নাটের গুরু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নাটের গুরু
নাটের গুরু.jpg
নাটের গুরু চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালকহরনাথ চক্রবর্তী
প্রযোজকসিনজিনি মুভিজ
কাহিনীকারসমরেশ বসু
শ্রেষ্ঠাংশেজিৎ
কোয়েল মল্লিক
রঞ্জিত মল্লিক
মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়
সুরকারএস পি। ভেঙ্কটেশ
চিত্রগ্রাহকভি. প্রোভাকর
পরিবেশকইএসকেওয়াই মুভিস
মুক্তি১৪ জুন ২০০৩
দৈর্ঘ্য১৪৫ মিনিট
দেশ ভারত
ভাষাবাংলা

নাটের গুরু হল ২০০৩ এর একটি প্রকাশিতব্য বাংলা রোমান্টিক কমেডি চলচ্চিত্র যার পরিচালক হরনাথ চক্রবর্তী ও প্রযোজক সিনজিনি মুভিজ । প্রধান ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জিৎ এবং কোয়েল মল্লিক আর গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন রঞ্জিত মল্লিক এবং মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়। এই ছবিটি দিয়ে কোয়েল মল্লিক তার সিনেমা জগতে অভিষেক করেছিলেন। এস. পি. ভেঙ্কটেশ [১] ছবিটির সংগীত পরিচালক ছিলেন এবং কয়েকটি গান হিট করেছিল। ছবিটি ১৪ জুন ২০০৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল এবং ২০০৩ সালের অন্যতম বৃহত্তম হিট ছবি।[২][৩][৪]

কাহিনী[সম্পাদনা]

সমরেশ বসুর জনপ্রিয় উপন্যাস অবলম্বনে রোমান্টিক কমেডি, নাটার গুরু ছবিটি। ছবিতে চারটি প্রধান চরিত্রগুলি হল রবি, শশীভূষণ, সুলোচোনা এবং মনীষা। শশী ও সুলোচোনা এক বিচ্ছিন্ন দম্পতি যারা পরস্পর পরস্পর থেকে পৃথক হলেও আইনত বিবাহবিচ্ছেদ হয়নি। পৃথকীকরণ উভয় পক্ষের ভুল বোঝাবুঝি, অহংকার এবং ভুল ধারণার শিকার দুজনই। ১৫ বছর পরে, সুলোচোনা এখন একজন সফল ব্যবসায়িক এবং শশীভূষণ একজন রেস কোর্সের বুকি। তাদের একমাত্র মেয়ে মনীষা একজন নর্তকী এবং সে তার মায়ের সাথে থাকেন। হটাৎ একদিন সুলোচোনা হার্ট অ্যাটাকের শিকার হন এবং মনীষা কোনরকম সাহায্য না পেয়ে তার বাবার কাছ যান এবং বাবা ও মেয়ে ঠিক করেন যে অসুস্থ সুলোচোনাকে কোন প্রকার চাপ দেওয়া যাবে না। সুতরাং তারা একটি গোপন পদ্ধতি ঠিক করে। তারা শশীর বন্ধু, রবিকে (জিৎ) ভাড়া করে আনার সিদ্ধান্ত নেয় এবং তাকে দুর্গাদাস হিসাবে উপস্থাপন করে। যখনি দরকার হত রবি প্রক্সি দিতে হাজির হত। সে নিয়মিত মনীষা বাড়িতে আসতে শুরু করে। তবে প্রায়ই অপ্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে শশী এবং মনীষার মধ্যে ঝগড়া এবং লড়াই হত। মনীষার আচরণে রবি অপমানিত হন। একদিন রবি সুলোচোনার পা ছোঁয় এবং তাঁকে গান শোনায়। সেই সংগীত সুলোচোনাকে অনেকটা সুস্থ করে তোলে এবং তিনি আবার হাঁটাতে সক্ষম হন। সুলোচোনা রবিকে ভালবাসে। এদিকে, সুলোচোনা দুর্ঘটনাক্রমে রবির মৌলিকত্ব উন্মোচন করে ফেলে। সুলোচোনা রবির সততা ও আত্মমর্যাদার প্রশংসা করেন। রবির সততা ও সরলতা মনীষাকে তার প্রেমে পড়ায়। দুর্গাদাস ঝামেলা সৃষ্টি করে। তবে শশীর সহযোগিতায় প্রেমীরা আবার মিলিত হন। শশী এবং সুলোচোনা তাদের দীর্ঘ হারিয়ে যাওয়া প্রেম পুনরায় আবিষ্কার করেন এবং দম্পতি আবার একত্রিত হন।

অভিনয়[সম্পাদনা]

মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন (জিৎ) এবং তার চরিত্রের নাম ছিল রবি মৈত্রের, মনীষা চরিত্রে কোয়েল মল্লিক, মনীষার বাবা চরিত্রে রঞ্জিত মল্লিক, মনীষার মা চরিত্রে মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়, রবির বন্ধু চরিত্রে কাঞ্চন মল্লিক, মণি চরিত্রে পুষ্পিতা মুখোপাধ্যায় এবং অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন নিমু ভৌমিক, অশোক মুখোপাধ্যায়, কৌশিক ভট্টাচার্য, শচীন মল্লিক।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. তিনি একজন সংগীত পরিচালক এবং সুরকার, যিনি বেশিরভাগই মালায়ালাম চলচ্চিত্র জগতে কাজ করেন।
  2. Mitra, Aindrila (২৪ এপ্রিল ২০০৩)। "Koel's on a Tolly high with Nater Guru-Calcutta Times-Cities-The Times of India"। indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-৩১ 
  3. Sengupta, Sujit। "Bengali Cinema - Nater Guru"। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-৩১ 
  4. "The Telegraph - Calcutta : Weekend"। Calcutta, India: www.telegraphindia.com। ৪ মার্চ ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-৩১ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]