মাছরাঙ্গা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

মাছরাঙা
Alcedo atthis 1 (Lukasz Lukasik).jpg
পাতি মাছরাঙা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: প্রাণী জগৎ
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Coraciiformes
উপবর্গ: Alcedines
গোত্র

Alcedinidae (গাঙ মাছরাঙা)
Halcyonidae (গেছো মাছরাঙা)
Cerylidae (পান মাছরাঙা)

Kingfisher range.png
বৈশ্বিক বিস্তৃতি

মাছরাঙা (বৈজ্ঞানিক নাম- Coraciiformes) বর্গের অন্তর্গত একদল অত্যন্ত উজ্জ্বল রঙের ছোট বা মাঝারি আকৃতির একদল পাখিঅ্যান্টার্কটিকা বাদে প্রায় সারা পৃথিবীতেই মাছরাঙা দেখা যায়। পুরাতন বিশ্ব আর অস্ট্রালেশিয়াতে এদের বিস্তৃতি সবচেয়ে বেশি।

বর্গ ও গোত্র[সম্পাদনা]

মাছরাঙা Alcedinidae (অ্যালসিডিনিডি) গোত্র এবং কখনো কখনো Alcedines (অ্যালসিডিনিস) উপবর্গের সকল প্রজাতিই মাছরাঙা নামে পরিচিত। এ উপবর্গের তিনটি গোত্র রয়েছে। গোত্রগুলো হল Alcedinidae (গাঙ মাছরাঙা), Halcyonidae (গেছো মাছরাঙা) ও Cerylidae (পান মাছরাঙা)।

গঠন[সম্পাদনা]

সারা পৃথিবীতে প্রায় ৯০ প্রজাতির মাছরাঙা দেখা যায়। এদের প্রায় সবারই দেহের তুলনায় মাথা বড়, লম্বা, ধারালো ও চোখা চঞ্চু, খাটো পা ও খাটো লেজ রয়েছে। বেশিরভাগ মাছরাঙার দেহ উজ্জ্বল রঙের আর স্ত্রী-পুরুষে সামান্য ভিন্নতা দেখা যায়। অধিকাংশ মাছরাঙা বিষুবীয় অঞ্চলে বসবাস করে এবং এদের বড় একটা অংশকে কেবলমাত্র বনে দেখা যায়।

খাদ্য[সম্পাদনা]

এরা অনেক ধরনের প্রাণী শিকার করে, তবে তার বড় একটি অংশ জুড়ে রয়েছে মাছ। এরা সাধারণত ডালে থেকে ডাইভ দিয়ে পানির মধ্যে থেকে মাছ শিকার করে। অন্যান্য শিকারের মধ্যে রয়েছে পোকামাকড়, ব্যাঙ, সরীসৃপ, পাখি এমনকি ছোট আকারের স্তন্যপায়ী[১]

বাসস্থান[সম্পাদনা]

বর্গের অন্যসব সদস্যদের মত মাছরাঙারাও গর্তে বাসা করে। সাধারণত জলাশয়ের পাশে খাড়া পাড়ের গর্তে এরা বাসা বানায়। কয়েক প্রজাতির দ্বীপবাসী মাছরাঙা বৈশ্বিকভাবে বিপদগ্রস্ত বলে বিবেচিত। এছাড়া বন উজাড় করার ফলে বনের মাছরাঙাগুলোর আবাসস্থল ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

যেভাবে শিকার ধরে[সম্পাদনা]

খাটো পুচ্ছ, বড় মাথা, সুচালো ঠোঁটের আঁটসাঁটো গড়নের পাখি মাছরাঙা। শিকার ধরার জন্য পানির দিকে মাথা নিচু করে ছোঁ দিয়ে ডুব দেয়। শিকার ধরে ঠোঁটের সাহায্যে আছড়ে আছড়ে হত্যার পর উপর দিকে ছুঁড়ে মারে। শিকারের মৃত্যু নিশ্চিত করে গিলে খেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তোলে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Kingfisher"। A-Z Animals। সংগ্রহের তারিখ ১০ এপ্রিল ২০১৩ 
  2. "শিকারি পাখি মাছরাঙা"ডেইলি সংবাদ। ২০১৭-১২-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৪-০৯