বাইজেন্টাইন-উসমানীয় যুদ্ধ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাইজেন্টাইন-উসমানীয় যুদ্ধগুলি ছিলো উসমানী তুর্কী এবং বাইজেন্টাইনীদের ধারাবাহিক দন্দের স্বরুপ যা পরবর্তীতে বাইজেন্টাইন সম্রাজ্যের চূড়ান্ত পতন এবং সম্রাজ্যের উত্থানের কারন হয়ে দাঁড়ায়।

১২০৪ সালে চতুর্থ ক্রসেডদের দ্বারা বাইজেন্টাইনের রাজধানী কন্সটান্টিনপোল দখল হয় যা ছিলো পূর্ব-পশ্চিম খ্রিষ্টীয় বিপ্লবের একটি গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত। দুঃশাসন, পরস্পর বিভক্তি এবং বিশৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে যাওয়া বাইজেন্টাইন সম্রাজ্য ঐ সময়ই দুর্বল হয়ে পরেছিলো। পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে রুমের সেলজুক সুলতান পশিম এশিয়ার মাইনর অঞ্চলে অরাজকতা শুরু করে পরে নিকীয় সম্রাজ্য রোমান শাসনের অধিনে থাকে সেলজুক তুরকীদের তাড়িয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে । অবশেষে ১২৬১ সালে ল্যাটিন সম্রাজ্যের কাছ থেকে কন্সটান্টিপোল নিকীয় সম্রাজ্য পুনরায় উদ্ধার করে। তবে ইউরোপে বাইজেন্টাইন সম্রাজ্যের অবস্থা ছিলো অনিশ্চিত কেননা সেখানে প্রতিযোগী হিসেবে আরো ছিলো ইপিরাস, সাইবেরিয়া এবং দ্বিতীয় বুলগেরিয়ান সম্রাজ্য। সমন্বিত কারনে সুলতানের(এশিয়ায় বাইজেন্টাইনদের প্রধান শত্রু) শক্তি হ্রাস পাওয়ায় বাইজেন্টাইনরা এশিয়ার মাইনর অঞ্চল থেকে সৈন্য সরিয়ে নিজেদের কাছে নিয়ে আসতে থেকে। তবে রুম সুলতানের দুর্বলতা কোনো আশীর্বাদ নিয়ে আসে নি , কেননা গাজী নামক উচ্চ শ্রেনীর কর্মকর্তারা বাইজেন্টাইন্দের অর্থায়নে তাদের আশ্রয় দান করে। তবে বাইজেন্টাইন ও সেলজুকদের সাথে কিছু তুরকীদের আংশ গ্রহনে প্রথম উসমানের নেতৃত্বে নিকীয় এবং কন্সটেন্টিপোলেরা বড় রকম বিপদে পরে যায়। প্রথম ৯০ বছরে উসমানীদের বাইজেন্টাইন সম্রাজ্য তেমন কিছুই করতে পারে নি এবং ১৩৮০ সাল থেকে ১৪৫৩ সালের মধ্যে ধীরে ধীরে উসমানী সম্রাজ্যের উদ্ভব হতে থাকে এবং বাইজেন্টাইন সম্রাজ্য অস্তমিত হতে থাকে ।