পিপলস ব্যাংক অব চায়না

স্থানাঙ্ক: ৩৯°৫৪′২৪″ উত্তর ১১৬°২১′১৪″ পূর্ব / ৩৯.৯০৬৬৭° উত্তর ১১৬.৩৫৩৮৯° পূর্ব / 39.90667; 116.35389
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিপলস ব্যাংক অব চায়না
中国人民银行
Zhōngguó Rénmín Yínháng
বেইজিং-এ পিপলস ব্যাংক অব চায়নার সদর দফতর
বেইজিং-এ পিপলস ব্যাংক অব চায়নার সদর দফতর
প্রধান কার্যালয়বেইজিং এবং সাংহাই
স্থানাঙ্ক৩৯°৫৪′২৪″ উত্তর ১১৬°২১′১৪″ পূর্ব / ৩৯.৯০৬৬৭° উত্তর ১১৬.৩৫৩৮৯° পূর্ব / 39.90667; 116.35389 (বেইজিং)
প্রতিষ্ঠিত১ ডিসেম্বর ১৯৪৮; ৭২ বছর আগে (1948-12-01)
মালিকানাচীন প্রজাতন্ত্রের স্টেট কাউন্সিল
গভর্নরইয়ে গ্যাং
এর কেন্দ্রীয় ব্যাংক গণচীন
মুদ্রারেন্মিন্বি (ইয়ান)
CNY (আইএসও ৪২১৭)
সঞ্চয়$৩.২১  ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার (নভেম্বর ২০১৭)[১]
সঞ্চয়ের জন্য প্রয়োজনীয়তা১৭%[২]
ঋণের হার৪.৩%[৩]
আমানতের হার৩.৫%
ওয়েবসাইটপিবিসি
পিপলস ব্যাংক অব চায়না
চীনা নাম
সরলীকৃত চীনা 中国人民银行
ঐতিহ্যবাহী চীনা 中國人民銀行
আক্ষরিক অর্থচায়না পিপল ব্যাংক
সরলীকৃত চীনা 人民银行
ঐতিহ্যবাহী চীনা 人民銀行
আক্ষরিক অর্থপিপল ব্যাংক
দ্বিতীয় বিকল্প চীনা নাম
চীনা 央行
আক্ষরিক অর্থকেন্দ্রীয় ব্যাংক
তিব্বতি নাম
তিব্বতি ཀྲུང་གོ་མི་དམངས། མི་རྣམས།དངུལ་ཁང་།
চুয়াং নাম
চুয়াংCunghgoz Yinzminz Yinzhangz
মঙ্গোলীয় নাম
মঙ্গোলীয় লিপি ᠳᠤᠮᠳᠠᠳᠤ
ᠤᠯᠤᠰ ᠤᠨ
ᠠᠷᠠᠳ ᠤᠨ
ᠪᠠᠩᠬᠢ
উইগুর নাম
উইগুর
جۇڭگو خەلق بانكا

পিপলস ব্যাংক অব চায়না ('পিবিসি বা পিবিওসি'; সরলীকৃত চীনা: 中国人民银行; প্রথাগত চীনা: 中國人民銀行; ফিনিন: Zhōngguó Rénmín Yínháng) হচ্ছে গণচীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক যেটি পিপলস ব্যাংক আইন এবং বাণিজ্যিক ব্যাংক আইন দ্বারা নির্ধারিত চীনের মূলভূখণ্ডে ব্যাংকসহ অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমুহের আর্থিক নীতি পরিচালনার করে থাকে। পিপলস ব্যাংক অব চায়না ২০১৭ সালের জুলাই মাস থেকে বিশ্বের সকল কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মধ্যে বেশি আর্থিক সম্পদের মালিক।[৪] [৫] ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে এই ব্যাংকের মজুদ সম্পদের মূল্য ছিল ৩.২১ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

হুয়াবেই ব্যাংক, বেহাই ব্যাংক এবং জিবিআই ফার্মার ব্যাংকের একীকরণের মাধ্যমে ১৯৪৮ সালের ১ ডিসেম্বর ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রথমে এটির সদর দফতর স্থাপন করা হয়েছিলো হপেই প্রদেশের শিচিয়াচুয়াং-তে, পরবর্তীতে ১৯৪৮ সালে সদর দফতর বেইজিং স্থানান্তর করা হয়। ১৯৫০ সাল থেকে ১৯৭৮ পর্যন্ত চীনের একমাত্র ব্যাংক হিসেবে এটি কেন্দ্রীয় ব্যাংকিং এবং বাণিজ্যিক ব্যাংকিং উভয় কার্যক্রম পরিচালনা করত। তৎকালিক সময়ে চীনের মূলভূখণ্ডের অন্যান্য সকল ব্যাংক এই ব্যাংকের শাখা হিসেবে অথবা আমানত সংগ্রহ কেন্দ্র হিসেবে কাজ করত।[৬] [৭] [৮]

১৯৫২ থেকে ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত বেসরকারী ব্যাংকগুলিতে সরকারী মালিকানা যোগ করা হয়েছিলো ফলে ১৯৫৫ সাল থেকে ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত প্রথম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার আগে পর্যন্ত পিবিসি বেসরকারী ব্যাংকগুলির সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ লাভ করেছিল এবং এগুলি পিবিসি শাখা হিসেবে কাজ করত।

১৯৭৮ পর্যন্ত গ্রামীণ উন্নয়নের জন্য বিশেষ বরাদ্দের ব্যতীত অন্যান্য প্রায় সকল ঋণ ও ব্যবসায়িক লেনদেনের ক্ষেত্রে পিবিসি একক আধিপত্য বজায় রেখেছিল। [৯] ১৯৭৮ সালে চীনা অর্থনৈতিক সংস্কারের অংশ হিসাবে, স্টেট কাউন্সিল পিপলস ব্যাংক অব চায়নার বাণিজ্যিক ব্যাংকিং কার্যক্রমকে চারটি স্বতন্ত্র তবে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলির জন্য নির্ধারণ করে দেয়। এই চারটি ব্যাংক হচ্ছে ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড কমার্শিয়াল ব্যাংক অব চায়না (আইসিবিসি), ব্যাংক অব চীন (বিওসি), এগ্রিকালচারাল ব্যাংক অব চায়না (এবিসি), এবং চায়না কনস্ট্রাকশন ব্যাংক (সিসিবি)।[১০] ১৯৮৩ সালে রাজ্য কাউন্সিল ঘোষণা করে যে পিবিসি চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক হিসাবে কাজ করবে।

নব্বইয়ের দশকের গোড়ার দিকে ব্যাংকের আধুনিকায়নে চেন ইউয়ান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। কেন্দ্রীয় ব্যাংক হিসেবে এটির আইনী বৈধতা নিশ্চিত করা হয় ১৯৯৫ সালের ১ ই মার্চ অনুষ্ঠিত পিপলস কংগ্রেসের অষ্টম জাতীয় সম্মেলনের তৃতীয় প্লেনিয়াম ঘোষণার মাধ্যমে। সে বছর একটি আইন দ্বারা একটি কেন্দ্রীয় ব্যাংক হিসেবে পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়া হয়।[১১] ১৯৯৮ সালে, পিবিসি-এর একটি বড় পুনর্গঠন করা হয়েছিলো। তখন সমস্ত প্রাদেশিক এবং স্থানীয় শাখা বিলুপ্ত করা হয়েছিল এবং এর পরিবর্তে ব্যাংকটির নয়টি আলাদা আঞ্চলিক শাখা খোলা হয়। ২০০৩ সালে দশম জাতীয় পিপলস কংগ্রেসের স্থায়ী কমিটি সামগ্রিক আর্থিক স্থিতিশীলতা এবং আর্থিক পরিষেবাদি রক্ষার জন্য আর্থিক নীতি নির্ধারণ ও বাস্তবায়নে পিবিসির ভূমিকা জোরদার করার জন্য একটি সংশোধনী আইন অনুমোদন করে।

ব্যবস্থাপনা[সম্পাদনা]

পিবিসির শীর্ষ ব্যবস্থাপনায় থাকে একজন গভর্নর এবং নির্দিষ্ট সংখ্যক ডেপুটি গভর্নরের সমন্বয়ে গঠিত বোর্ড। পিবিসির গভর্নর ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস বা কংগ্রেসের স্থায়ী কমিটি দ্বারা নিযুক্ত বা অপসারিত হয়। পিবিসির গভর্নর প্রার্থী ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস দ্বারা অনুমোদিত এবং গণপ্রজাতন্ত্রী চীন প্রধানমন্ত্রী দ্বারা মনোনীত হন।

পিবিসি গভর্নর দায়িত্বভার গ্রহণ করে পিবিসির সামগ্রিক কাজ তদারকি করেন এবং ডেপুটি গভর্নররা গভর্নরকে তার দায়িত্ব পালনে সহায়তা করে। পিবিসির বর্তমান গভর্নর হলেন ইয়ে গ্যাং।

কাঠামো[সম্পাদনা]

বর্তমানে পিবিসির থিয়েনচিন, শেন-ইয়াং, সাংহাই, নানচিং, চিনান, উহান, গুয়াংজু, ছেংতু এবং শিআনে একটি করে মোট ৯টি আঞ্চলিক কার্যালয় বেইজিং এবং ছুংছিং-এ দুটি অপারেশন অফিস, ৩০৩টি পৌর উপ-শাখা এবং ১৮০৯টি কাউন্টি-স্তরের উপ-শাখা রয়েছে।

পিবিসির ৬টি বিদেশী প্রতিনিধি অফিস রয়েছে (আমেরিকা প্রতিনিধি অফিস, ইউরোপের জন্য পিবিসি লন্ডন প্রতিনিধি অফিস, জাপানের টোকিও প্রতিনিধি অফিস, জারমানির ফ্র্যাঙ্কফুর্ট প্রতিনিধি অফিস, আফ্রিকার প্রতিনিধি অফিস এবং ক্যারিবিয়ান প্রতিনিধি অফিস)।

পিবিসি মোট ১৮টি কার্যকরী বিভাগ (বিরিউস) নিয়ে গঠিত: [১২]

  • সাধারণ প্রশাসন বিভাগ
  • আইন বিষয়ক বিভাগ
  • মুদ্রানীতি বিভাগ
  • আর্থিক বাজার বিভাগ
  • আর্থিক স্থিতিশীলতা ব্যুরো
  • আর্থিক জরিপ এবং পরিসংখ্যান বিভাগ
  • হিসাব এবং ট্রেজারি বিভাগ
  • পেমেন্ট সিস্টেম বিভাগ
  • প্রযুক্তি বিভাগ
  • মুদ্রা, স্বর্ণ ও সিলভার ব্যুরো
  • রাজ্য ট্রেজারি ব্যুরো
  • আন্তর্জাতিক বিভাগ
  • অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষণ বিভাগ
  • কর্মচারী-বিষয়ক বিভাগ
  • গবেষণা ব্যুরো
  • ক্রেডিট ইনফরমেশন সিস্টেম ব্যুরো
  • এন্টি মানি লন্ডারিং ব্যুরো (সুরক্ষা ব্যুরো)
  • পিবিসি কমিটির শিক্ষা বিভাগ

এছাড়াও নিম্নলিখিত প্রতিষ্ঠানগুলি সরাসরি পিবিসির অধীনে কার্যক্রম পরিচালনা করে: [১৩]

  • চায়না এন্টি মানি লন্ডারিং মনিটরিং অ্যান্ড অ্যানালাইসিস সেন্টার
  • পিবিসি স্নাতক স্কুল
  • চায়না ফিনান্সিয়াল পাবলিশিং হাউস
  • আর্থিক খবর
  • চায়না ন্যাশনাল ক্লিয়ারিং সেন্টার
  • চায়না ব্যাংকনোট ইস্যু এন্ড মাইনিং কর্পোরেশন
  • চায়না গোল্ড কয়েন ইনকর্পোরেশন
  • চায়না ফিনাঞ্চিয়াল কম্পিউটারাইজেশন কর্পোরেশন
  • চায়না ফরেন এক্সচেঞ্জ ট্রেড সিস্টেম

গভর্নর তালিকা[সম্পাদনা]

ক্রম নাম দায়িত্ব গ্রহণ দায়িত্ব হস্তান্তর প্রধানমন্ত্রী
নান হানচেন অক্টোবর ১৯৪৯ অক্টোবর ১৯৯৪ চৌ এন-লাই
কও জুরু অক্টোবর ১৯৯৪ অক্টোবর ১৯৬৪ চৌ এন-লাই
হু লিজিয়াও অক্টোবর ১৯৬৪ ১৯৬৬ চৌ এন-লাই
'সাংস্কৃতিক বিপ্লবের সময় পদটি বিলুপ্ত করা হয়েছিলো'
চেন জিয়ু মে ১৯৭৩ জানুয়ারী ১৯৭৮ চৌ এন-লাই
হুয়া গুফেং
লি বাওহুয়া জানুয়ারী ১৯৭৮ এপ্রিল ১৯৮২ হুয়া গুফেং
চাও সি ইয়াং
লু পেইজিয়ান এপ্রিল ১৯৮২ মার্চ ১৯৮৫ চাও সি ইয়াং
চেন মুহুয়া মার্চ ১৯৮৫ এপ্রিল ১৯৮৮ চাও সি ইয়াং
লি গুইসিয়ান এপ্রিল ১৯৮৮ জুলাই ১৯৯৩ লি পেং
ঝু রংজি জুলাই ১৯৯৩ জুন ১৯৯৫ লি পেং
১০ দাই জিয়াংলং জুন ১৯৯৫ ডিসেম্বর ২০০২ লি পেং
ঝু রংজি
১১ ঝাউ শিয়াচুয়ান ডিসেম্বর ২০০২ মার্চ ২০১৮ ঝু রংজি
ওয়েন জিয়াবাও
লি খছিয়াং
১২ ইয়ে গ্যাং মার্চ ২০১৮ বর্তমান লি খছিয়াং

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ[সম্পাদনা]

২০০৪ সাল থেকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ:[১৪][১৫]

বছর ও মাস বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ (বিলিয়ন মার্কিন ডলার)
২০০৪-০১ ৪১৫.৭
২০০৪-০৬ ৪৭০.৬
২০০৪-১২ ৬০৯.৯
২০০৫-০১ ৬২৩.৬
২০০৫-০৬ ৭১১
২০০৫-১২ ৮১৮.৯
২০০৬-০১ ৮৪৫.২
২০০৬-০৬ ৯৪১.১
২০০৬-১২ ১০৬৬.৩
২০০৭-০১ ১১০৪.৭
২০০৭-০৬ ১৩৩২.৬
২০০৭-১২ ১৫২৮.২
২০০৮-০১ ১৫৮৯.৮
২০০৮-০৬ ১৮০৮.৮
২০০৮-১২ ১৯৪৬
২০০৯-০১ ১৯১৩.৫
২০০৯-০৬ ২১৩১.৬
২০০৯-১২ ২৩৯৯.২
২০১০-০১ ২৪১৫.২
২০১০-০৬ ২৪৫৪.৩
২০১০-১২ ২৮৪৭.৩
২০১১-০১ ২৯৩১.৭
২০১১-০৬ ৩১৯৭.৫
২০১১-১২ ৩১৮১.১
২০১২-০১ ৩২৫৩.৬
২০১২-০৬ ৩২৪০
২০১২-১২ ৩৩১১.৬
২০১৩-০১ ৩৪১০
২০১৩-০৬ ৩৪৯৬.৭
২০১৩-১২ ৩৮২১.৩
২০১৪-০১ ৩৮৬৬।৬
২০১৪-০৬ ৩৯৯৩.২
২০১৪-১২ ৩৮৪৩
২০১৫-০১ ৩৮১৩.৪১
২০১৫-০৬ ৩৬৯৩.৮৪
২০১৭-০৬ ৩০৫৬.৭৯
২০১৭-১২ ৩১৩৯.৯৫
২০১৮-০১ ৩১৬১.৪৬
২০১৮-০৩ ৩১৪২.৮২

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. 官方储备资产। People's Bank of China। সংগ্রহের তারিখ ৯ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  2. [১]
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; :0 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "Global Economic Briefing: Central Bank Balance Sheets" (PDF)Yardeni.com। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  5. James M. Zimmerman 2010.। "China Law Deskbook . p. 452" 
  6. "History of Bank of China", Boc.cn, Retrieved 2015-11-23.
  7. "History", China Construction Bank webpage. Retrieved 2015-11-23.
  8. James M. Zimmerman 2010. China Law Deskbook. p.449. https://books.google.com/books?id=oDpWHVz2tO0C&pg=PA449
  9. Becky Chiu, Mervyn Lewis 2006. Reforming China's State-owned Enterprises and Banks. p.188-189. https://books.google.com/books?id=-GTCsC6AqVUC&pg=PA188
  10. James M. Zimmerman 2010. China Law Deskbook. p.450. https://books.google.com/books?id=oDpWHVz2tO0C&pg=PA450
  11. Becky Chiu, Mervyn Lewis 2006. Reforming China's State-owned Enterprises and Banks. p.203. https://books.google.com/books?id=-GTCsC6AqVUC&pg=PA203
  12. The People's Bank of China। "Management and Organizational Structure"। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০১২ 
  13. The People's Bank of China। "Enterprises and Institutions directly under the PBC"। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০১২ 
  14. "China Monthly Foreign Exchange Reserves Analysis – CNGFOREX"Bloomberg.com। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৪, ২০১৭ 
  15. "Archived copy"। আগস্ট ১২, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০১৫