লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী ব্যবহারকারীর অবদানসমূহ

অবদানসমূহের জন্য অনুসন্ধানদেখানআড়াল করুন
⧼contribs-top⧽
⧼contribs-date⧽
(সবচেয়ে নতুন | সবচেয়ে পুরনো) (নতুনতর ৫০টি | ) (২০ | ৫০ | ১০০ | ২৫০ | ৫০০)টি দেখুন

১৮ জুলাই ২০২২

১৩ জুলাই ২০২২

  • ০৯:২১০৯:২১, ১৩ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +১,০৯৩ গুরু পূর্ণিমা→‎হিন্দু ও বৌদ্ধদের পালন রীতি: পুজোর নিয়ম সেভাবে আলাদা করে কোনও নিয়ম নেই। তবে ভগবানকে নানা নিরামিষ ভোগ, যেমন লুচি-সুজি, খিচুড়ি-তরকারি-ভাজা, পায়েস, ক্ষীর, নানা রকমেপ মিষ্টি ইত্যাদি দিতে পারেন। আর দই, গঙ্গাজল, মধু ও ড্রাই ফ্রুট সহযোগে চরণামৃতও তৈরি করে অর্পণ করা যেতে পারে। পূর্ণিমা চলাকালীন নিরামিষ খাবারদাবার খেয়ে শুদ্ধ থাকা উচিত। অনেকে আবার এদিন বাড়িতে সত্যনারায়ণের সিন্নিও দেন। যে-কোনও শুভ কাজের জন্য এটি অত্যন্ত শুভ দিন। বর্তমান

৯ জুলাই ২০২২

৮ জুলাই ২০২২

  • ১৩:৫৪১৩:৫৪, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস −৬ হোজগিরি নৃত্যএকটি ঘড়া বা কলস, একটি বোতল, একটি হাউস ঐতিহ্যগত বাতি রাখা, একটি সাধারণ থালা এবং প্রতিটি অভিনেতার জন্য একটি রুমাল। বর্তমান
  • ১৩:৫২১৩:৫২, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৬ হোজগিরি নৃত্যগান খুব সহজ। নাচের জন্য প্রয়োজনীয়, একটি বেইলিং, বেত তৈরি করা একটি ব্যাপক বৃত্তাকার পরিষ্কার নিবন্ধ,
  • ১৩:৫১১৩:৫১, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৬ হোজগিরি নৃত্যঅল্পবয়সী মেয়েদের দ্বারা সঞ্চালিত হয়, একটি দলের ৪ থেকে ৬ জন সদস্যা,
  • ১৩:২৭১৩:২৭, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +২৯ খার্চী পূজা→‎তথ্যসূত্র
  • ১৩:২১১৩:২১, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +২,১১৭ খার্চী পূজা→‎বিবরণ: ত্রিপুরা রাজ্যের সবচেয়ে প্রাচীন পুজো হল খার্চি পুজো। ১৪ জন দেবতার পুজোর মধ্যে দিয়ে এই উৎসবের শুভ সূচনা হয়ে থাকে। খার্চি শব্দের আক্ষরিক অর্থ হল, খার ও চি। খার কথার অর্থ হল পাপ এবং চি কথার অর্থ হল পরিষ্কার বা মোচন করা। এই উৎসবের মধ্যে দিয়ে এক কথায় পাপ মোচন করা হয়। আগরতলার চতুর্দশ দেবতাবাড়িতে ৭ই জুলাই থেকে শুরু হয় খার্চি পূজা, চলে টানা সাত দিন। প্রতি বছর আষাঢ় মাসের শুক্লঅষ্টমী তিথিতে এই পুজো শুরু হয়। এই পুজোতে যে চতুর্দশ দেবতাকে পুজো করা হয় তাঁরা হলেন— হর বা শিব প্রধান দে...
  • ১১:৩৬১১:৩৬, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +২৬ খার্চী পূজা→‎তথ্যসূত্র: ভারতের স্বাধীনতার সময় ত্রিপুরা ছিল রাজন্য শাসিত স্বাধীন দেশীয় রাজ্য। ভারত স্বাধীন হওয়ার পর ত্রিপুরা ভারতের অঙ্গরাজ্য হিসেবে যোগ দেয়। রাজতন্ত্রের অবসান ও গণতন্ত্রের সূচনায় রাজ্যের মানুষের দায়িত্ব চলে যায় ভারত সরকারের ওপর। তখন একটি প্রশ্ন সামনে আসে জনগণের দায়িত্ব তো নিয়ে নিলো দেশের সরকার কিন্তু রাজকোষ থেকে যে সব মন্দির ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হয়ে আসছে তার দায়িত্ব কে নেবে? তখন সিদ্ধান্ত হয় যে রাজকোষ থেকে পরিচালিত সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব নেবে ত্রিপুরা...
  • ১১:৩৫১১:৩৫, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +১,৫৬৪ খার্চী পূজা→‎বিবরণ: ভারতের স্বাধীনতার সময় ত্রিপুরা ছিল রাজন্য শাসিত স্বাধীন দেশীয় রাজ্য। ভারত স্বাধীন হওয়ার পর ত্রিপুরা ভারতের অঙ্গরাজ্য হিসেবে যোগ দেয়। রাজতন্ত্রের অবসান ও গণতন্ত্রের সূচনায় রাজ্যের মানুষের দায়িত্ব চলে যায় ভারত সরকারের ওপর। তখন একটি প্রশ্ন সামনে আসে জনগণের দায়িত্ব তো নিয়ে নিলো দেশের সরকার কিন্তু রাজকোষ থেকে যে সব মন্দির ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হয়ে আসছে তার দায়িত্ব কে নেবে? তখন সিদ্ধান্ত হয় যে রাজকোষ থেকে পরিচালিত সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব নেবে ত্রিপুরা সরকার।
  • ১১:২৮১১:২৮, ৮ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +১৯ খার্চী পূজা→‎বিবরণ: চতুর্দশ দেব-দেবীদের প্রধান মহাদেবের মুকুট রোপ্য দ্বারা নির্মিত

৬ জুলাই ২০২২

২ জুলাই ২০২২

১ জুলাই ২০২২

  • ১০:০১১০:০১, ১ জুলাই ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৫,২৫৩ জগন্নাথ মন্দির, দিল্লিজগন্নাথ শব্দের অর্থ জগতের নাথ। হিন্দুদের অসংখ্য দেব-দেবী। কিন্তু, তার মধ্যে প্রধান হিন্দু দেবতা হলেন ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও মহেশ্বর। তার মধ্যে বিষ্ণু এবং মহেশ্বরকেই জগতের নাথ বলেন হিন্দুরা। আর, সেই কারণেই প্রশ্ন জাগে যে জগন্নাথ আসলে কে, তিনি বিষ্ণু না মহেশ্বর? হিন্দু শাস্ত্রের মধ্যে প্রথমেই নাম আসে বেদের। বেদে জগন্নাথের কোনও উল্লেখ নেই। রামায়ণ এবং মহাভারতেও উল্লেখ নেই জগন্নাথের। তিনি বিষ্ণুর দশাবতারেরও অংশ নন। যদিও কিছু ওড়িয়া বইয়ে দাবি করা হয়েছে, বুদ্ধ নন। বিষ্ণুর নবম অবতার হলেন জগন্নাথ। আবা... ট্যাগ: পুনর্বহালকৃত

২৯ জুন ২০২২

  • ১৩:০৮১৩:০৮, ২৯ জুন ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৬০৪ রথযাত্রাশ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংসদেব, তাঁর স্ত্রী মা সারদা দেবী, নাট্যকার গিরিশচন্দ্র ঘোষ, সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়-সহ প্রমুখ ব্যক্তিরা রথের বিখ্যাত মেলা পরিদর্শনে আসতেন। শ্রী রামকৃষ্ণ বলতেন যাত্রাপালায় লোকশিক্ষা হয়।

২১ জুন ২০২২

১৭ জুন ২০২২

১৬ জুন ২০২২

১৪ জুন ২০২২

  • ১২:৩৫১২:৩৫, ১৪ জুন ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৫ পৌরাণিক কাহিনি→‎গ্রিক পৌরাণিক কাহিনি: গ্রিক পৌরাণিক কাহিনী Albert A. Anderson এর মতে mythos শব্দটি হেমারের বিভিন্ন কাজে দেখা গেছে। এমন কি হেমার যুগের কবিরাও এই শব্দটি ব্যবহার করেছেন তাদের সাহিত্য কর্মে। mythos শব্দটি প্রায়শই ব্যর্থ হয়েছে সত্য অথবা মিথ্যার মাঝে পার্থক্য বোঝাতে। David wiles এর মতে প্রাচীন গ্রীসে শব্দটি বিপুল তাৎপর্য বহন করতো। এটি ব্যবহার করা হত মিথ্যাচার ধর্মীয় ব্যাপারগুলোকে উপস্থাপন করার সময়। প্রাতিষ্ঠানিক ক্ষেত্রে পৌরাণিক কাহিনীর যে চরিত্রগুলো আছে সেগুলো দিয়ে পরবর্তীতে বিভিন্ন লোকগ ট্যাগ: দৃশ্যমান সম্পাদনা
  • ১২:৩১১২:৩১, ১৪ জুন ২০২২ পরিবর্তন ইতিহাস +৬ পৌরাণিক কাহিনিপুরাণ বা পৌরাণিক কাহিনী হল সমাজে প্রচলিত লোক কাহিনির একটা প্রাচীন প্রকারভেদ। সাধারণত বিশ্বজগৎ, পৃথিবী, প্রকৃতি ও মানব সভ্যতা ইত্যাদির উৎপত্তি ও স্বভাব ব্যাখ্যা করতে প্রাচীনকালে ও মধ্যযুগে এই লোককাহিনির জন্ম হয়েছিল। সাধারণত পৌরাণিক কাহিনীগুলো আবর্তিত হয় দেবদেবীদের ঘিরে, যারা বিশ্বজগতের বিভিন্ন প্রপঞ্চের উপর নিয়ন্ত্রণ রাখেন। যেমন, কেউ সূর্যের দেবতা, কেউ সমুদ্রের দেবতা ইত্যাদি। ইংরেজিতে পুরাণকে মিথ (Myth) বলে যা এসেছে গ্রিক শব্দ মিথোস μῦθος); মিথোস মানে গল্প বা কেচ্ছা। পুরাণ পাঠাতে পারেন হয় অধ্ ট্যাগ: দৃশ্যমান সম্পাদনা

১১ জুন ২০২২

৭ জুন ২০২২

৪ জুন ২০২২

৩১ মে ২০২২

২৭ মে ২০২২

২৬ মে ২০২২

(সবচেয়ে নতুন | সবচেয়ে পুরনো) (নতুনতর ৫০টি | ) (২০ | ৫০ | ১০০ | ২৫০ | ৫০০)টি দেখুন