নিউট্রন তারা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিউট্রন তারার অভ্যন্তরীন ঘটনের একটি নকশা।

নিউট্রন তারা একটি সুবৃহৎ তারার অবমিষ্টাংশ বা অতিনবতারার ধ্বংসের মাধ্যমে সৃষ্টি হয়। নিউট্রনসমূহের মধ্যে পাউলির বর্জন নীতি অনুযায়ী কার্যকর বিকর্ষণ বলের মাধ্যমে সুস্থিতি অর্জনকারী এই তারা সাধারণত শীতল হয়। তারার বিবর্তনের অনেকগুলো সম্ভাব্য পরিণতির মধ্যে একটি হল এই নিউট্রন তারা। একটি সাধারণ নিউট্রন তারার ভর সাধারণত সূর্যের ভরের ১.৩৫ থেকে ২.১ গুণ হয়ে থাকে। এর ব্যাসার্ধ্য ২০ থেকে ১০ কিলোমিটারের মত হয় যা সূর্যের ব্যাসার্ধ্যের তুলনায় ৩০,০০০ থেকে ৭০,০০০ গুণ কম। এ কারণে এদের ঘনত্ব খুবই বেশী। এর ঘনত্ব প্রায় ৮×১০১৩ থেকে ২×১০১৫ গ্রাম প্রতি ঘনসেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়। ঘনত্বের এই মান পরমাণুর কেন্দ্রীনের প্রায় সমান।

আমরা জানি চন্দ্রশেখর সীমার মান হচ্ছে সূর্যের ভরের ১.৩৮ গুণ। যেসব তারার ভর এই মানের চেয়ে কম তারা শ্বেত বামন-এ পরিণত হয়; আর তারার ভর সূর্যের ভরের ২ থেকে ৩ গুণের মধ্যে (টলম্যান-ওপেনহাইমার-ভকহফ সীমা) হলে তার জীবনের শেষ পর্যায়ে সৃষ্টি হবে কোয়ার্ক তারা। অবশ্য শেষের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত করে বলা যায় নি। আর কারও ভর যদি সূর্যের ভরের ৫ গুণ বা তারও বেশি হয় তাহলে মহাকর্ষীয় ধ্বসের মাধ্যমে তা কৃষ্ণ বিবরে পরিণত হবে।