসনিক একক গঠিত হয় ১৮৯১ সালের ১লা এপ্রিল এবং ১৮৯৮ সাল পর্যন্ত এর অস্তিত্ব ছিল, যখন উত্তর ও দক্ষিণ লুশাই পাহাড়গুলিকে একত্রিত করে লুসাই পাহাড় জেলা তঈড়ি করা হয় এবং এই জেলাকে আসামের প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণাধীনে রাখা হয় এবং লুংলেই এর জন্যে একজন সাব-ডিভিশনাল অফিসার নিযুক্ত করা হয়। ১৯৭২ সালের ২১শে জানুয়ারি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে মিজোরাম স্বীকৃত হলে, নবগঠিত তিনটি জেলার অন্যতম হিসেবে লুংলেই প্রতিষ্ঠিত হয়।

নামকরণের ইতিহাস[সম্পাদনা]

এই জেলার নামকরণ করা হয়, তার সদর দপ্তর লুংলেই-এর নামে। লুংলেই, কখনও কখনও লুংলে-ও বলা হয়ে থাকে।মিজো ভাষায় লুংলেই মানে একটি শিলার সেতু। তাওয়াং নদীর উপনদী ঘাসি নদীর গতিপথে প্রাপ্ত একটি সেতুর মত পাথরের নাম থেকেই জেলার নামকরণ করা হয়েছে। 

ভৌগোলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

লুংলেই জেলাটি উত্তরে মামিত এবং আইজল জেলা, পশ্চিমে বাংলাদেশ, দক্ষিণ লোয়াংলাই জেলা, দক্ষিণ-পূর্ব দিকে সাইহা জেলা, পূর্বদিকে মিয়ানমার ও উত্তর-পূর্বদিকে সেরছিপ জেলা দ্বারা সীমাবদ্ধ। জেলার আয়তন ৪৫৭৮ বর্গকিলোমিটার। আয়তনের বিচারে এটি মিজোরামের বৃহত্তম জেলা। লুংলেই টাউন হল জেলার প্রশাসনিক সদর দপ্তর। 

প্রশসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

লুংলেই জেলার ধর্মীয় জনসংখ্যার উপাত্ত
ধর্ম  শতাংশ
Christians
  
৭৮.৭৫%
বৌদ্ধ
  
১৭.০৬%
হিন্দু
  
৩.২৪%
মুসলিম
  
০.৮০%
জৈন
  
০.০৬%
জানাননি
  
০.০৪%
শিখ
  
০.০২%

জেলাটিতে ৩টি প্রধান মহকুমা রয়েছেঃ নাহতিহাল, লুংলেই এবং লাবুং।জেলাটিতে মোত ৭টি বিধানসভা কেন্দ্র রয়েছেঃ দক্ষিণ তুইপুই, লুংলেই উত্তর, লুংলেই পূর্ব, লুংলেই পশ্চিম, লুংলেই দক্ষিণ, থোরাং এবং পশ্চিম তুইপুই।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী লুংলেই জেলার জনসংখ্যা ১৬১,৪২৮ জন যা প্রায় সেন্ট লুসিয়া.[২] রাষ্ট্রের সমান। জনসংখ্যার বিচারে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে লুংলেই-এর অবস্থান ৫৯৭তম। জনসংখ্যার ঘনত্ব ৩৬ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৯৩ জন/বর্গমাইল) ।২০০১-২০১১র দশকে জেলার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার  ছিল ১৭.৬৪%। লুংলেই এর লিঙ্গ অনুপাত প্রতি 1000 পুরুষে ৯৪৭ জন মহিলা এবং সাক্ষরতার হার এর ৮৮.৮৬%.[৩]

পরিবহণ[সম্পাদনা]

মিজোরামের দ্বিতীয় রাজধানী লুংলেই, আকাশপথ ও রেলপথ দ্বারা সংযুক্ত নয়। নিকটতম বিমানবন্দর হল লেংপুই বিমানবন্দর এবং নিকটবর্তী রেল জংশন শিলচর জংশন

সড়কপথ[সম্পাদনা]

জাতীয় সড়ক ৫৪-এর মাধ্যমে কেবলমাত্র সেরছিপ এবং থেনজালের মাধ্যমে আইজলের সাথে সংযুক্ত। আইজল যাওয়ার জন্যে দিন ও রাতে সর্বদাই ট্যাক্সি এবং বাস পরিষেবা পাওয়া যায়। লুঙ্গলাই এবং আইজলের দূরত্ব প্রায় ১৭৫ কিলোমিটার।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  2. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১১Saint Lucia 161,557 July 2011 est. 
  3. census2011। "Lunglei District : Census 2011 data"census2011.co.in। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১৩ 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]