মিশরের পঞ্চম রাজবংশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাক্কারায় ফারাও উনাসের পিরামিড। এখানেই প্রথম পিরামিডগাত্রে খোদিত চিত্রলিপি উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

মিশরের পঞ্চম রাজবংশের (২৫০৪ - ২৩৪৭ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) শাসকরা আগের রাজবংশগুলির তুলনায় আমাদের কাছে বেশি পরিচিত। সমকালীন বা তৎপরবর্তী মিশরের বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী লেখাপত্রে যেমন তাঁদের পরিচয় মেলে, তাঁদের আমলের বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকেও তা যাচাই করা সম্ভব হয়। আবুসিরে অবস্থিত ছোট ছোট পিরামিডগুলি ও বিশেষ করে সূর্যদেবতা রা বা রে-র মন্দির তাঁদের শাসনামলের সাক্ষ্যবহন করে।

নৃপতিবৃন্দ[সম্পাদনা]

ফারাও উসেরকাফের (২৪৯৪ - ২৪৮৭ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) হাতে এই রাজবংশের সূচনা। তাঁর পরে সিংহাসনে বসেন তাঁর পুত্র সাহুরে (২৪৮৭ - ২৪৭৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দ)। তিনি পুন্ত অভিমুখে এক বিজয়াভিযান পরিচালনা করেন বলে জানতে পারা যায়। তাঁর পরে ফারাও হন তাঁর পুত্র নেফেরিরকারে কাকাই (২৪৭৫ - ২৪৫৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দ); ফারাওদের রাজকীয় উপাধি গ্রহণের ঐতিহ্য তাঁর আমল থেকেই শুরু হয়। তাঁর পরের দু'জন সল্প সময়ের ফারাও'এর নাম আমরা জানতে পারি - তাঁর পুত্র নেফেরেফ্রে (২৪৫৫ - ২৪৫৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) ও শেপসেসকারে; দ্বিতীয়জনের বংশপরিচয় সম্বন্ধে তেমন কিছুই জানা যায় না।[১] যাইহোক, শেপসেসকারে যতদূর সম্ভব নেফেরেফ্রে'র ভাই নিউসেরে ইনির হাতে মারা যান। ইনি দীর্ঘ ২৪ বছর (২৪৪৫ - ২৪২১ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) বা তারও বেশি রাজত্ব করেন। আবুসিরে তাঁর আমলে প্রচুর নির্মাণকার্য পরিচালিত হয়। এছাড়া গিজাতেও তিনি নূতন করে রাজকীয় নির্মাণে হাত দেন। এরপরে একে একে ফারাও হন মেনকাউহোর কাইউ (২৪২১ - ২৪১৪ খ্রিস্টপূর্বাব্দ), জেদকারে ইসেসি (২৪১৪ - ২৩৭৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) এবং উনাস (২৩৭৫ - ২৩৪৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দ)। শেষোক্তজন ছিলেন এই রাজবংশের শেষ ফারাও।[২]

যদিও প্রখ্যাত প্রাচীন মিশরীয় পণ্ডিত মানেথোর মতে পঞ্চম রাজবংশের রাজত্বের স্থায়িত্বকাল ছিল ২৪৮ বছর, আধুনিক ঐতিহাসিকদের মতে তা মোটামুটি ১৫০ বছরের মতো স্থায়ী ছিল।[৩] নিচের ছকে হোরাসনাম ও রাণীদের নামগুলি নেওয়া হয়েছে ডডসন ও হিল্টনের বই থেকে।[৪] তবে বিভিন্ন ঐতিহাসিকদের মধ্যে এঁদের রাজত্বের নির্দিষ্ট সনতারিখ নিয়ে কিছুটা মতানৈক্য লক্ষ করা যায়।

পঞ্চম রাজবংশের ফারাওরা
ব্যক্তিনাম হোরাসনাম রাজত্বকাল Pyramid সম্রাজ্ঞী
উসেরকাফ ইরিমাত ৭ বছর সাক্কারায় উসেরকাফের পিরামিড প্রথম খেনৎকাউস ?
নেফেরহেতেপেস
সাহুরে নেবখাউ ১৩ বছর ৫ মাস ১২ দিন আবুসিরে সাহুরের পিরামিড নেফেরেৎনেবতি
নেফেরিকারে কাকাই নেফেরিকারে ২০ বছর আবুসিরে নেফেরিকারে কাকাই'এর পিরামিড দ্বিতীয় খেনৎকাউস
নেফেরেফ্রে নেফেরখাউ ২ - ৩ বছর আবুসিরে নেফেরেফ্রের পিরামিড তৃতীয় খেনতাকাউয়েস ?
শেপসেসকারে শেপসেসকারে সম্ভবত কয়েক মাস সম্ভবত আবুসিরে
নিউসেরে ইনি নিউসেরে ২৪ - ৩৫ বছর আবুসিরে পিরামিড রেপতিনাব
মেনকাউহোর কাইউ মেনকাউহোর ৮ - ৯ বছর সাক্কারায় "মাথাহীন পিরামিড" চতুর্থ মেরেসানখ?
জেদকারে ইসেসি জেদকারে ৩৩ - ৪৪ বছর বা তারও বেশি সাক্কারায় জেদকারে ইসেসির পিরামিড
উনাস ওয়াদিতোয়েই ১৫ - ৩০ বছর সাক্কারায় উনাসের পিরামিড নেবেৎ
খানুৎ

প্রশাসন[সম্পাদনা]

এইসময় ফারাওদের প্রকৃত ক্ষমতা কিছুটা হ্রাসের প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। পক্ষান্তরে অভিজাত শ্রেণি ও প্রশাসনিক আধিকারিকদের ক্ষমতা অনেকটাই বৃদ্ধি পায়। ফারাওও তাঁদের উপরে অনেকটা নির্ভরশীল হয়ে পড়েন। সমসাময়িক নানা লিখিত ফলক ও অন্যান্য সাক্ষ্য থেকে আমরা এই তথ্য জানতে পারি।

ব্যবসাবাণিজ্য[সম্পাদনা]

এইসময় মিশরের বাণিজ্যের উল্লেখযোগ্য প্রসার লক্ষ করা যায়। আবলুস কাঠ, গন্ধরস লোবান প্রভৃতি সুগন্ধি দ্রব্য, সোনা তামা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় ধাতু, ইত্যাদির বাণিজ্য উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে জাহাজশিল্পেরও প্রসার ঘটে, যাতে খোলা সমুদ্রে বাণিজ্যাভিযান সম্ভব হয়। লেবানন থেকে সে'সময় মিশরে সিডার কাঠ আমদানি করা হত; লোহিত সাগর বরাবর পুন্ত থেকে (যতদূর সম্ভব আজকের সোমালিয়া) আমদানি হত সোনা, আবলুস কাঠ, হাতির দাঁত, সুগন্ধি রেজিন, প্রভৃতি। তবে সে' যুগে জাহাজ নির্মাণের ক্ষেত্রে লোহার পেরেক, গজাল, ক্ল্যাস্প বা এমনকী কাঠের গোঁজও ব্যবহৃত হত না; বড় বড় কাঠ বা তক্তাকে মোটা দড়ি বা কাছি দিয়ে শক্ত করে বেঁধে একসঙ্গে করে তৈরি হত জাহাজের খোল।

ঐতিহাসিক উপাদান ও গুরুত্ব[সম্পাদনা]

উনাসের পিরামিডগাত্রে আমরা যে চিত্রলিপির দেখা পাই, তা উদ্ধার হওয়া পিরামিডগাত্রে লিখিত লিপির মধ্যে প্রাচীনতম। আমাদের হাতে এসে পৌঁছনো মানুষের লিখিত ধর্মীয় লেখারও তা প্রাচীনতম উদাহরণ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Miroslav Verner: Contemporaneous Evidence for the Relative Chronology of dyns. 4 and 5. in: Erik Hornung, Rolf Krauss und David A. Warburton (Hrsg.).: Ancient Egyptian Chronology, Leiden 2006, S. 128–136. DOI: 10.1163/9789047404002_011
  2. Shaw, Ian, ed. (2000). The Oxford History of Ancient Egypt. Oxford University Press. p. 479. ISBN 0-19-815034-2.
  3. Altenmüller, Hartwig (2001). "Old Kingdom: Fifth Dynasty". In Redford, Donald B. The Oxford Encyclopedia of Ancient Egypt, Volume 2. Oxford University Press. ISBN 978-0-19-510234-5.
  4. Dodson, Aiden; Hilton, Dyan (2004). The Complete Royal Families of Ancient Egypt. London: The American University in Cairo Press. ISBN 0500051283. পৃঃ - ৬৫ ও ২৮৮।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]