ফাতিমেহ পাহলভি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ফাতিমেহ পাহলভি
Princess Fatemeh Pahlavi.jpg
জন্ম(১৯২৮-১০-৩০)৩০ অক্টোবর ১৯২৮
তেহরান, ইরান
মৃত্যু২ জুন ১৯৮৭(1987-06-02) (বয়স ৫৮)
লন্ডন, যুক্তরাজ্য
দাম্পত্য সঙ্গীভিনসেন্ট লী হিলিয়ার
(বি. ১৯৪৮; বিচ্ছেদ. ১৯৫৯)

মোহাম্মদ আমির খাতামি
(বি. ১৯৬০; তার মৃত্যু ১৯৭৫)
বংশধর
  • যুবরাজ কায়ভান হিলিয়ার
  • রাজকন্যা রানা হিলিয়ার
  • যুবরাজ দারিয়ুষ হিলিয়ার
  • যুবরাজ কামবিয খাতামি
  • যুবরাজ রামিন খাতামি
  • রাজকন্যা পারি খাতামি
পূর্ণ নাম
ফাতিমেহ পাহলভি
ফার্সি: فاطمه پهلوی‎‎
রাজবংশপাহলভি
পিতারেজা শাহ
মাতাএসমাত দৌলতশাহি

ফাতিমেহ পাহলভি (ফার্সি: فاطمه پهلوی‎‎; ৩০ অক্টোবর ১৯২৮ – ২ জুন ১৯৮৭) ছিলেন ইরানের রাজকন্যা এবং ইরানের শাহ রেজা শাহ পাহলভির দশম এবং তার চতুর্থ স্ত্রী এসমাত দৌলতশাহির চতুর্থ কন্যা। পাহলভি রাজবংশের সদস্য হিসেবে সাম্রাজ্যের অনুষ্ঠানিক ব্যবহারশৈলী অনুযায়ী তাকে "আপনার রাজকীয় মহিমা" সম্মোধন করা হতো।

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

ফাতিমেহ পাহলভি ১৯২৮ সালের ৩০ অক্টোবর ইরানের তেহরানে পাহলভি রাজবংশে জন্ম নেন।[১][২] তিনি ইরানের রেজা শাহ পাহলভির দশম এবং তার চতুর্থ ও শেষ স্ত্রী এসমাত দৌলতশাহির চতুর্থ কন্যা।[৩][৪] ফাতিমেহর মা দৌলতশাহি ছিলেন কাজার রাজবংশের সদস্য এবং যিনি ১৯২৩ সালে পাহলভি রাজবংশের রেজা শাহকে বিয়ে করেছিলেন।[৫] ফাতিমেহ ছিলেন আবদুল রেজা পাহলভি, মাহমুদ রেজা পাহলভি এবং হামিদ রেজা পাহলভির পূর্ণ বোন।[৬] মুকুটলাভকারী যুবরাজ মোহাম্মদ রেজা পাহলভি তার বৈমাত্র ভাই ছিলেন।

ফাতিমেহ এবং তার ভাইয়েরা তাদের পিতামাতার সাথে তেহরানের মার্বেল প্রাসাদে থাকতেন।[৪] তিনি তেহরানে আনোশিরাভন ডাদগার বালিকা বিদ্যালয়ে শিক্ষা গ্রহণ করেছিলেন ছিলেন।[৭]

ক্রিয়াকলাপ[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে রাজকন্যা ফাতিমেহ

ফাতিমেহর সৎভাই মোহাম্মদ রেজা পাহলভির রাজত্বকালে, তিনি একটি বোলিং ক্লাবের মালিকানা এবং ব্যবসায়ের সাথে জড়িত ছিলেন, পাশাপাশি তাদের নির্মাণ, উদ্ভিজ্জ তৈল উৎপাদন ও প্রকৌশল সম্পর্কিত সংস্থাগুলোর অংশীদার ছিলেন।[৮] সে সময়ে তার প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ডলারের সম্পত্তি ছিল।[৯] তার সম্পত্তি মূলত তার দ্বিতীয় স্বামী, খাতামি দ্বারা সামরিক ঠিকাদারদের কাছ থেকে "কমিশন" সংগ্রহের ফলস্বরূপ।[৯] ফাতিমেহ এছাড়াও ইরানে উচ্চশিক্ষা সংক্রান্ত কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন।[১০]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ফাতিমেহ পাহলভি দুইবার বিয়ে করেছিলেন। ১৯৫০ সালের ১৩ এপ্রিল তিনি ইতালির সিভিটভ্যাচিয়াতে এক নাগরিক অনুষ্ঠানে ভিনসেন্ট লী হিলিয়ারের (১৯২৪-৭ জুলাই ১৯৯৯) সাথে বিয়ে করেন।[৩] বিয়েরসূত্রে হিলিয়ার ইসলামে রূপান্তরিত হয়েছিলেন।[৩][৭] ১৯৫০ সালের ১০ মে তারা প্যারিসে ইরানের দূতাবাসে একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন।[৩][১১] হিলিয়ার ছিলেন ফাতিমেহর ভাই আব্দুল রেজা পাহলভির বন্ধু।[১২] ইরানে পরবর্তী সফরকালে ফাতিমেহ ও হিলিয়ারের সাক্ষাৎ ঘটে।[৭] সম্ভবত ইরানে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ার কারণে শাহ মোহাম্মদ রেজা[১৩] এই বিয়ের পুরোপুরি সমর্থন করেন নি।[১৪] তাদের তিন সন্তানের, দুই ছেলে কায়ভান ও দারিয়ুষ এবং এক মেয়ে রানা, যিনি ১৯৫৪ সালে শৈশবকালেই দুর্ঘটনাক্রমে মারা যান।[৭][১৫] সেপ্টেম্বর ১৯৫৯ সালে এই দম্পতির বিচ্ছেদ ঘটে।[১৬][১৭]

হিলিয়ারের সাথে বিচ্ছেদের পর, ফাতিমেহ ১৯২৪ সালের ২২ নভেম্বর ইরানের বিমান বাহিনীর কমান্ডিং জেনারেল মোহাম্মদ আমির খাতামির সাথে বিয়ে করেন।[১৭][১৮] শাহ ও তার বাগদত্তা ফারাহ দিবা বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।[১৭] তাদের দুই পুত্র কামবিয (জন্ম ১৯৬১) এবং রামিন (জন্ম ১৯৬৭) এবং এক কন্যা পারি (জন্ম ১৯৬২)।[৭][১৯]

শাহের রাজত্বকালে, ফাতিমেহ সানবার্ট টায়রার পোশাক পরতেন এবং তিনি এই পোশাক পরিধানকারী প্রথম এবং একমাত্র ব্যক্তি হিসেবে ছিলেন পরিচিত।[২০]

১৯৭৯ সালে ইসলামি বিপ্লবের আগে ফাতিমেহ ইরান ত্যাগ করেছিলেন।[১৪] মৃত্যুপূর্ব পর্যন্ত তিনি লন্ডনে বাস করেন।[২১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

ফাতিমেহ পাহলভি ১৯৮৭ সালের ২ জুন ৫৮ বছর বয়সে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে মারা যান।[২][২১]

সম্মাননা[সম্পাদনা]

জাতীয় সম্মাননা[সম্পাদনা]

বিদেশি সম্মাননা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Iranian princess dies at age 58"The Lewiston Journal। ২ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  2. "Princess Fatimeh Pahlavi"Associated Press। London। ২ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  3. "Shah of Iran's half-sister dies"Rome News Tribune। ২ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  4. Diana Childress (২০১১)। Equal Rights Is Our Minimum Demand: The Women's Rights Movement in Iran 2005। Twenty-First Century Books। পৃষ্ঠা 40। আইএসবিএন 978-0-7613-7273-8। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৩ 
  5. Gholam Reza Afkhami (১৩ ডিসেম্বর ২০০৮)। The Life and Times of the Shah। University of California Press। পৃষ্ঠা 605। আইএসবিএন 978-0-520-94216-5। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৩ 
  6. "Reza Shah Pahlavi"Iran Chamber Society। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৩ 
  7. "The Pahlavi Dynasty"Royal Ark। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  8. "105 Iranian firms said controlled by royal family"The Leader Post। Tehran। AP। ২২ জানুয়ারি ১৯৭৯। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  9. Harris, David (২০০৫)। "Buying Loyalty in Iran" (PDF)The Long Term View6 (3): 88–96। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১২ 
  10. Edgar Burke Inlow (১ জানুয়ারি ১৯৭৯)। Shahanshah: The Study of Monarchy of Iran। Motilal Banarsidass Publ.। পৃষ্ঠা 91। আইএসবিএন 978-81-208-2292-4। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  11. "Iran. Part II (1950–1955)" (PDF)Iranian Hotline। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৩ 
  12. Ali Akbar Dareini (১ জানুয়ারি ১৯৯৯)। The Rise and Fall of the Pahlavi Dynasty: Memoirs of Former General Hussein Fardust। Motilal Banarsidass Publications। পৃষ্ঠা 123। আইএসবিএন 978-81-208-1642-8। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০১২ 
  13. "Half sister of the late Shah"Orlando Sentinel। ৩ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  14. (ed.) Gholamali Haddad Adel, Mohammad Jafar Elmi, Hassan Taromi-Rad (১ অক্টোবর ২০১২)। Pahlavi Dynasty: An Entry from Encyclopaedia of the World of Islam। MIU Press। পৃষ্ঠা 144। আইএসবিএন 978-1-908433-01-5। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  15. "Shah of Iran's half-sister dies"Rome News-Tribune। ২ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৩ 
  16. "US aided in ouster of Shah"St. Joseph News Press। AP। ৯ আগস্ট ১৯৮০। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  17. "Shah engaged"Toledo Blade। ২৩ নভেম্বর ১৯৬০। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৩ 
  18. Abbas Milani (২০০৮)। Eminent Persians: The Men and Women who Made Modern Iran, 1941-1979: in Two Volumes। Syracuse University Press। পৃষ্ঠা 457। আইএসবিএন 978-0-8156-0907-0। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  19. Hadidi, Ebrahim। "Field Martial Mohammad Khatami"। Institute for Iranian History। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 
  20. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; tiara নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  21. "Fatemeh Pahlevi Dies at 58, A Half Sister to Shah of Iran"The New York Times। AP। ৩ জুন ১৯৮৭। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]