মি টু আন্দোলন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একটি মিছিলে #MeToo (#মি টু) চিহ্ন

মি টু (বা #মি টু) আন্দোলন, স্থানীয় বা আন্তর্জাতিক নামের ভিন্নতার সাথে, যৌন নির্যাতনযৌন হয়রানির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন, যেখানে মানুষ যৌন অপরাধের অভিযোগ প্রচার করে।[১][২] [৩] এই প্রসঙ্গে "মি টু" বাক্যটি যৌন নিপীড়ন থেকে বেঁচে যাওয়া এবং কর্মী তারানা বার্কের দ্বারা প্রাথমিকভাবে ২০০৬ সালে মাইস্পেসে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যবহৃত হয়েছিল।[৪]

"মি টু" এর উদ্দেশ্য নীরবতা ভাঙার উপর ভিত্তি করে অন্যান্য সামাজিক ন্যায়বিচার ও ক্ষমতায়ন আন্দোলনের অনুরূপ, যেমনটি প্রাথমিকভাবে বার্ক ও পরে যারা কৌশলটি গ্রহণ করেছিলেন তাদের কণ্ঠস্বর ছিল, যৌন নির্যাতিত ব্যক্তিদের সংখ্যার শক্তির মাধ্যমে সহানুভূতি এবং সংহতির মাধ্যমে যৌন নির্যাতিত ব্যক্তিদের ক্ষমতায়ন করা। বিশেষ করে কর্মক্ষেত্রে যৌন নিপীড়ন ও হয়রানি থেকে কতজন বেঁচে আছে তা দৃশ্যমানভাবে প্রদর্শন করে, বিশেষ করে তরুণ ও দুর্বল নারী -পুরুষ।[৪][৫][৬]

২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে শুরুর দিকে হার্ভে ওয়াইনস্টাইনের বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ প্রকাশের পর[৭][৮] আন্দোলন সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাশট্যাগ হিসেবে ভাইরালভাবে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে।[৬][৯][১০] আমেরিকান অভিনেত্রী অ্যালিসা মিলানো টুইটারে ২০১৭ সালের ১৫ই অক্টোবর পোস্ট করেছিলেন, "যৌন হয়রানি বা নির্যাতনের শিকার সমস্ত মহিলারা যদি একটি স্ট্যাটাস হিসাবে 'মি টু' লিখে থাকেন, তাহলে আমরা মানুষকে সমস্যাটির মাত্রা সম্পর্কে ধারণা দিতে পারি"। তিনি একটি বন্ধুর কাছ থেকে এই ধারণা পেয়েছিলেন।[১১] [১২][১৩][১৪] আমেরিকান সেলিব্রিটি গ্বিনিথ প্যালট্রো,[১৫] অ্যাশলে জুড,[১৬] জেনিফার লরেন্স,[১৭]উমা থুরম্যানের বেশ কয়েকটি উচ্চ-পদস্ত পোস্ট ও প্রতিক্রিয়া শীঘ্রই অনুসরণ করা হয়েছিল।[১৮]

ব্যাপকভাবে মিডিয়া প্রচার ও যৌন হয়রানির আলোচনা, বিশেষ করে হলিউডে, উচ্চপদস্থ পদ থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পাশাপাশি সমালোচনা ও প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।[১৯][২০][২১]

লক্ষ লক্ষ মানুষ ইংরেজিতে এই পদ্ধতিতে বাক্যাংশ এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার শুরু করার পর, অভিব্যক্তিটি আরও কয়েক ডজন ভাষায় ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। এই সম্প্রসারণের সাথে সুযোগ কিছুটা বিস্তৃত হয়েছে, এবং বার্ক সম্প্রতি এটিকে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর প্রান্তিক জনগণের জন্য ন্যায়বিচারের জন্য একটি আন্তর্জাতিক আন্দোলন হিসেবে উল্লেখ করেছেন।[২২]

উদ্দেশ্য[সম্পাদনা]

২০০৬ সালে তারানা বার্কের ব্যবহৃত "মি টু" এর মূল উদ্দেশ্য ছিল সহানুভূতির মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন করা, বিশেষ করে তরুণ ও দুর্বল মহিলাদের জন্য। এই শব্দটি ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে অ্যালিসা মিলানো একটি হ্যাশট্যাগ হিসাবে ব্যবহার করতে সকলকে উত্সাহিত করেছিলেন, যাতে যৌন হয়রানি ও নির্যাতনের সমস্যাগুলি প্রকাশ করা সহজ হয় এবং এই ঘটনার সম্মুখীন কতজন হয়েছেন সে সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।[৪][৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "From Politics to Policy: Turning the Corner on Sexual Harassment – Center for American Progress"Center for American Progress। জানুয়ারি ৩১, ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৪, ২০১৮ 
  2. Edwards, Stephanie Zacharek, Eliana Dockterman, Haley Sweetland। "TIME Person of the Year 2018: The Silence Breakers"Time। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৪, ২০১৮ 
  3. Strause, Jackie (আগস্ট ২০, ২০১৮)। "Tarana Burke Responds to Asia Argento Report: "There Is No Model Survivor""The Hollywood Reporter। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১২, ২০১৮ 
  4. Ohlheiser, Abby (অক্টোবর ১৯, ২০১৭)। "The woman behind 'Me Too' knew the power of the phrase when she created it – 10 years ago"The Washington Post। অক্টোবর ১৯, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০১৭ 
  5. D'Zurilla, Christie (অক্টোবর ১৬, ২০১৭)। "In saying #MeToo, Alyssa Milano pushes awareness campaign about sexual assault and harassment"Los Angeles Times। অক্টোবর ১৭, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৭, ২০১৭ 
  6. Smartt, Nicole। "Sexual Harassment in the Workplace in A #MeToo World"Forbes। জানুয়ারি ১৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৬, ২০১৮ 
  7. Chuck, Elizabeth (অক্টোবর ১৬, ২০১৭)। "#MeToo: Alyssa Milano promotes hashtag that becomes anti-harassment rallying cry"NBC News। অক্টোবর ১৬, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৬, ২০১৭ 
  8. "Weinstein"FRONTLINE। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১২, ২০১৮ 
  9. Felsenthal, Edward। "Why the Silence Breakers Are TIME's Person of the Year 2017"Time 
  10. Carlsen, Audrey। "#MeToo Brought Down 201 Powerful Men. Nearly Half of Their Replacements are Women."। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৩, ২০১৮ 
  11. Milano, Alyssa (অক্টোবর ১৫, ২০১৭)। "If you've been sexually harassed or assaulted write 'me too' as a reply to this tweet.pic.twitter.com/k2oeCiUf9n" 
  12. "Alyssa Milano's #MeToo hashtag proves shocking number of women have been sexually harassed and assaulted"yahoo.com 
  13. Khomami, Nadia (অক্টোবর ২০, ২০১৭)। "#MeToo: how a hashtag became a rallying cry against sexual harassment"The Guardian। নভেম্বর ২১, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  14. Guerra, Cristela (অক্টোবর ১৭, ২০১৭)। "Where'd the "Me Too" initiative really come from? Activist Tarana Burke, long before hashtags – The Boston Globe"Boston Globe। অক্টোবর ১৭, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৮, ২০১৭ 
  15. "Celebrities Share Stories of Sexual Assault for #MeToo Campaign"Vogue। অক্টোবর ১৬, ২০১৭। ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৪, ২০১৮ 
  16. Bonos, Lisa (অক্টোবর ১৯, ২০১৭)। "Analysis | Not everyone with a #MeToo is posting their story. Here's why some are refraining"The Washington Postআইএসএসএন 0190-8286। ডিসেম্বর ২০, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৪, ২০১৮ 
  17. Fernandez, Matt (অক্টোবর ১৭, ২০১৭)। "Jennifer Lawrence Says Producer Put Her in 'Naked Lineup,' Told Her to Lose Weight"Variety। অক্টোবর ২৬, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৪, ২০১৮ 
  18. "Uma Thurman channels 'Kill Bill' character, says Harvey Weinstein doesn't even "deserve a bullet""Newsweek। নভেম্বর ২৪, ২০১৭। ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৪, ২০১৮ 
  19. Jeffries, Zenobia (জানুয়ারি ৪, ২০১৮)। "Me Too creator Tarana Burke reminds us this is about Black and Brown survivors"YES! Magazine। জানুয়ারি ৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৫, ২০১৮ 
  20. Livsey, Anna (জানুয়ারি ১৩, ২০১৮)। "Liam Neeson says harassment allegations are now 'a witch hunt'"The Guardian। জানুয়ারি ১৭, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০১৮ 
  21. Williams, Janice (ডিসেম্বর ২১, ২০১৭)। "Will innocent men become 'casualties' (sic) of #MeToo movement?"Newsweek। জানুয়ারি ৪, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৫, ২০১৮ 
  22. Snyder, Chris; Lopez, Linette (ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭)। "Tarana Burke on why she created the #MeToo movement – and where it's headed"Business Insider। ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৪, ২০১৮