মোঃ মাহফুজুর রহমান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মোঃ মাহফুজুর রহমান
২০১৮ সালে মোঃ মাহফুজুর রহমান
জন্ম (1961-12-01) ১ ডিসেম্বর ১৯৬১ (বয়স ৫৮)
রাজশাহী
আনুগত্য বাংলাদেশ
সার্ভিস/শাখা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
পদমর্যাদাBangladesh-army-OF-8.svgলেফট্যানেন্ট জেনারেল
Three star.jpg
ইউনিটইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট
নেতৃত্বসমূহবাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল। সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও)।
যুদ্ধ/সংগ্রামইউএনএএমএসআইএল
ইউএনওএমওজেড

মোঃ মাহফুজুর রহমান (জন্ম ১ ডিসেম্বর ১৯৬১) একজন বাংলাদেশী। তিনি একজন লেফটেন্যান্ট জেনারেল[১] বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও)[২][৩]

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

তিনি ১ ডিসেম্বর ১৯৬১ সালে রাজশাহী জেলায় জন্মগ্রহণ করেন।[৪] ১৯৮১ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন পাওয়া মাহফুজুর রহমান একটি পদাতিক ডিভিশনের কমান্ডার ছিলেন। তিনি স্টাফ কলেজ এবং মিরপুরে সশস্ত্র বাহিনী যুদ্ধ কোর্সে আরও গবেষণা সম্পন্ন করেন। [৪] তিনি সেনাবাহিনীর সদর দফতরের সাবেক অ্যাডভান্টেন্ট জেনারেল।[৫]

ভারতের জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের প্রাক্তন ছাত্র এবং রয়েল কলেজ অফ ডিফেন্স স্টাডিজ, যুক্তরাজ্য (লন্ডন) এর প্রাক্তন ছাত্র। প্রতিরক্ষা অধ্যয়ন (এমডিএস), যুদ্ধ অধ্যয়ন (এমডব্লিউএস) এবং ব্যবসায় প্রশাসন (এমবিএ) তে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। ভারতের মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল করেন । ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজের সাবেক এই ছাত্র পিএইডি ডিগ্রি নিয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।[৪]

বাংলাদেশ-ভারত বাণিজ্য সম্পর্ক নিয়ে মাহফুজুর রহমান সম্পাদিত একটি বই রয়েছে।[১] দ্বিতীয় বই নন-ট্রেডিশনাল সিকিউরিটি স্ট্রাটেজি ফর অ্যাড্রেসিং ট্রান্স-বর্ডার ক্রাইম ইন বাংলাদেশ প্রকাশনার জন্য অপেক্ষায় আছে। [৫]

সামরিক কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মাহফুজুর রহমান মেজর জেনারেল থেকে একদিন আগেই পদোন্নতি পেয়ে লেফটেন্যান্ট জেনারেল হন। [১] তিনি একটি ইনফ্যান্ট্রি ব্যাটালিয়ন, দুই ইনফ্যান্ট্রি ব্রিগেড এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এক পদাতিক বিভাগের কমান্ড দেন। তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদর দফতরে ব্রিগেড মেজর এবং জেনারেল স্টাফ অফিসার গ্রেড ও ডিরেক্টর সামরিক অপারেশন হিসাবে কাজ করেছেন। তিনি বাংলাদেশ সামরিক একাডেমীতে জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের ওয়ার কোর্সের স্টাফকে নির্দেশনা দেন। তিনি ডিফেন্স সার্ভিস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজের কমান্ড্যান্ট এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড টেকটিক্সের কমান্ড্যান্ট হিসাবেও কাজ করেছেন। তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল এবং ট্রাস্ট ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[১][১]

জাতিসংঘ মিশন[সম্পাদনা]

সিয়েরেলিওনে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিয়ে এসেছেন মাহফুজুর রহমান। তিনি ট্রাস্ট ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন।[১]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. প্রতিবেদক, জ্যেষ্ঠ; ডটকম, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর। "পিএসও হলেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল মাহফুজ"bangla.bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-১১ 
  2. "Stop over-the-counter sale of antibiotics, regulate use in Bangladesh: Expert"/bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৬ 
  3. "Bhutan National Council Speaker Jigme Zangpo visits President Hamid"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৬ 
  4. "Lieutenant General Md Mahfuzur Rahman,rcds, ndc, afwc, psc, PhD"www.afd.gov.bd। Armed Forces Division। ২১ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৬ 
  5. "Lieutenant General Mahfuz made PSO"The Asian Age। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-০৪ 
পূর্বসূরী
আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক
সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার উত্তরসূরী দ্বারা
শায়িত্ব